ইকো পার্কে চা বাগান, কলকাতায় যেন এক টুকরো দার্জিলিং

চা বাগান দেখতে আর পাহাড়ে যেতে হবে না। এখন শহরেই মধ্যেই একটুকরো চা বাগান। দুটি পাতা একটি কুঁড়ির গান।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 23, 2019 10:05 PM IST
ইকো পার্কে চা বাগান, কলকাতায় যেন এক টুকরো দার্জিলিং
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 23, 2019 10:05 PM IST

#কলকাতা: চা বাগান দেখতে আর পাহাড়ে যেতে হবে না। এখন শহরেই মধ্যেই একটুকরো চা বাগান। দুটি পাতা একটি কুঁড়ির গান। দেখতে যেমন পাবেন চাইলে শহুরে বাগানের ঐ চা টেস্ট করতেও পারেন। তবে এখুনি কিনে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা থাকলে একটু ধৈর্য ধরতে হবে।

শুরু হয়েছিল সখে। কলকাতার ইকো পার্কে। বিশ্বের অষ্টম স্থাপত্য যেখানে আছে সেখানে বাংলার চা বাগান থাকবে না। আইডিয়াটা অনেকটা এরকম। সেকারণেই বছর তিনেক আগে, ইকো পার্কের তিন একর জায়গা নিয়ে বানানো হয়েছিল চা-বাগান।

চা গাছ মিললেও, কিন্তু দার্জিলিং-এর ঝিরিঝিরি বৃষ্টি কোথায়? মেঘ-রোদ্দুরে আবহাওয়া, ঠান্ডা জলবায়ু মিলবে কোথায়? চিন্তা ছিলই। শুরুও হয়েছিল চেষ্টা। প্রথম দফায় অসফল। কলকাতার গ্রীষ্মে নষ্ট হয়ে গেছিল চা গাছগুলো। জ্বলে গিয়েছিল পাতা। শিলিগুড়ি থেকে নিয়ে আসা হয় মাটি।

মাটি মিললেও, আবহাওয়া মিলবে না। নিশ্চিত ছিলেন বিশেষজ্ঞরা। তখনই খোঁজ পড়ে ক্যামেলিয়া সিনেনসিসের। এক বিশেষ প্রজাতির চা গাছ। সুদূর অতীতে চীনে যার জন্ম। বর্তমানে ভারতে আসামে এই চা-এর উৎপাদন হয়। যারা চায়ের কাপে অ্যারোমা বা ফ্লেভার্ড খোঁজেন তারা যদিও একটু আশাহত হবেন। কারণ ক্যামেলিয়া সিনেনসিসের কেরামতি তার কালারে।

Loading...

চীন থেকে যেমন ভারতে এসেছিল। তেমনই, ক্যামেলিয়া সিনেনসিস ছড়িয়ে পড়েছিল বিশ্বের অন্যান্য দেশেও। পূর্ব আফ্রিকায় রীতিমত ক্যাস-ক্রপ হিসেবে এর চাষ হয়। উত্তরপূর্ব তানজানিয়ার উসমবারা পর্বতমালা আমানি নেচার ফরেস্টেও এখন চাষ হচ্ছে ক্যামেলিয়া সিনেনসিস প্রজাতির চা।

কুঁড়ি-আর দুটি পাতার গল্পে রোম্যান্টিকতা থাকলেও, চা প্রসেসিং ইউনিটই আসল জায়গা। সেখানেই তৈরি হয় আসল চা-পাতা। যা আপনার ক্লান্তি দূর করতে পারে। তবে এখনই বানিজ্যিক চা উৎপাদনে জোর দিচ্ছে না ইকো পার্ক কর্তৃপক্ষ। অনেক পথ চলা বাকি। তবে শহুরে চা-বাগানে চায়ে পে চর্চা তাহলে শুরু করতেই পারেন ক্যামেলিয়া সিনেনসিনের সঙ্গে।

First published: 10:05:53 PM Aug 23, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर