• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • STRICT RESTRICTIONS IN WEST BENGAL GOVERNMENT CAN STARTS SPECIAL BUS FROM 16 JUNE SB

Strict Restrictions in West Bengal: বুধবার থেকে বাস চলবে বাংলায়? পরিবহণকর্মীদের জরুরি নির্দেশ

কবে থেকে চলবে বাস?

Strict Restrictions in West Bengal: সূত্রের খবর, বুধবার থেকেই বাংলায় চলতে পারে স্পেশ্যাল বাস। তারপর ধীরেধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করা হবে।

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেসামাল হয়েছিল দেশ। বাদ যায়নি বাংলাও। তবে, প্রায় একমাস কড়া বিধিনিষেধের জেরে সংক্রমণ অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে বাংলায়। এই পরিস্থিতিতে ১৫ জুন, মঙ্গলবার শেষ হচ্ছে কড়া বিধিনিষেধের মেয়াদকাল। তারপর থেকে কি ট্রেন, বাস চলবে বাংলায়? নবান্ন সূত্রে এখনও এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি। তবে, নবান্নে সূত্রে খবর, সরকারি-বেসরকারি সমস্ত ধরনের বাস শুরুতেই চালু না হলেও স্পেশ্যাল বাস চালানো হতে পারে। সেই সূত্রেই আগামী ১৬ তারিখ প্রতিটি ডিপোয় পরিবহণকর্মীদের উপস্থিত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, বুধবার থেকেই বাংলায় চলতে পারে স্পেশ্যাল বাস। তারপর ধীরেধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করা হবে।

    তবে, সরকার বাস চালানোর অনুমতি দিলেও ভাড়া বাড়ানোর দাবি আগে থেকেই তুলতে শুরু করেছেন বাসমালিকরা। কলকাতা সহ জেলায় জেলায় পোস্টার দিয়ে ভাড়া বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছেন বাসমালিকরা। ডিজেল-সহ আনুষঙ্গিক জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রেখে বাসের ভাড়া না-বাড়ালে বিধিনিষেধের পরবর্তী পর্যায়ে ক্রমশ গণপরিবহণ চালু হলেও যাত্রী পরিষেবা দেওয়া সম্ভব নয়। তাতে যাত্রীদের দুর্ভোগ বাড়লেও কিছু করার নেই বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

    বাসমালিকদের দুটি সংগঠন অল বেঙ্গল বাস-মিনিবাস সমন্বয় সমিতি এবং সিটি সাবার্বান বাস সার্ভিসের সদস্যদের কথায়, রাজ্য সরকার যদি বেসরকারি বাসের ভাড়াবৃদ্ধি নিয়ে অবিলম্বে কোনও সদর্থক সিদ্ধান্তে না নেয়, তবে কলকাতার পথ থেকে এক-তৃতীয়াংশ বেসরকারি বাসই উঠে যাবে। চরম অর্থাভাবে ভুগতে থাকা বাসমালিকরা তখন বাধ্য হবেন শহরের উত্তর, মধ্য ও দক্ষিণ ভাগের প্রায় ৩০টি রুটে ৫০% বা তারও বেশি বাস বন্ধ করে দিতে। যদিও ভাড়াবৃদ্ধি নিয়ে সরকার এখনও কোনও কথাই তোলেনি।

    নবান্ন সূত্রে খবর, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় টানা এক মাস কড়া বিধিনিষেধ খুবই কার্যকরী হয়েছে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু একইসঙ্গে তাতে রাজ্যের অর্থনীতি ব্যাপকভাবে ধাক্কা খাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে কী করা উচিত সে ব্যাপারে খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানা গিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অতি প্রয়োজনীয় এবং প্রয়োজনীয় গতিবিধিগুলিতে ছাড় আরও অনেকটাই বাড়িয়ে দিতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই তুলনায় কম জরুরি কাজগুলিতে নিয়ন্ত্রণ আরও কিছুদিনের জন্য চালিয়ে যেতে পারে রাজ্য।

    Published by:Suman Biswas
    First published: