ছাড়া পেলেন সুদীপ, আজ বিকেলেই কলকাতায় ফেরার সম্ভাবনা

ছাড়া পেলেন সুদীপ, আজ বিকেলেই কলকাতায় ফেরার সম্ভাবনা

জামিনের কাগজ হাতে পেতেই স্বস্তির হাসি, আজ বিকেলে কলকাতা ফিরতে পারেন সুদীপ

  • Share this:

#কলকাতা: অবশেষে জামিনে মুক্ত সুদীপ ৷ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুক্তি নিয়ে জটিলতা কাটে শনিবার রাতেই। এদিনই জেলে পৌঁছায় তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদের জামিনের নথি। নির্দেশিকায় ভুল শুধরে নিয়ে শনিবারই তাঁর রিলিজ অর্ডারে সিলমোহর দেয় সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত।

১৩৬ দিন পর, ওড়িশা হাইকোর্টের নির্দেশে শুক্রবার জামিন পেয়েছেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, জটিলতা মুক্তি নিয়ে। কেন? শুক্রবার রাত পর্যন্ত হাইকোর্টের নির্দেশ সুদীপের আইনজীবীদের হাতে আসেনি। পরে তা এলেও দেখা যায় তাতে ভুল রয়েছে। কী সেই ভুল? নির্দেশিকায় লেখা,

বিচারপতির নির্দেশ

আবেদনকারীকে ২৫ লক্ষ টাকা জামানত হিসেবে রাখতে হবে। এছাড়া ৫ লক্ষ টাকার বন্ডও জমা রাখতে হবে। এই দুই শর্ত পূরণ হলে আবেদনকারীকে জামিন নির্দেশিকায় সিলমোহর দেবে স্পেশাল সিজেএম (সিবিআই)।

স্পেশাল সিজেএম সিবিআইয়ের কথা নির্দেশে লেখা হলেও, এমন কোনও আদালতই নেই। আসলে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জামিনে সিলমোহর দেবে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালত। শনিবার, তড়িঘড়ি এই ভুল শুধরে নেন ওই তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদের আইনজীবীরা। এরপর, জামিনের নথি পৌঁছে দেওয়া হয় জেল কর্তৃপক্ষের কাছে।

প্রায় পাঁচ মাস সিবিআইয়ের হেফাজতে। শুক্রবার ওড়িশা হাইকোর্টের নির্দেশে খারিজ হয়ে গিয়েছে প্রভাবশালী তত্ত্ব।

বিচারপতির মন্তব্য

মামলার সওয়াল জবাব থেকে বোঝা গিয়েছে যে, একজন রাজনৈতিক নেতা ও স্থানীয় সাংসদ হিসেবে রোজভ্যালির অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর এই আচরণ স্বাভাবিক। এর মধ্যে কোনও অপরাধমনস্কতা নেই। সংস্থার সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল তাঁর। রোজভ্যালির সঙ্গে আর্থিক লেনেদেনে যুক্ত ছিলেন না সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। সিবিআই এখনও এমন কোনও তথ্য দিতে পারেনি। তবে, রোজভ্যালি থেকে আর্থিক সুবিধা নিয়েছেন সুদীপ। আবেদনকারী ৩ জানুয়ারি, ২০১৭ থেকে হেফাজতে রয়েছেন। তাঁর অসুস্থতা ও হাসপাতালে ভরতি হওয়া নিয়ে কোনও প্রশ্নই ওঠে না।

আপাতত, ভুবনেশ্বরে অ্যাপোলো হাসপাতালে ভরতি সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। বিচারের গণ্ডি পেরিয়ে এখন আইনি জটেই আটকে সুদীপের মুক্তি। দ্রুত কার্যকর হবে মুক্তি? উঠছে সেই প্রশ্ন। সুদীপের জামিনের খবরে খুশি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু, তাঁর ভগ্নস্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দলনেত্রী। কেমন আছেন সুদীপ? এমন পরিস্থিতিতে দ্রুত কি তাঁকে কলকাতায় আনা যাবে? উদ্বেগে পরিবার।

First published: 08:38:56 AM May 21, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर