পুকুরে ভেসে উঠল মেধাবী ছাত্রের দেহ! পরিবারের দাবি 'আত্মহত্যা নয়'

পুকুরে ভেসে উঠল মেধাবী ছাত্রের দেহ! পরিবারের দাবি 'আত্মহত্যা নয়'

Representative image

টবিন রোডের ভট্টাচার্য পাড়ায় পুকুরে ভেসে উঠল মেধাবী ছাত্রের দেহ

  • Share this:

#কলকাতা: টবিন রোডের ভট্টাচার্য পাড়ায় মেধাবী ছাত্র সৌরভ সেনগুপ্তকে সবাই চিনত রণ নামে। বছর চব্বিশের ছেলে নবমীর দিন রাতভর প্যান্ডেল হপিং-এর প্ল্যান বানান। সেইমতো, ঘুরতে যাওয়ার জন্য টাকাও নেন মায়ের থেকে। নবমীর দিন বিকেল সাড়ে পাঁচটায় বাড়ি থেকে বের হন সৌরভ। কথামতো দশমীর সকালে বাড়ি না ফেরায় চিন্তায় পড়েন পরিবারের সদস্যরা।

ইঞ্জিনিয়ারিং-এর পড়ুয়া সৌরভের মোবাইল ফোন বন্ধ দেখে চিন্তা আরও বাড়তে থাকে। সকাল খানিকটা গড়াতে সৌরভের ফোন থেকে তাঁর বাবার কাছে ফোন আসে।  ফোনের উল্টোদিক থেকে বলা হয় ভট্টাচার্য পাড়ার পুকুর পাড়ে এই মোবাইলটি পড়ে আছে। বিপদের সঙ্কেত দেয় সেনগুপ্ত পরিবারকে। বেশকিছু সময় অপেক্ষা করার পরে সৌরভের কোন খোঁজ না মেলায় বরাহনগর থানায় নিখোঁজ ডাইরি করে পরিবার। দুপুরে থানা থেকে ডুবুরি এনে পুকুরে তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। পরিবারের দাবি, পুলিশ না পাওয়ায় সেনগুপ্ত পরিবার বেশ কিছু ডুবুরির মাধ্যমে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে যায়। দুপুর দেড়টায় সৌরভের মৃতদেহ মেলে পুকুর থেকেই। বরাহনগর থানা দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

পরিবারের তরফে জানানো হয়, ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট পাওয়ার পর অভিযোগ দায়ের করার কথা ভাবা হলেও বেশ কিছু রহস্য দানা বেঁধেছে পুরো ঘটনায়। মোবাইল ফোন পুকুর পাড়ে থাকলেও সৌরভের মানি ব্যাগ ও গলার সোনার চেন উধাও।  পরিবারের দাবি, বন্ধুদের সঙ্গে সৌরভের  শোভাবাজার এলাকায় যাওয়ার কথা থাকলেও রাত ২টোর কিছু সময় আগে তাঁকে বাড়ির সামনে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরিবারের সন্দেহ, আচমকা বাড়ি থেকে ঢিল ছোঁড়া দৃরত্বে পুকুরের ধারে কেন যাবে সৌরভ? সৌরভের মামা বাচস্পতি ভট্টাচার্যের অভিযোগ,  '' আত্মহত্যা নয়! সৌরভকে জলে ধাক্কা মেরে ফেলে দেওয়া হয়েছে। সে সাঁতার জানত না।''  পুলিশ সূত্রে খবর, দেহে কোন আঘাতের চিহ্ন নেই।  পুকুরে ভেসে ওঠার পরেই উদ্ধার হয় সৌরভ সেনগুপ্তের দেহ।

Published by:Rukmini Mazumder
First published: