হোম /খবর /কলকাতা /
বিজেপির ডিসেম্বর হুঁশিয়ারিতে চড়ছে রাজনীতির পারদ! শুভেন্দুর তিন-তারিখেই 'রহস্য'

বিজেপির ডিসেম্বর হুঁশিয়ারিতে চড়ছে রাজনীতির পারদ! শুভেন্দুর তিন-তারিখেই রহস্যের আঁচ!

পারদ চড়ছে ডিসেম্বর হুঁশিয়ারির

পারদ চড়ছে ডিসেম্বর হুঁশিয়ারির

বিজেপির ডিসেম্বর রহস্যে রীতিমত সরগরম রাজ্য রাজনীতি। নভেম্বরেই বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী ঘোষণা করেছিলেন, ডিসেম্বরে বড়সড় কিছু ঘটতে চলেছে। শুভেন্দুর সুরেই সুকান্তও হুঁশিয়ারী দেন, ডিসেম্বরের ঠান্ডায় এই সরকার ঠকঠক করে কাঁপবে।

  • Share this:

#কলকাতা: এবার একেবারে দিনক্ষণ বলে দিলেন শুভেন্দু। ডিসেম্বরে রাজ্যে বড়সড় অঘটন ঘটা নিয়ে রাজ্য রাজনীতি তোলপাড়। এরইমধ্যে জল্পনায় ঘি ঢেলে একেবারে দিন ঘোষণা করে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। নিজেরই দেওয়া 'ডিসেম্বর হুঁশিয়ারী' প্রসঙ্গে নিজাম প্যালেসে শুভেন্দু বলেন, "১২, ১৪ আর ২১ ডিসেম্বর, এই তিনটে দিন খুব গুরুত্বপূর্ন। ওয়েট এন্ড ওয়াচ।"

বিজেপির ডিসেম্বর রহস্যে  রীতিমত সরগরম রাজ্য রাজনীতি। নভেম্বরেই বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী ঘোষণা করেছিলেন, ডিসেম্বরে বড়সড় কিছু ঘটতে চলেছে। যার ধাক্কায় সরকার টলমল হয়ে যাবে। শুভেন্দুর সুরেই সুকান্তও হুঁশিয়ারী দেন, ডিসেম্বরের ঠান্ডায় এই সরকার ঠকঠক করে কাঁপবে।

শুভেন্দু, সুকান্তর এই জোড়া হুঁশিয়ারীর জেরেই রাজ্য সরকারের স্থায়িত্ব নিয়ে জল্পনা মাথাচাড়া দেয় রাজনৈতিক মহলে। যদিও, রাজ্যের নির্বাচিত সরকার ফেলে দেওয়ার জল্পনাকে খারিজ করে দিয়েছিলেন শুভেন্দু, সুকান্তরা। কিন্তু, একই সঙ্গে শুভেন্দু বলেছিলেন, 'ডিসেম্বরে বড় ডাকাত ধরা পড়বে।'

আরও পড়ুন: মুকুলের পাশে দলীয় পতাকা হাতে ছবি... রতুয়ার ইয়াসিনে তবু 'না' তৃণমূলে! কে এই 'ইয়াসিন শেখ'?

শুভেন্দুর কথার সূত্রে মনে হয়েছিল চোর, ডাকাত ধরা পড়ার মত ঘোষণা যখন, তাহলে কি রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে চলতি দূ্র্নীতির তদন্তে কোনও বড়সড় 'ব্রেক থ্রু' হতে চলেছে ডিসেম্বরে? যদিও, এই প্রশ্নে ধোঁয়াশা তৈরি করে রেখেছে বিজেপিই। সঙ্গে বিভ্রান্তিও। কারণ, প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি ও সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ এই ইস্যুতেই বলেন,"ডিসেম্বরে কি হয়? গুড় হয়, নলেন গুড় হয়। আমায় জিজ্ঞেস করলে আমি একথাই বলব।"

যদিও, রাজনৈতিক মহলের মতে, দিলীপ ঘোষ যাই বলুন না কেন, সেটা ধর্তব্যের নয়।কিন্তু, শুভেন্দু অধিকারী বা সুকান্ত মজুমদাররা বারবার যেটা বলছেন, তাকে হেলাফেলা করার কোন কারণ নেই। শুভেন্দু, সুকান্তরা যখন ডিসেম্বর, ডিসেম্বর করে ধারাবাহিকভাবে বলে চলেছেন, তাতে একটা জিনিষ স্পষ্ট যে নিদৃষ্ট ভাবে কোনও অতি নির্ভরযোগ্য এবং  গুরুত্বপূর্ণ কোন তথ্যসূত্রের ভিত্তিতেই তারা এই দাবি করছেন। কারণ, শুভেন্দু অধিকারী ও সুকান্ত মজুমদাররা বিলক্ষণ জানেন, এই হুঁশিয়ারী বিফলে গেলে রাজনৈতিকভাবে চরম মাশুল গুনতে হবে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বকে।  পর্যবেক্ষকদের একাংশর মনে হতে পারে, যে রাজনৈতিক মহল বা সংবাদ মাধ্যম আদৌ শুভেন্দু, সুকান্তর প্রকৃত ইঙ্গিত ধরতেই পারেননি। তবে, যাইহোক, ইঙ্গিতটা যে ডিসেম্বরে রাজ্য রাজনীতিতে কোন বড় কিছু ঘটার মত ঘটনা, তা নিয়ে কোনও সংশয় নেই।

আরও পড়ুন: তিনদিনে ২ বার গ্রেফতার? সাকেতের আবেদন নিয়ে সোচ্চার তৃণমূল! গুজরাতে প্রতিনিধি দল

এখন ডিসেম্বরে শুভেন্দুর ঘোষিত এই তিনটি গুরুত্বপূর্ণ দিনে শুভেন্দুর ঘোষিত কর্মসূচি কি আছে, সেটা একবার দেখে নেওয়া যাক। যতদূর জানা গেছে, ১২ ডিসেম্বর দক্ষিণ কলকাতার হাজরায়, শিক্ষা দূর্নীতি ইস্যুতে জনসভা, ১৪ই ডিসেম্বর পশ্চিম বর্ধমানে জনসংযোগ ও শীতবস্ত্র বিলি এবং ২১শে ডিসেম্বর কাঁথিতে জনসভা করার কথা শুভেন্দুর। যদিও, এই কর্মসূচির সঙ্গে 'রহস্যময়' এই ডিসেম্বর হুঁশিয়ারীর কোনও সম্পর্ক খোঁজা নিরর্থক বলেই মনে করে রাজনৈতিক মহল। তবে, তাৎপর্য যে একেবারে থাকবে না, এমনটাও আগাম বলা শক্ত।

বিজেপির একটি বিশেষ সূত্রের দাবি, ডিসেম্বরের এই  তিনটি গুরুত্বপূর্ণ তারিখের মধ্যে প্রথম দিনটিই গুরুত্বপূর্ণ। বাকি দুটি দিনের ঘোষণায় কোনও কৌশল থাকতে পারে। সেদিক থেকে ডিসেম্বরের সেই বড় ঘটনা ঘটার সম্ভবনা ১২ তারিখেই। আর, তা ঘটতে পারে দিল্লির শীর্ষ আদালতে। উল্লেখ্য সেদিনই দক্ষিণ কলকাতায় মুখ্যমন্ত্রীর নির্বাচনী কেন্দ্রের অধীন হাজরার জনসভায় থাকার কথা শুভেন্দুর।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published:

Tags: Bengal BJP, Suvendu Adhikari