• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • SWAPAN DASGUPTA CLASH WITH TATHAGATA ROY IT IS WRONG TO VIEW EVERYONE WHO JOINED BJP IN BENGAL AFTER MAY 2019 AS TROJAN HORSES SB

Swapan Dasgupta Clash With Tathagata Roy: তথাগতর 'ট্রয়ের ঘোড়া'র সমালোচনায় স্বপন, বঙ্গ বিজেপিতে ক্রমেই বাড়ছে মতবিরোধ

মতবিরোধ বাড়ছে

Swapan Dasgupta Clash With Tathagata Roy: ট্যুইটারে স্বপন লিখেছেন, ভোটের সময় মন থেকে দলের জন্য যাঁরা খেটেছেন, তাঁদের প্রত্যেককেই ‘ট্রয়ের ঘোড়া’ বলে দাগিয়ে দেওয়া অন্যায়। দলে প্রবীণ ও নবাগতদের ভারসাম্যে জোর দিয়েছেন স্বপন।

  • Share this:

    #কলকাতা: বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, এ রাজ্যের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়দের কট্টর বিরোধী তিনি। এমনকী তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া নেতাদের বিরুদ্ধেও বারবার মুখ খুলেছেন। ভোটে হেরে এবং মুকুল রায় তৃণমূলে যাওয়ার পর তার মাত্রা বাড়িয়েছেন অনেকটাই। শুধু তাই নয়, প্রকাশ্যেই বারবার তাঁদের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছেন তথাগত রায় (Tathagata Roy)। ভোটের আগে তৃণমূল থেকে বিজেপি-তে আসা নেতাদের ‘ট্রয়ের ঘোড়া’ বলে কটাক্ষ করেছিলেন তথাগত। কিন্তু এমনিতেই দলবদলে আশঙ্কায় বিপর্যস্ত বিজেপির আরেক নেতা স্বপন দাশগুপ্ত তথাগতর সেই মন্তব্যের বিরোধিতা করলেই প্রকাশ্যেই। ট্যুইটারে স্বপন লিখেছেন, ভোটের সময় মন থেকে দলের জন্য যাঁরা খেটেছেন, তাঁদের প্রত্যেককেই ‘ট্রয়ের ঘোড়া’ বলে দাগিয়ে দেওয়া অন্যায়। দলে প্রবীণ ও নবাগতদের ভারসাম্যে জোর দিয়েছেন স্বপন।

    ট্যুইটে তথাগতর নাম উল্লেখ না করেই স্বপন লিখেছেন, 'বাংলায় ২০১৯-এর মে মাসের পর যাঁরা BJP-তে এসেছিলেন, তাঁদের সকলকে ট্রয়ের ঘোড়া বলে দেগে দেওয়াটা অন্যায়। নবাগতদের মধ্যে অনেকেই আছেন, যাঁরা আন্তরিকভাবে দলের কাজ করেছেন। এখন তাঁদের সকলকেই দলের মধ্যে অবাঞ্ছিত মনে করানো ঠিক নয়। রাজনীতিতে বাদ দিতে নেই। বরং খারাপ সময়েই সকলের পাশে থাকতে হয়, সেখান থেকেই নতুন নেতা তৈরি করতে হয়।' বস্তত ভোটের সময় থেকেই বিজেপির রাজ্য নেতাদের উপর বেজায় ক্ষুব্ধ ছিলেন তথাগত। পায়েল, শ্রাবন্তীদের মতো মুখকে প্রার্থী করা নিয়ে চরম সমালোচনা করেছিলেন তিনি।আর মুকুল রায় বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যেতেই ফের সুর চড়িয়েছেন তথাগত। মুকুল তৃণমূলে ফিরতেই তথাগত দাবি করেন, ভোটের আগে বিজেপিতে এসে দলের খুঁটিনাটি জেনে যে যার মতো ‘ঘরে’ ফিরে গিয়েছেন। তাঁদের এই কাজে আসলে বিজেপিরই ক্ষতি হয়েছে। যদিও স্বপন তা মনেই করছেন না। বিধানসভা ভোটে তারকেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী স্বপন বলেন, ‘যাঁরা একটি দলকে ব্যক্তিগত স্বার্থসিদ্ধির মাধ্যম হিসেবে দেখেন, তাঁদের জন্য দরজা সর্বদা খোলাই রয়েছে। তাঁরা অন্য রাস্তা দেখতেই পারেন। কিন্তু যাঁরা পরিশ্রম করেছেন সৎভাবে, তাঁদের সকলকে ট্রয়ের ঘোড়া বলা যায় না।’

    তথাগত অবশ্য বারবার এই মেজাজেই অবতীর্ণ হয়েছেন। রাজ্যপাল পদে মেয়াদ ফুরোনোর পর থেকে ফের মূল স্রোতের রাজনীতিতে ফিরতে চেয়েছেন তিনি। কিন্তু বিজেপির রাজ্য বা কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব, কোন তরফ থেকেই সদর্থক সাড়া আসেনি। এমনকী সূত্রের খবর, বিধানসভা ভোটে কলকাতার একটি কেন্দ্র থেকে প্রার্থীও হতে চেয়েছিলেন তথাগত। কিন্তু তা পত্রপাঠ খারিজ করে দেয় বিজেপি নেতৃত্ব। তারপর থেকেই দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ মেননদের তীব্র বিরোধী তিনি। কিন্তু এবার নাম উল্লেখ না করে তাঁর মন্তব্যেরই সমালোচনা করলেন দলেরই অপর নেতা।

    Published by:Suman Biswas
    First published: