• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • SUB URBAN TRAIN OPERATIONS OVER HOWRAH DIVISION ARE EXPECTED TO START SHORTLY SS

হাওড়া ডিভিশনে শহরতলির ট্রেন চালুর প্রস্তুতি, RPF-কে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ

আজ, সোমবার হাওড়া ডিভিশনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনে গিয়ে যাত্রী পরিষেবা সংক্রান্ত পরিকাঠামো দেখার কাজ শুরু করে দিলেন আরপিএফ-এর আধিকারিকরা।

আজ, সোমবার হাওড়া ডিভিশনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনে গিয়ে যাত্রী পরিষেবা সংক্রান্ত পরিকাঠামো দেখার কাজ শুরু করে দিলেন আরপিএফ-এর আধিকারিকরা।

  • Share this:

#কলকাতা: মুম্বইয়ের পরে কি হাওড়া? শহরতলির রেল পরিষেবা চালু করতে চেয়ে সমীক্ষা রিপোর্ট তৈরি করতে শুরু করল আরপিএফ। হাওড়া ডিভিশন জুড়ে এই কাজ শুরু করতে বলা হয়েছে৷ চলতি মাসের ১০ তারিখ রেল রক্ষী বাহিনীর প্রধানদের সাথে বৈঠক করেন ডিজি আরপিএফ।

সেখানে তিনি শহর ও শহরতলির রেল পরিষেবা চালু করা হলে কী কী ধরণের ব্যবস্থা নিতে হবে তা তৈরি করার কাজ শুরু করতে বলেছেন। তার পরিপ্রেক্ষিতেই পূর্ব রেলের হাওড়া ডিভিশনের সিকিউরিটি কমিশনার সমস্ত অ্যাসিসট্যান্ট সিকিউরিটি কমিশনার ও আরপিএফ কমান্ডারদের স্টেশনে ব্যক্তিগত ভাবে গিয়ে সমীক্ষা রিপোর্ট তৈরি করতে বলেছেন। সেই অনুযায়ী আজ, সোমবার হাওড়া ডিভিশনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্টেশনে গিয়ে যাত্রী পরিষেবা সংক্রান্ত পরিকাঠামো দেখার কাজ শুরু করে দিলেন আরপিএফ-এর আধিকারিকরা।

যে যে কাজ করতে বলা হয়েছে তা হল, প্রতিটি স্টেশনের পরিকাঠামো  ও স্টেশন সন্নিহিত এলাকার পরিকাঠামো খতিয়ে দেখে নকশা তৈরি করতে বলা হয়েছে। ওই স্টেশন দিয়ে পিক আওয়ারে কত লোক যাতায়াত করে তার তথ্য জানাতে বলা হয়েছে। স্টেশনে ঢোকা ও বেরনোর কতগুলি রাস্তা আছে, কোথায় আছে সেই রাস্তা তা জানাতে বলা হয়েছে। থারমাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা কোথায় করা হবে তা জানাতে বলা হয়েছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষা কোথায় করা হবে তাও জানাতে বলা হয়েছে। এছাড়া সমীক্ষা রিপোর্ট দেখতে বলা হয়েছে একটি স্টেশনে বছরে কত টাকার আয় হয়। কত যাত্রী হচ্ছে বছরে। সেই অনুযায়ী স্টেশন গুলিকে ভাগ করতে। এই কারণেই আয় ও যাত্রীর সংখ্যা জানাতে বলা হয়েছে।

সমীক্ষায় জানাতে হবে কোন কোন স্টেশনে ট্রেন দাঁড়াবে। কেন সেই স্টেশনে ট্রেন দাঁড়ানো আবশ্যিক। এই সব বিষয় খতিয়ে দেখার কাজ আজ, সোমবার থেকেই শুরু করে দিল হাওড়া ডিভিশনের আরপিএফের আধিকারিকরা। এদিন ডিআরএম হাওড়া ইশাক খান জানিয়েছেন, " রেল বা রাজ্য কোনও জায়গা থেকেই আমরা লোকাল ট্রেন চালু করার জন্যে লিখিত আদেশ পাইনি। তবে রেল চালাতে হবে ধরে নিয়েই আমরা প্রস্তুতি সেরে ফেলেছি।"

রেল আধিকারিকদের অনেকেই বলেছেন মুম্বইয়ে লোকাল বা শহরতলির পরিষেবা নিয়ন্ত্রিত ভাবে শুরু হয়েছে। এখানেও সেটা চালু হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। এরই প্রেক্ষিতে হাওড়া ডিভিশনের ১৯৪ স্টেশনের সমীক্ষা রিপোর্ট ১০ দিনের মধ্যে সেরে ফেলতে বলা হয়েছে। বিশেষ কিছু রুটে যে মেল বা এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করছে তার জন্যে ইতিমধ্যেই নানা পরিকাঠামো প্রস্তুত করে রাখা আছে। যাত্রীদের জন্যে গাইডলাইন আগেই তৈরি করে দিয়েছে রেল ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এবার শহরতলির ট্রেন পরিষেবা চালু নিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছে পূর্ব রেলের হাওড়া ডিভিশন।

Abir Ghoshal

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: