ঘাস ফুলের টিকিটে প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক? জল্পনা রাজনৈতিক মহলে

ঘাস ফুলের টিকিটে প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক? জল্পনা রাজনৈতিক মহলে

জয়ের ব্যাপারে ১০০% আশাবাদী এই প্রাক্তন দাপুটে বাম নেতা। জল্পনা রয়েছে হিন্দিভাষী এলাকা উত্তর হাওড়া থেকে তৃণমূল প্রার্থী হতে পারেন লগনদেও সিং।

জয়ের ব্যাপারে ১০০% আশাবাদী এই প্রাক্তন দাপুটে বাম নেতা। জল্পনা রয়েছে হিন্দিভাষী এলাকা উত্তর হাওড়া থেকে তৃণমূল প্রার্থী হতে পারেন লগনদেও সিং।

  • Share this:

#কলকাতা: সিপিএমের প্রাক্তন বিধায়ক কি এবার তৃণমূলের হয়ে বিধানসভায় টিকিট পাবেন। ভোট ঘোষণা হলেও এখনও ঘোষণা হয়নি প্রার্থী। জল্পনা চলছে হাওড়ার এক সময়ের বাম বিধায়ক লগনদেও সিং টিকিট পেতে পারেন জোড়া ফুলের হয়ে।

প্রসঙ্গত গত ২৪ তারিখ মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সাহাগঞ্জের সভায় এক সময়ের দাপুটে এই বাম নেতা যোগ দেন ঘাস ফুল শিবিরে। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের হাত থেকেই পতাকা নেন। দীর্ঘ দিন উত্তর হাওড়ার বিধায়ক ছিলেন লগনদেও সিং। ১৯৯৯ সাল থেকে লাগাতার বিধায়ক হন তিনি। যদিও তার প্রাক্তন দল সিপিএম তার বিরুদ্ধে দূর্নীতির অভিযোগ আনে। ২০১১ সালে তিনি টিকিট পাননি। ২০১৬ সালে বাম-কংগ্রেস জোটের হয়ে উত্তর হাওড়ায় কংগ্রেস প্রার্থী দেয়। এই অবস্থায় দলের সাথে ক্রমশ দূরত্ব বাড়তে থাকে এই বাম নেতা লগনদেও সিং'য়ের। শেষমেষ রাজনৈতিক শিবির বদলে তিনি এখন তৃণমূলে। হাওড়া জেলার শহরাঞ্চলে মুলত, হিন্দিভাষী ভোটারদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় ছিলেন লগনদেও সিং। সিটু নেতা হিসাবে দাপটের সাথে তিনি কাজ করে গিয়েছেন। কুলিদের সংগঠন, সংবাদপত্র বিক্রেতাদের সংগঠন তিনি করতেন। এর পাশাপাশি হুগলি নদী জলপথ পরিবহণ সমিতি নিয়ন্ত্রণ করতেন তিনিই। ফলে বামেদের কাছে গুরুত্ব ছিল লগনদেও সিং'য়ের।

কংগ্রেস বিরোধী এই নেতার আপত্তি ছিল জোট নিয়ে। বামেরা কংগ্রেসের সাথে জোট করায় তিনি ক্ষুব্ধ। তিনি জানিয়েছেন, "আমি কংগ্রেস বিরোধী রাজনীতি করে এসেছি। সেখানে জোটে থেকে আমার কাজ করার কোনও ইচ্ছা ছিল না। আর বিজেপির মতো একটা সাম্প্রদায়িক দলকে আটকাতে গেলে আমাদের সকলের উচিত মমতা বন্দোপাধ্যায়ের হাত শক্ত করা। আমি তাই তৃণমূলে যোগ দিয়েছি। দল আমাকে যে দায়িত্ব দেবে আমি সেটা পালন করব।" তবে জয়ের ব্যাপারে ১০০% আশাবাদী এই প্রাক্তন দাপুটে বাম নেতা। জল্পনা রয়েছে হিন্দিভাষী এলাকা উত্তর হাওড়া থেকে তৃণমূল প্রার্থী হতে পারেন লগনদেও সিং।

২০১১ সালে এই কেন্দ্র থেকে টিএমসি জেতে প্রায় ২০ হাজার ভোটে। অশোক ঘোষ সেবার জিতেছিলেন। ২০১৬ সালে এই কেন্দ্র থেকে জেতেন ক্রিকেটার লক্ষীরতন শুক্ল। ভোটে জেতার ব্যবধান বেড়ে হয় ২৭ হাজার। তবে গত লোকসভা ভোটে টিএমসি এখানে পিছিয়ে যায় ৩ হাজার ভোটে। অন্যদিকে মন্ত্রীত্ব, সাংগঠনিক পদ দু'টি অবস্থান থেকেই সরে এসেছেন লক্ষীরতন শুক্ল। ফলে অবাঙালি অধ্যুষিত এই এলাকায় এবার অবাঙালিকে গুরুত্ব দিতে চায় রাজ্যের শাসক দল। তাই জল্পনা বাড়িয়ে দিয়েছে লগনদেও সিংয়ের যোগদান। রাজনৈতিক মহলের মতে উত্তর হাওড়া থেকে আসন পেতে পারেন সিপিএমের প্রাক্তন বিধায়ক।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: