মন্ত্রীত্ব থেকে পদত্যাগ করলেও এখনই বিধায়ক পদ ছাড়ছেন না শুভেন্দু,

File Photo

মন্ত্রীত্ব ছাড়লেও এখনই ছাড়ছেন না বিধায়ক পদ, এর রাজনৈতিক তাৎপর্য যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ৷ কেন ছাড়লেন মন্ত্রীত্ব তাও ঘনিষ্ঠমহলে জানিয়েছেন শুভেন্দু.....

  • Share this:

    #কলকাতা: শুভেন্দু অধিকারীর দলবদলের জল্পনা তুঙ্গে ৷ মন্ত্রীত্ব থেকে ইস্তফা দিলেন শুভেন্দু অধিকারী ৷ তৃণমূল সরকারের মন্ত্রিসভায় রাজ্য পরিবহণ, সেচ এবং জলসম্পদ দফতরের মন্ত্রী ছিলেন শুভেন্দু ৷ সেই সমস্ত পদ থেকে এদিন ইস্তফা দিলেন নন্দীগ্রাম আন্দোলনের নেতা ৷ তবে মন্ত্রীত্ব ছাড়লেও বিধায়ক পদ এখনি ছাড়ছেন না তিনি ৷

    শুক্রবার সকালে জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তাবের পর বেলা বাড়তেই মন্ত্রীত্ব থেকে ইস্তফার চিঠি পৌঁছে যায় কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে ৷ পাশাপাশি সেই একই চিঠি পদত্যাগ পত্র ই-মেলের মাধ্যমে রাজ্যপালের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছেন শুভেন্দু ৷ তবে তিনি মন্ত্রীত্ব থেকে পদত্যাগ করলেও বিধায়ক পদে রয়ে যাওয়ার রাজনৈতিক গুরুত্ব অবশ্যই রয়েছে ৷ অর্থাৎ মন্ত্রী না হলেও এখনও তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী ৷ ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর, নিজের রাজনৈতিক ভবিষ্যত নিয়ে অন্য কোনও সিদ্ধান্ত নিলে বিধায়ক পদ ছাড়বেন বলে জানিয়েছেন শুভেন্দু ৷ অর্থাৎ এখনই দলত্যাগ করছেন তিনি বলেই মনে করা হচ্ছে ৷

    মন্ত্রীত্ব ছাড়ার কারণ হিসেবে শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠরা জানাচ্ছেন, দলে মন্ত্রী থেকেও একের পর এক অরাজনৈতিক সভার আয়োজনে বিতর্ক তৈরি হয় ৷ সেই কারণেই মন্ত্রীত্ব থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন শুভেন্দু ৷

    দলের সঙ্গে দূরত্ব বেশ কয়েক মাস ধরেই তৈরি হয়েছে ৷ তৃণমূলের তরফে সাংসদ সৌগত রায় দু’বার তার সঙ্গে বৈঠকে বসলেও কোনও রফাসূত্র বেরোয়নি ৷ সংগঠন নিয়ে ক্ষোভ বারবার উগরে দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী ৷ সংগছন নিয়ে তাঁর কিছু দাবি ছিল , তা নিয়ে কোনও সমাধান না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হন তিনি ৷ শুধু মন্ত্রীত্ব নন, দলের একাধিক পদে রয়েছেন শুভেন্দু ৷ তা ছাড়ার প্রক্রিয়াও শুরু করেছেন তিনি ৷

    বৃহস্পতিবারই হুগলি রিভার ব্রিজ কমিশন-এর চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করেন তিনি । সঙ্গে সঙ্গেই দলের তরফে এই দায়িত্ব দেওয়া হয় তৃণমূলের সাংসদ কল্যাণ বন্দোপাধ্যায়। গত কয়েকদিনে বারবার শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করেছেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর, পদত্যাগের সঙ্গে সঙ্গেই দায়িত্ব কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে যাওয়ায় আরও ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন তিনি ৷ সেই ক্ষোভেরই বহিঃপ্রকাশ এদিনের মন্ত্রীত্ব ত্যাগ ও সরকারি সুরক্ষা ত্যাগ ৷ একে একে সব পদ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি ৷ তবে এখনই দল ছাড়ছেন না বলেই খবর ৷ সেকারণেই বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেননি শুভেন্দু বলে মনে করা হচ্ছে ৷

    Published by:Elina Datta
    First published: