corona virus btn
corona virus btn
Loading

শুধু করোনা নয় বিশ্ব ধুকছে চুমুর অভাবে ! সংক্রমণের ভয়ে রুগ্ন 'চুম্বন শিল্প' !

শুধু করোনা নয় বিশ্ব ধুকছে চুমুর অভাবে ! সংক্রমণের ভয়ে রুগ্ন 'চুম্বন শিল্প' !

পৃথিবীর মূর্খ থেকে বিজ্ঞ, সবাই এখন চুম্বনকে বিরতির খাতায় রেখেছে।

  • Share this:

#কলকাতা: ভালোবাসার গভীরতা এবং আবেগ দুটি বোঝাতেই সারা পৃথিবী চুম্বন বা চুমুকে গুরুত্ব দিয়ে এসেছে। ছোট্ট সন্তানকে ভালবাসতে গিয়ে  প্রত্যেক বাবা মা সন্তানদের চুমু খান। ভাবুন তো! আপনার সন্তানের নরম দুটি ঠোঁট আপনার চিবুক কিংবা কপাল স্পর্শ করলে,শরীরের শিরা দিয়ে একটা শীতল রক্ত স্রোত বয়ে যায়।ক্লান্তি দূর হয়। আবেগে হয়ত বুকে জড়িয়ে ধরেন।এখন আর সেটা হবে না। এই চুমু বিভিন্ন অর্থ বহন করে। প্রেমিক প্রেমিকার, স্বামী স্ত্রীর ,প্রেম ভালবাসার গভীরতা বোঝাতে চুমু খান সবাই।

তবে বেশ কিছু দেশ রয়েছে যারা চুমুকে উষ্ণ অভ্যর্থনা বলে জানেন।আমরা জানি গভীর প্রেমের মানসিক যৌন তরঙ্গ অনুভূতি হিসাবে চুমুর গুরুত্ব অপরিসীম।এতে নাকি বন্ধন অটুট থাকে। যেহেতু, চুমু খেতে গেলে উভয়ের মুখ এবং নাসিকা দুজনেরই স্পর্শ হয়।সেহেতু ভয় তো থাকেই।কেউ দেখে ফেলার নয়, সংক্রমণের। রসিকেরা ভাবেন চুমু একটি শিল্প।এর মাধ্যমে কত অভিমান,মান ফিরিয়েছে।   লিপ কিস, ডীপ কিস, আরো কত নাম পাওয়া যায়, চুমুর!চোখ বন্ধ করে, ঘাড় ঘুরিয়ে,বাঁকিয়ে,কত ভাবে চুমু খায় মানুষ! ২০২০ সালে মানুষ জাতি বুঝেছে,এই মুহূর্তে যদি কেউ কাউকে চুমু খেতে যায় তাহলে প্রাণ সংশয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। ফলেই চিকিৎসকরা ড্রপলেট সিস্টেমের জন্য ,একজনকে আরেকজনের থেকে কমপক্ষে ৩ ফুট দূরত্বে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন। একে অপরকে চুমু খেলে সংক্রমণের সম্ভাবনা অনেকটা বেশি চিকিৎসকদের মতে।

তাই, এই পৃথিবীর মূর্খ থেকে বিজ্ঞ, সবাই এখন চুম্বনকে বিরতির খাতায় রেখেছে। আর ভালবাসা বোঝাবার, চুম্বন শিল্প -এখন রুগ্ন দশায় দাঁড়িয়েছে।  মানুষ বুঝেছে। ইতালি থেকে ব্রিটেন আমেরিকা, ইত্যাদি দেশে ,চুমু খেতে গিয়ে হাজার হাজার মানুষের প্রাণ চলে যাচ্ছে।  করোনা ভাইরাস 'যাতে আরো মানুষের মধ্যে সংক্রমিত না হয়ে পড়ে ,তার জন্য বিভিন্ন সেলিব্রিটিরা ,সোশ্যাল মাধ্যম থেকে বিজ্ঞাপন। সব কিছুর মাধ্যমে অনুরোধ করছেন ।একে অপরের থেকে দূরত্ব বজায় রাখতে। আর এই আবেদনের, ভাল ফল পাওয়া যাচ্ছে বলে আশা করছেন অভিজ্ঞ মহল।  আজ টলিউডের বিখ্যাত পরিচালক রাজ চক্রবর্তী ও তার অভিনেত্রী স্ত্রী শুভশ্রী ইনস্টাগ্রামে নিজেদের চুম্বনের ছবি পোস্ট করেছেন। অনেকের ধারণা এইভাবে যদি বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়, তাহলে সাধারণ মানুষ প্রভাবিত হয়ে এই কাজগুলি করবেন। যার ফলেকরোনা ভাইরাস ছড়ানোরসম্ভাবনা প্রবল থাকছে।  ডাক্তার অনির্বাণ দোলুই এর কথায়,' যেহেতু 'ড্রপলেট 'এর মাধ্যমে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। সেহেতু এই মুহূর্তে একে অপরকে আলিঙ্গন ও চুমু না খাওয়া উচিত।কোনো বিখ্যাত মানুষরা যদি, এই ধরনের ছবি প্রচার করেন, তাহলে,সাধারন মানুষরা প্রভাবিত হতে পারেন। '  অনেকে রাজ-শুভশ্রীর বিষয়টা নিয়ে ভাল চোখে দেখছেন না। তবে কেউ কেউ মজা করে বলছেন লকডাউনে হারিয়ে যাওয়ার বাজারে, একটু নিজেদের প্রচার, সেরে নেওয়া।তাছাড়া আর কি হতে পারে?  বড়ো দুঃখে! পিতা - মাতা - সন্তান এখন চুমু নিয়ে ভাবছেন না।প্রতিদিন মানবকুল জল মাপছেন,কতজন সংক্রামিত হল ,আর মারা গেলো কত জন!  রাস্তা দিয়ে হাঁটলে শুনশান দেখলেই, মনে পড়ে সেই ভিক্টোরিয়া,লেক,কিংবা কোনো পার্কের কথা। আর এদিক ওদিক তাকিয়ে চুমুর সেই দৃশ্য নেই। চুমু তো দূরের কথা,হাত মেলানো বন্ধ করেছে,সারা পৃথিবী।তবে আবেগের চুমু শিল্প এখন রুগ্ন শিল্প হয়ে পড়েছে।  ভাবুন তো !চুমু ছাড়া কি,প্রেম হয়?  এই করোনা আতঙ্ক যেনো মানুষের প্রেম,হাসি ছিনিয়ে নিয়েছে।

SHANKU SANTRA

 
First published: April 9, 2020, 10:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर