মৌলালিতে পুলিশকে এড়াতে গিয়ে দুর্ঘটনা, বেকবাগানের ঘটনায় এখনও অধরা অভিযুক্ত

মৌলালিতে পুলিশকে এড়াতে গিয়ে দুর্ঘটনা, বেকবাগানের ঘটনায় এখনও অধরা অভিযুক্ত
  • Share this:

#কলকাতা: পুলিশের নাকা চেকিং এড়িয়ে পালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা। মৌলালিতে অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন দুই আরোহী। এদিকে, সোমবারের ঘটনায় এখনও অধরা অভিযুক্ত। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বাইক বিক্রির শোরুমগুলির সঙ্গেও যোগাযোগ রাখছেন তদন্তকারীরা।

পার্ক সার্কাস। বেকবাগানের পর এবার মৌলালি। ফের রাতের শহরে বেপরোয়া বাইকের দাপাদাপি। ট্রাফিক পুলিশের নাকা চেকিং এড়িয়ে পালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা।

হেলমেটের বালাই নেই। রাত বাড়তেই শহরে বাইকের উদ্দাম গতি। তাতেই একের পর এক ঘটনা। পরিস্থিতি মোকাবিলায় কয়েকদিন ধরেই রাতে নাকা চেকিং চালাচ্ছে কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ। মঙ্গলবার মৌলালিতেও চলছিল তল্লাশি। পুলিশকে দেখে পালাতে গিয়ে দুর্ঘটনা। দুই বাইক আরোহীর হেলমেট ছিল না।

পুলিশের ধরপাকড় সত্বেও, শহরে কমছে না বেপরোয়া বাইক চালকদের তাণ্ডব। সোমবার রাতে, বেকবাগানে অভিযুক্ত বাইক চালককে ধরতে গিয়ে আহত হন কনস্টেবল তপন ওরাং। কিন্তু, সেই ঘটনার আটচল্লিশ ঘণ্টা পরও অধরা অভিযুক্ত। লালবাজার সূত্রে খবর,

- (সিসিটিভি ফুটেজ দেখে বোঝা গেছে) হাই পিকআপ বাইক ছিল

- এই বাইকের বাজারমূল্য লক্ষাধিক

- হাই পিকআপ হওয়ায় সিসিটিভি ফুটেজে নম্বর প্লেট স্পষ্ট নয়

- সিসিটিভি ফুটেজ দেখে বাইক প্রস্তুতকারী সংস্থাকে চিহ্নিত করা গিয়েছে

- শহরের কয়েকটি মাত্র শোরুমে এই বাইক বিক্রি হয়

- বাইক মালিকের খোঁজে শোরুমগুলির সঙ্গে যোগাযোগ করছে পুলিশ

- অভিযুক্তের মুখ চিহ্নিত করতে সিসিটিভি ফুটেজে নজর

- এলাকাবাসীদের সঙ্গেও কথা বলছেন তদন্তকারীরা

বেপরোয়া বাইকারদের সামলাতে ট্রাফিক পুলিশকে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে লালবাজার। রাতে শহরের নিরাপত্তায় পুলিশি অভিযান চলছে। চলছে সতর্কতা, ধরপাকড়ও। তার পরও কেন ফিরছে না হুঁশ? উঠছে সেই প্রশ্নই।

First published: July 4, 2019, 4:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर