শৌচ মুক্ত প্রকল্পের সময়সীমা বেঁধে দিল রাজ্য পুর ও নগরোন্নয়ন বিভাগ

শৌচ মুক্ত প্রকল্পের সময়সীমা বেঁধে দিল রাজ্য পুর ও নগরোন্নয়ন বিভাগ

পুরসভাগুলির গয়ংগচ্ছ মনোভাব নিয়ে ক্ষুব্ধ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

  • Share this:

#কলকাতা:  উন্মুক্ত শৌচালয় ঠেকাতে কোনও ব্যবস্থা  না নেওয়ায় পুরসভার  ওপর ক্ষুণ্ণ হয়েছেন রাজ্যের পুর ও নগরায়ণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম৷ চারটি স্থির করা তারিখ পেরিয়ে গিয়েছে৷ তারপরও নেওয়া হয়নি কোনও ব্য়বস্থা৷ এই নিয়ে ক্ষুব্ধ তিনি৷

এই বিষয়ে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে চলতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার পুর কতৃপক্ষ ও আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন পুর ও নগরায়ণ মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। রাজ্যের সমস্ত পুরসভাগুলিকে জানুয়ারি মাসে চিঠি পাঠিয়ে ছিলেন তিনি৷ শৌচ মুক্ত প্রকল্পে দ্রূত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এই ছিল এই চিঠির বিষয়বস্তু।

এর আগে গত সেপ্টেম্বর মাস ও নভেম্বর মাসেও চিঠি পাঠানো হয়েছিল। তার পরে ৭ ডিসেম্বর, ১৫ ডিসেম্বর ও ৩১ ডিসেম্বর লক্ষ্যমাত্রা স্থির করা হয়৷ কিন্তু তা পূরণ করতে পারেনি পুরসভা। তাই জানুয়ারি মাসের ১০ তারিখ ফের চিঠি দেওয়া হয়। তখন স্থির করা হয়েছিল ৩১শে জানুয়ারির মধ্যে পুরসভাগুলোকে কাজ শেষ করতে হবে। তবে দেখা যায় সেই কাজ শেষ হয়নি এখনও। লক্ষ্যপুরণ করতে পারল না পুরসভাগুলি।

ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে বৈঠক করেছেন রাজ্যের পুর ও নগরায়ণ দফতরের সচিব। ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে জেলাশাসকদেরও। এই প্রকল্পে টাকা দেয় কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় নগরায়ন দফতরের সচিব কলকাতায় এসে এই বিষয়ে বৈঠক করে যান। সেখানে মন্ত্রীর উপস্থিতিতে ৫১টি পুরসভার কাজ নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। তারপরেই মন্ত্রী চিঠি পাঠিয়ে পুরসভাগুলিকে ব্যবস্থা নিতে বলেন। তাতেও কাজের কাজ হয়নি বলে প্রশাসন সূত্রে খবর।

এরই মধ্যে অভিযোগ রয়েছে, পুর দফতর নিয়োজিত সংস্থা যারা এই কাজগুলির সাথে যুক্ত তারা সংশ্লিষ্ট পুরসভায় গিয়ে দেখা পাচ্ছেন না। যদিও আধিকারিকদের একাংশের মতে সামনে পুর ভোট, তাই সবাই সব কিছু ছেড়ে এখন ভোটের কাজে ব্যস্ত। কিন্ত কাজ শেষ না করলে মিলবে না বরাদ্দ। তাই কড়া দাওয়াই দিতে বৃহস্পতিবার আসরে নামছেন খোদ পুরমন্ত্রী।

Abir Ghosal

First published: February 4, 2020, 7:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर