৪৪ থেকে শূন্য! কেন এমন হল, আজ প্রথমবার কথা বলবেন অধীররা

আজ দলীয় নেতাদের সঙ্গে পর্যালোচনায় অধীর চৌধুরী।

সভাপতি অধীর চৌধুরী নেতৃত্ব দেবেন বৈঠকের। থাকবেন রাজ্য কংগ্রেসের পদাধিকারী বিভিন্ন কমিটি ও শাখার প্রধান এবং জেলা সভাপতিরা, থাকতে পারেন বহু প্রাক্তন বিধায়ক।

  • Share this:

    #কলকাতা: ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে ৪০-এর বেশি আসন পেয়েছিল কংগ্রেস। জোটের হাতে ছিল ৭৭ টি আসন। কিন্তু এসবই এখন অতীত। ২০২১ বিধানসভা ভোটে বেনজির বিপর্যয় নেমে এসেছে। অস্তিত্ব সংকটে ভুগতে শুরু করেছে সিপিএম-কংগ্রেস। এই অবস্থায় সিপিএম-এর রাজ্য কমিটির বৈঠকের দিনই বৈঠকে বসতে চলেছে প্রদেশ কংগ্রেস। ভোটের পর এই প্রথম বৈঠকে প্রদেশ কংগ্রেস। সভাপতি অধীর চৌধুরী নেতৃত্ব দেবেন বৈঠকের। থাকবেন রাজ্য কংগ্রেসের পদাধিকারী বিভিন্ন কমিটি ও শাখার প্রধান এবং জেলা সভাপতিরা, থাকতে পারেন বহু প্রাক্তন বিধায়ক।

    জেলা ধরে ফলাফল বিশ্লেষণ করা হবে এই বৈঠকের। আলোচনা করা হবে হারের কারণ নিয়েই। ২০১৬ সাল থেকে জোটের রয়েছে বাম-কংগ্রেস। ২০১৬-তে বামেদের তুলনায় বেশি আসন পেয়েছিল কংগ্রেস। যে কারণে বিরোধী দলনেতা নির্বাচিত হন আব্দুল মান্নান।  কিন্তু এবার ভোটে সব অঙ্ক বদলে গিয়েছে। অধীর-গড় পরিচিত মুর্শিদাবাদে হানাদারি চালিয়েছে তৃণমূল। মালদাতেও কংগ্রেস খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। এমন হল কেন, ধর্মনিরপেক্ষ কংগ্রেস বা ধর্মের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলা সিপিএমের সঙ্গে আইএসএফ-এর গাঁটছড়া কি মানুষ মেনে নিতে পারেনি, এই বিষয়গুলি আজকে উঠে আসতে পারে প্রদেশ কংগ্রেসের বৈঠকে।

    কথা হতে পারে জোটের ভবিষ্যৎ নিয়েও। সিপিএম-এর তরফে সূর্যকান্ত মিশ্র স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, তারা আগ বাড়িয়ে জোট ভাঙতে আগ্রহী নন কিন্তু তবুও কাঁটা থাকছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় সিপিএম-এর নেতাদের পোস্ট মাঝেমধ্যেই দুই শিবিরের মধ্যে দূরত্ব রচনা করছে । দিন কয়েক আগেই বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য কংগ্রেসের গুন্ডা এই শব্দবন্ধ ব্যবহার করে, যে পোস্ট দিয়েছিলেন তা নিয়ে ব্যাপক তরজা শুরু হয় সিপিএম কংগ্রেসের মধ্যে। প্রদেশ কংগ্রেসের তরফে সূর্যকান্ত মিশ্রকে চিঠি দিয়ে তাঁর অবস্থান জানতে চাওয়া হয়। দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে চিঠি দেওয়া হয় জোট ভাঙতে চেয়েও, এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস জোট রাখতে কতটা আগ্রহী, তা বোঝা যাবে আজকের বৈঠকের পরেই।

    Published by:Arka Deb
    First published: