কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

আজ শুভেন্দুর অগ্নিপরীক্ষা, আগের রাতে হঠাৎই ছুটলেন মুকুল-দ্বারে, কেন চাণক্য দর্শন?

আজ শুভেন্দুর অগ্নিপরীক্ষা, আগের রাতে হঠাৎই ছুটলেন মুকুল-দ্বারে, কেন চাণক্য দর্শন?
মুকুল রায়ের বাড়ির সামনে শুভেন্দু অধিকারী।

আজ দুপুর দুটোয় কাঁথিতে মিছিল শুরু করবেন শুভেন্দু। তারপর বাসস্ট্যান্ডের কাছে সভা। এই মিছিলে বা সভায় দেখা যাবে না মুকুল রায়কে।

  • Share this:

#কলকাতা: বিজেপিতে যোগদানের পর আজ ঘরের মাঠে মহামিছিল। শক্তিপ্রদর্শন করে এসেছে তৃণমূল, ফলে মাথায় রয়েছে টেক্কা দেওয়ার চ্যালেঞ্জ। তার আগে, বুধবার রাতে শুভেন্দু অধিকারী ছুটলেন মুকুল রায়ের সঙ্গে দেখা করতে। দুজনেই বলছেন, সৌজন্য সাক্ষাৎ, তবে সময়টাই যে অন্যরকম, ফলে এই হঠাৎ-বৈঠক নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা।

আজ দুপুর দুটোয় কাঁথিতে মিছিল শুরু করবেন শুভেন্দু। তারপর বাসস্ট্যান্ডের কাছে সভা। এই মিছিলে বা সভায় দেখা যাবে না মুকুল রায়কে। সূত্রের খবর, এই মিছিল ও সভা নিয়ে কিছুটা উদ্বিগ্ন শুভেন্দু। বিজেপিতে তিনি নতুন। দলে তিনি যোগদান করার পর নানারকম জলঘোলা হচ্ছে। সামনে আসছে আদি বিজেপি নব্য বিজেপি সংঘাত। এই আবহে শুভেন্দুর অস্ত্র একটাই-কাজ। শুভেন্দু বিলক্ষণ জানেন, রাস্তায় নেমে টেক্কা দিতে হবে আজ। না হলে ভুল বার্তা যাবে। গতকাল, বুধবার সৌগত রায়, ববি হাকিমরা যেভাবে আক্রমন করেছেন তাঁকে, তাতেও খানিকটা তেতেও রযছেন শুভেন্দু। শোনা যাচ্ছে, আজ মুকুলের সঙ্গে কথা বার্তার সময় শুভেন্দু বলেন, "কাল এর জবাব দেব। আর ২০-২৫ হাজার মানুষের মিছিল করে দেখিয়ে দেব শুভেন্দুর শক্তি।" সম্ভবত সেই কারণেই চাণক্য-দর্শন।

জীবনযাপনে শৃঙ্খলাকেই পাথেয় করেছেন শুভেন্দু। আজকাল সাদা পোষাক ছা়ড়া পরেন না। খাবারও খান মেপে। এদিন মুকুল রায়ের সঙ্গে দেখা করতে এসে খেলেন শুধু চা। ফলের ডিস দেখে বলে দিলেন, সন্ধ্যার পর ফল খাই না। মুকুল রায়কেও খেতে বারণ করে দিলেন শুভেন্দু। কিছুক্ষণ নিভৃতে চলল আলাপচারিতা। মুকুল রায়ের বক্তব্য, আমরা দীর্ঘদিনের সাথী। কিন্তু রাজনৈতিক কারণেই দীর্ঘদিন দেখা হয়নি। এখন সেই দেখাসাক্ষাতের পথটা খুলল।

শোনা যাচ্ছে মুকুল রায়ই শুভেন্দুকে ডাকেন এই বৈঠকে। রাজনৈতিক মহলে জল্পনা, মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে নতুন মুখের প্রবেশ অনেকেই ভালো ভাবে নেয়নি। অনেকে এখান থেকে নতুন গোষ্ঠী তৈরির সম্ভাবনাও দেখছেন।  শুভেন্দু আসতেই যখন বিজেপিতে ঝুঁকলেন জীতেন তিওয়ারি তখনই মুখ খুলে বিপদে পড়েছেন অনেকেই । এই আদি বিজেপি-নব্য বিজেপি  সংঘাতের বীজটাকে উপড়ে ফেলতে চাইছেন মুকুল রায়। সেই কারণেই শুভেন্দুর সভায় তাঁকে না দেখা গেলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। অন্য দিকে শুভেন্দুও বার্তা দিচ্ছেন, তিনি হঠাৎ করে কিছু পেতে চাইছেন না। বিধানসভায় টিকিটও চাই না, কর্মী হিসেবেই দলের কাজ করার বাসনা তাঁর। ফলে এই মুহূর্তে আগামী দিনগুলির বডি ল্যাঙ্গোয়েজ থেকে কর্মসূচির গেমপ্ল্যান করে নেওয়া জরুরি। বুধবার রাতে সেই কাজটাই হয়তো সারলেন শুভেন্দু-মুকুল।

Published by: Arka Deb
First published: December 24, 2020, 3:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर