প্রাইমারি টেট মামলায় রাজ্যের অবস্থানে সঙ্কটে প্রশিক্ষণহীন পরীক্ষার্থীরা

প্রাইমারি টেট মামলায় রাজ্যের অবস্থানে সঙ্কটে প্রশিক্ষণহীন পরীক্ষার্থীরা

আইনি গেরোয় আরও জটিল হচ্ছে রাজ্যে প্রাথমিক শিক্ষক পদে প্রশিক্ষণহীনদের নিয়োগ।

  • Share this:

#কলকাতা: আইনি গেরোয় আরও জটিল হচ্ছে রাজ্যে প্রাথমিক শিক্ষক পদে প্রশিক্ষণহীনদের নিয়োগ। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে সরকারের অবস্থানে প্রশিক্ষণহীন পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যত নিয়ে বড় সড় প্রশ্ন উঠে গেল ৷

প্রাইমারি টেট মামলায় বড়সড় ধাক্কা খেলেন প্রশিক্ষণহীন প্রার্থীরা ৷ টেট নিয়ে কেন্দ্রের দেখানো পথেই ঘুরে আসতে হল রাজ্যকে। এদিন আদালতে মামলার শুনানি চলাকালীন প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করল রাজ্য সরকার ৷ বিচারপতি সিএস কারনানের সামনে এদিন রাজ্য জানায়, শিক্ষার অধিকার আইন অনুসারে সমস্ত প্রাথমিক স্কুলগুলিতে শিক্ষক নিয়োগ করতে চায় রাজ্য সরকার ৷

সেক্ষেত্রে শূন্যপদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও টেট উত্তীর্ণদেরই অগ্রাধিকার দেবে সরকার ৷ তাদের নিয়োগের পর যদি কোনও শূন্যপদ বেঁচে থাকে সেক্ষেত্রে প্রশিক্ষণহীনদের সুযোগ দেওয়া হবে।

এর ফলে অপ্রশিক্ষিত প্রার্থীরা কতটা সুযোগ পাবেন সে নিয়ে সংশয় রয়ে গেল ৷ অথচ রাজ্যে শিক্ষক পদে চাকরির জন্য যে ২২ লক্ষ পরীক্ষার্থী আবেদন জানিয়েছেন তাদের বড় অংশই অপ্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ৷

একদিকে প্রাথমিকে নিয়োগ নিয়ে আশার আলো দেখছেন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ও টেট উত্তীর্ণরা আর অন্যদিকে, প্রশিক্ষণহীন পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যত ক্রমশ অন্ধকারে তলিয়ে যাচ্ছে ৷

তবে কেন্দ্রের সঙ্গে দ্বন্দ্ব চালিয়ে বদনাম কুড়োতে চায় না রাজ্য। হাইকোর্টে সেই ইঙ্গিতই দিলেন সরকারি আইনজীবী। এর আগে. প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রশিক্ষণহীনদের সুযোগ দিতে, গত বছর কেন্দ্রের অনুমতি চেয়েছিল রাজ্য। কেন্দ্র এবছর ৩১ মার্চ পর্যন্ত সময় বাড়ায়। অবশ্য তার মধ্যে কোনও নিয়োগ হয়নি। কিন্তু, সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর প্রশিক্ষণহীনদের যাতে নতুন করে সময় না দেওয়া হয় সেজন্যই আদালতে মামলা করেন চিন্ময় দলুই নামে একজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চাকরিপ্রার্থী। এদিন কেন্দ্রকে দেওয়া রাজ্যের সেই চিঠির কপিও আদালতে পেশ করা হয়।

চিন্ময়ের আইনজীবী এদিন আদালতকে অভিযোগ করেন, রাজ্য যখন চিঠি দিয়ে সময়সীমা বাড়ানোর আর্জি জানায়, তখনই রাজ্যে পর্যাপ্ত সংখ্যক প্রার্থী প্রশিক্ষিত প্রার্থী ছিলেন। শূন্যপদ কত, কত প্রশিক্ষিত প্রার্থী, কত অপ্রশিক্ষিত প্রার্থী, কত জন টেট উত্তীর্ণ সেই তথ্য কেন্দ্রকে দেয়নি রাজ্য।

আরও পড়ুন

টেট মামলায় বিপাকে রাজ্য, কী হবে প্রশিক্ষণহীন পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যত

এর আগে মামলাকারীদের বক্তব্য অনুযায়ী, সেইসময় শূন্যপদের তুলনায় ৬৯ শতাংশ বেশি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থী ছিলেন। তারপরও কেন প্রশিক্ষণহীনদের জন্য ফের আবেদন করে রাজ্য? গত ৪ অগাস্টের শুনানিতে সেই প্রশ্নই তুলেছিলেন বিচারপতি কারনান।

আরও পড়ুন

শেষমেষ বেরোচ্ছে টেটের ফল

এদিন সেই প্রশ্নের ভিত্তিতেই রাজ্য আদালতকে জানায়, ‘প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও টেট উত্তীর্ণদেরই নিয়োগে অগ্রাধিকার দেবে রাজ্য ৷ এরপর শূন্যপদ থাকলে প্রশিক্ষণহীনদের সুযোগ দেওয়া হবে ৷’ তবে এই জবাবে সন্তুষ্ট নয় বিচারপতি, তাই নিয়োগে স্থিতাবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি সিএস কারনান তিনি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে স্থিতাবস্থা বহাল রাখার নির্দেশের সময়সীমা বাড়িয়ে এদিনের মতো শুনানি শেষ করেন ৷ এই মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ ২৬ অগাস্ট ৷ নিয়োগ নিয়ে রাজ্য ঘুরিয়ে নাক দেখালেও মামলার গেরো কাটার আশায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও টেট উত্তীর্ণরা। অন্যদিকে আশা ভঙ্গ অপ্রশিক্ষিত প্রার্থীদের ৷

First published: 01:05:45 PM Aug 18, 2016
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर