corona virus btn
corona virus btn
Loading

চৈতন্যদেবকে সামনে রেখে এবার NRC বিরোধিতা 

চৈতন্যদেবকে সামনে রেখে এবার NRC বিরোধিতা 

এনআরসি বিরোধীতায় এবার সামনে চলে এল চৈতন্যদেব

  • Share this:

# কলকাতা :  এনআরসি বিরোধীতায় এবার সামনে চলে এল চৈতন্যদেব।চৈতন্যদেবের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে সোমবার উত্তর কলকাতায় এক শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয় বাগবাজার গৌড়িয় মিশনের পক্ষ থেকে। এই শোভাযাত্রায় অংশ নিয়ে বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে শ্রী চৈতন্যদেবের বাণী আরও বেশি করে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানালেন বাগবাজার গৌড়িয় মিশনের আচার্য ও সভাপতি বিষ্ণুপাদ পরমহংস শ্রীমদ ভক্তি সুন্দর সন্ন্যাসী মহারাজ। তিনি বলেন, 'চৈতন্যদেব কখনও বিভাজন চাননি। বিভাজনের রাজনীতি তিনি কখনো করেননি। সিএএ এনআরসি নিয়ে আমরা কতটুকু ভিতরে যাই ? কেউ বলছে এতে দেশের হিত রয়েছে। আবার কেউ বলছেন এতে বিভাজনের রাজনীতি রয়েছে। আমরা মনে করি না এতে বিরাট কিছু সাফল্য আসবে। মানে কোনও মানুষ যদি এদেশে আশ্রয় পেয়ে থাকেন। যদি তাঁর দেশের নাগরিকত্ব থাকে। তাঁকে তাড়িয়ে দেওয়ার প্রশ্ন ওঠে না। বরং আমরা অন্যকিছু করতে পারি। আমরা জনসংখ্যার নিয়ন্ত্রণ করতে পারি। আমরা দেশপ্রেমের পাঠ দিতে পারি। যাতে সে দেশের হিতের জন্য কাজ করতে পারে। শান্তি ও ভাইচারা নিয়ে থাকতে পারে।'

এনআরসি-র পক্ষে বা বিরুদ্ধে এখনো পর্যন্ত জাতীয় পতাকা ও বিভিন্ন মণীষীদের ছবি ব্যবহার করা হলেও চৈতন্য়দেবকে এই প্রথম সামনে নিয়ে আসা হল। সরাসরি রাজনৈতিক দল না হলেও এটা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন ওয়াকিবহল মহলের একাংশ । বাঙালি তথা এই রাজ্যের বাসিন্দাদের মধ্যে চৈতন্যদেবের যথেষ্ঠ প্রভাব রয়েছে। তাই এনআরসি বিরোধী আন্দোলনে এ এক অন্য মাত্রা পাবে বলে মনে করেন তাঁরা।

রাজপথে, মিটিং, মিছিলের পাশাপাশি খেলার মাঠ, বইমেলা এমনকি বিয়ের আসরকেও এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের মঞ্চ হিসেবে ব্যবহার করা হলেও কোনও ধর্মীয় সংগঠনের তরফে কার্যত এই প্রথম অবস্থান নেওয়া হল। এটাকেও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল

১০ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়ে সাত দিন ধরে চলবে শ্রীচৈতন্য জন্মোৎসব ও মেলা।

UJJAL ROY
First published: February 10, 2020, 9:58 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर