জুট কর্পোরেশনের অস্থায়ী চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিলেন শুভেন্দু অধিকারী 

জুট কর্পোরেশনের অস্থায়ী চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিলেন শুভেন্দু অধিকারী 

পদের মেয়াদ ছিল ৩ বছর। যদিও দায়িত্ব ভার গ্রহণের দু'মাসের মধ্যেই এই পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক। কিন্তু কেন দিলেন ইস্তফা?

পদের মেয়াদ ছিল ৩ বছর। যদিও দায়িত্ব ভার গ্রহণের দু'মাসের মধ্যেই এই পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক। কিন্তু কেন দিলেন ইস্তফা?

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

#কলকাতা: দেখা হবে লড়াইয়ের ময়দানে, এই বার্তা আগেই দিয়েছিলেন তিনি। লড়াইয়ের ময়দান বলতে যে নির্বাচনে লড়া সেটা পরিষ্কার। তাই  কেন্দ্রীয় সরকারি পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। অমিত শাহের সভায় বিজেপি'তে যোগ দানের পরেই কেন্দ্রীয় সরকারের জুট কর্পোরেশনের আংশিক সময়ের বা অস্থায়ী চেয়ারম্যান হিসাবে নিয়োগ করা হয় শুভেন্দু অধিকারীকে৷ কেন্দ্রীয় বস্ত্র মন্ত্রকের অধীনস্থ এই পদ একটি ক্যাবিনেট মন্ত্রীর। আপাতত সেই পদ থেকেই ইস্তফা দিয়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। পদের মেয়াদ ছিল ৩ বছর। যদিও দায়িত্ব ভার গ্রহণের দু'মাসের মধ্যেই এই পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে দিলেন নন্দীগ্রামের প্রাক্তন বিধায়ক। কিন্তু কেন দিলেন ইস্তফা?

শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ট মহলে জানিয়েছেন, এই পদটি লাভজনক বা হাউজ অফ প্রফিটের পদ। যার ফলে এই পদে থেকে ভোটে লড়াই করা যাবে না। অনেকে অবশ্য বলছেন, অস্থায়ী চেয়ারম্যান ছিলেন তাই লাভজনক হিসাবে এই পদকে গ্রহণ না করলেও চলবে। তবে ব্যক্তি শুভেন্দু অধিকারী যে হেতু নীতি-আদর্শ মেনে চলেন তাই পদত্যাগ করলেন জুট কর্পোরেশনের অস্থায়ী চেয়ারম্যান হিসাবে। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় বস্ত্র মন্ত্রকের কাছে তাঁর পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। সেখানে তিনি উল্লেখ করেছেন, ‘মন্ত্রকের দেওয়া অস্থায়ী চেয়ারম্যানের পদ থেকে আমি ইস্তফা দিচ্ছি। দয়া করে আমার এই ইস্তফাপত্র গ্রহণ করবেন।’

বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গী জানিয়েছেন, ভোটের কাজে ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে শুভেন্দুকে। অন্য অনেক কাজের দায়িত্ব তাঁর আছে। তাই আপাতত এই পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন তিনি। যে কোনও ব্যক্তিকে ভোটে লড়তে গেলে সরকারি পদ ছেড়ে দিতে হয়। সেই হিসেবে শুভেন্দু অধিকারী ছেড়েছেন। রাজনৈতিক মহলের মতে তার মানে শুভেন্দু অধিকারী ভোটে লড়াই করছেন এটা পরিষ্কার হয়ে গেল।

শুভেন্দু অধিকারী ২০১৬ বিধানসভা ভোটে নন্দীগ্রাম থেকে লড়াই করে জিতেছিলেন। টিএমসি'র টিকিটে জিতে তিনি মন্ত্রী পর্যন্ত হয়েছিলেন। এ বার নন্দীগ্রাম আসনে লড়াই করবেন বলে আগেই জানিয়েছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। নন্দীগ্রামের মাটিতে দাঁড়িয়ে তিনি এই কথা ঘোষণা করেছিলেন। একই দিনে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পাড়ায় দাঁড়িয়ে শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছিলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়’কে তিনি হাফ লাখ ভোটে হারাবেন। যদিও নন্দীগ্রাম আসন থেকেই তিনি ভোটে টিকিট পাচ্ছেন তা এখনও ঘোষণা করেনি বিজেপি। তবে ১ এপ্রিল দ্বিতীয় দফার ভোটে তিনি লড়াই করবেন এমনটা ধরে নিয়েই শুভেন্দুর পদত্যাগ জুট কর্পোরেশন থেকে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Published by:Simli Raha
First published:

লেটেস্ট খবর