আহত মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে তথাগত-শমীক! তবুও দেখা হলো না মমতার সঙ্গে

আহত মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে তথাগত-শমীক! তবুও দেখা হলো না মমতার সঙ্গে

আহত মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে হাসপাতালে তথাগত-শমীক

গতকাল নন্দীগ্রামে পায়ে চোট পেয়ে এসএসকেএম-এ চিকিৎসাধীন রয়েছেন তৃণমূল। জখম নেত্রীকে দেখতে আসেন বিজেপি নেতারা। তথাগত ও শমীক দুজনেই জানান মানবতার খাতিরে তাঁরা মমতাকে দেখতে এসেছেন।

  • Share this:

    #কলকাতা: হাসপাতালে আহত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়তে দেখতে এলেন বিজেপি নেতা তথাগত রায় ও শমীক ভট্টাচার্য। গতকাল নন্দীগ্রামে পায়ে চোট পেয়ে এসএসকেএম-এ চিকিৎসাধীন রয়েছেন তৃণমূল। জখম নেত্রীকে দেখতে আসেন বিজেপি নেতারা। তথাগত ও শমীক দুজনেই জানান মানবতার খাতিরে তাঁরা মমতাকে দেখতে এসেছেন।

    তবে হাসপাতালে এলেও মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে পারেননি তাঁরা। চিকিৎসকদের নির্দেশ অনুযায়ী এই মুহূর্তে মমতার সঙ্গে কেউ দেখা করতে পারবেন না। তথাগত বলেন, "আমরা দেখতে এসেছি শুধুমাত্র মানবতার খাতিরে। তাড়াতাড়ি ভালো হয়ে উঠুক এটাই চাই। একটা সৌজন্যমূলক সাক্ষাতের জন্য এসেছিলাম আমরা।"

    তিনি আরও বলছেন, "দেখা করতে পারিনি। তবে দেখতে পেলে ভালো হতো। আমরা সকলেই রাজনৈতি কর্মী। তাই সেই জায়গা থেকেই দেখা করতে এসেছিলাম।" গতকাল মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে আসেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ও। সেই সময়ে হাসপাতাল চত্বরে উপস্থিত তৃণমূল সমর্থকরা গো-ব্যাক স্লোগান তোলেন। তথাগত রায় এই বিষয়টি সম্পর্কে বলেছেন, "ঘটনাটি মোটেই ভালো রুচির পরিচয় নয়"। জানা যাচ্ছে, আজ বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্য়ায়ও মুখ্যমন্ত্রীকে দেখতে যেতে পারেন।

    প্রসঙ্গত, চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন এখনও আতঙ্কে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আগামী ৪৮ ঘণ্টা তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। এছাড়াও তৃণমূল নেত্রীর বাঁ পায়ের গোড়ালির হাড়ে ও পেশীতে বেশ কয়েকটি চোট রয়েছে। পায়ের তলার অংশেও রয়েছে আঘাত। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন পায়ের লিগামেন্ট ও টিস্যুও আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে কালকের ঘটনায়। তবে শুধু পায়ে নয়। ডানদিকের কাঁধে এবং ডান হাতের কবজিতে চোট লেগেছে। বুকে ব্যাথা এবং শ্বাসকষ্টও রয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন তাঁর শারীরিক অবস্থা বোঝার জন্য আরও কিছু পরীক্ষা করা হবে।

    সাধারণত এই ধরনের চোট লাগলে দেড় থেকে দুই মাস সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা। কিন্তু এক্ষেত্রে কী পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা তাই দেখার। কারণ শুরু হয়ে গিয়েছে নির্বাচনের প্রচার। আগামী দুমাস রাজনীতির ময়দানে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই মুহুর্তে মমতা প্রচারে বেরোতে না পারলে যে দলের ক্ষতি হবে তা বলাই বাহুল্য।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: