কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

জল্পনার অবসান! সোমবার বিধানসভার অধ্যক্ষকে ফের পদত্যাগপত্র জমা দেবেন 'বিজেপি নেতা' শুভেন্দু অধিকারী

জল্পনার অবসান! সোমবার বিধানসভার অধ্যক্ষকে ফের পদত্যাগপত্র জমা দেবেন 'বিজেপি নেতা' শুভেন্দু অধিকারী

সোমবার দুপুর ১টা নাগাদ শুভেন্দু অধিকারী ফের বিধানসভায় গিয়ে স্পিকারের কাছে তার পদত্যাগপত্র নিয়ে যাবতীয় জল্পনার অবসান ঘটাবেন।

  • Share this:

#কলকাতা: নন্দীগ্রামের বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন। অমিত শাহের হাত ধরেই যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে। কিন্তু বিধায়ক হিসাবে সেই পদত্যাগপত্র গৃহিত হওয়া নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েই গিয়েছে। সে ক্ষেত্রে প্রয়োজনে আবার স্পিকারকে ইস্তফা দিতে আসবেন শুভেন্দু অধিকারী।

সোমবার দুপুর ১টা নাগাদ শুভেন্দু অধিকারী ফের বিধানসভায় গিয়ে স্পিকারের কাছে তার পদত্যাগপত্র নিয়ে যাবতীয় জল্পনার অবসান ঘটাবেন। তিনি নিজে জানিয়েছেন, সোমবার বিধানসভার অধ্যক্ষ যেহেতু তাকে ডেকে পাঠিয়েছেন, তাই তিনি সেখানে যাবেন এবং বহুচর্চিত পদত্যাগপত্র আবার জমা দেবেন।

গত সপ্তাহের বুধবার দুপুর  ৩টে ৪৯ নাগাদ নাগাদ বিধানসভা পৌঁছন শুভেন্দু। বিধানসভা সচিব অভিজিৎ সোমের সামনেই কালো কালিতে লেখা পদত্যাগপত্র জমা দেন। জানা যাচ্ছে, একই সঙ্গে তিনি ই-মেলের মাধ্যমেও বিধানসভার অধ্যক্ষের কাছে তাঁর পদত্যাগপত্রটি পাঠিয়েছিলেন। শুভেন্দু অধিকারী আসার আগেই বুধবার বেরিয়ে গিয়েছিলেন স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। পরে বিধানসভার অধ্যক্ষ জানান, ‘শুভেন্দুর ইস্তফাপত্র গৃহীত হচ্ছে না। কারণ, ‘ইস্তফাপত্র গ্রহণের এক্তিয়ার নেই সচিবের।’ সেক্ষেত্রে তাঁর ইস্তফাপত্রটি গ্রহণ হওয়া আটকাচ্ছে রীতিতেই বা বৈধতার প্রশ্নে। তিনি আরও বলেন, লেজিসলেটিভ অ্যাসম্বলির নিয়ম মেনেই পদত্যাগ করতে হবে। বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘গিয়ে দেখে তবে নির্দেশ দেব।’ শুভেন্দুর ঘনিষ্ঠমহল অবশ্য বলছে, এই পদত্যাগের প্রক্রিয়ার জটিলতা নিয়ে শুভেন্দু অধিকারীর মাথা ব্যথা নেই। প্রয়োজনে তিনি আবার বিধানসভা গিয়ে পদত্যাগপত্র জমা করবেন।

এ দিকে শনিবারই অমিত শাহের উপস্থিতিতেই বিজেপিতে যোগদান করেন শুভেন্দু অধিকারী। তবে শুভেন্দু অধিকারীকে যেটা সবচেয়ে বেশি অবাক করেছে, তা বিধায়ক পদের ইস্তফাপত্র খারিজ। এ প্রসঙ্গে শুভেন্দু জানান, 'সারাদেশে পদত্যাগী বিধায়কের বিধায়ক পদ খারিজ করতে ঝাঁপিয়ে পড়ে শাসকদল। আর এখানে বিদ্রোহী বিধায়কের বিধায়ক পদ বাঁচাতে মরিয়া রাজ্যের শাসক দল। এ যেন উলটপুরাণ। গোটা বিষয়টি আমি উপেক্ষা করছি। নৈতিকভাবে আমিই ঠিক। অধ্যক্ষ বড়জোর আমার সই যাচাই করার জন্য ডাকতে পারেন আমাকে। সে ক্ষেত্রে আমি যাব।"

ABIR GHOSHAL

Published by: Shubhagata Dey
First published: December 20, 2020, 9:32 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर