• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • অস্ট্রিয়া থেকে কলকাতায় এল ইস্পাতের রেল, শীঘ্রই শুরু হচ্ছে গঙ্গার নীচে মেট্রোর লাইন পাতার কাজ 

অস্ট্রিয়া থেকে কলকাতায় এল ইস্পাতের রেল, শীঘ্রই শুরু হচ্ছে গঙ্গার নীচে মেট্রোর লাইন পাতার কাজ 

ভিয়েনার নদী বন্দর থেকে জাহাজে কলকাতা বন্দরে নিয়ে আসা হয়েছে এই ইস্পাত। ক্রোমিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ সহ নানা উপকরণ দিয়ে এই ইস্পাত বানানো হয়েছে।

ভিয়েনার নদী বন্দর থেকে জাহাজে কলকাতা বন্দরে নিয়ে আসা হয়েছে এই ইস্পাত। ক্রোমিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ সহ নানা উপকরণ দিয়ে এই ইস্পাত বানানো হয়েছে।

ভিয়েনার নদী বন্দর থেকে জাহাজে কলকাতা বন্দরে নিয়ে আসা হয়েছে এই ইস্পাত। ক্রোমিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ সহ নানা উপকরণ দিয়ে এই ইস্পাত বানানো হয়েছে।

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

#কলকাতা: শীঘ্রই শুরু হচ্ছে গঙ্গার নীচে মেট্রো সুড়ঙ্গে লাইন পাতার কাজ। ইউরোপের অস্ট্রিয়া থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছে গিয়েছে ইস্পাতের রেল। লাইন বা রেল বসানোর জন্য এসে গিয়েছে আমেরিকান মেশিন 'মোবাইল ফ্ল্যাশব্যাট ওয়েল্ডিং'। যা দিয়ে জোড়া হবে লাইনের অংশ। কে এম আর সি এল সূত্রে খবর হাওড়া ময়দান থেকে শিয়ালদহ পর্যন্ত ৭ কিমি লাইন পাতার মতোই ইস্পাত এসে পৌঁছে গিয়েছে। আপাতত তা রাখা আছে হাওড়া ময়দান ও সুভাষ সরোবরে মেট্রোর কাস্টিং ইয়ার্ডে। যে সংস্থা এই লাইন পাতার কাজ করবে তাঁদের প্রতিনিধিরাও এসে গিয়েছে। হাওড়া ময়দান থেকে এসপ্ল্যানেড পর্যন্ত মেট্রোর সুড়ঙ্গ তৈরির কাজ শেষ। এই অংশেই গঙ্গার নীচে সুড়ঙ্গ বানানো হয়েছে।

এ বার এই পথে শুরু হতে চলেছে মেট্রোর লাইন পাতার কাজ। তার জন্য অস্ট্রিয়া থেকে আনা হয়েছে ১৭১০ মেট্রিক টন ইস্পাত। ১৮ মিটার করে লম্বা এক একটি রেলের খন্ড আনা হয়েছে। এ গুলিকেই জোড়া হবে। কে এম আর সি এলের জিএম ইলেকট্রিক্যাল নরেশ চন্দ্র কারমালি জানিয়েছেন, "মেট্রো লাইনে কোনও জয়েন্ট থাকে না। তাই প্রতিটি খন্ড বসিয়ে বিশেষ যন্ত্র মোবাইল ফ্ল্যাশব্যাট ওয়েল্ডিং দিয়ে জোড়া হবে। তারপর বিভিন্ন তাপমাত্রায় তা পরীক্ষা করা হবে।" পণ্যবাহী ট্রেন বা মেল এক্সপ্রেস ট্রেন যখন চলাচল করে তখন রেল লাইনের ওপরে তার ভার অনেক বেশি। সেই তুলনায় মেট্রোর ভার অনেকটা কম হয়। কিন্তু মেট্রো পরিষেবা যেহেতু ঘন ঘন হয় তাই রেলের ওপরে ঘর্ষণ এবং তাপ এতটাই উৎপন্ন হয় তাই এই কাজ অনেক বেশি নিখুঁত ও সচেতনতার সঙ্গে করতে হয়।

কে এম আর সি এলের আধিকারিকরা জানাচ্ছেন, মেট্রো লাইন হয় সুড়ঙ্গ নয় মাটির অনেক ওপরে হয়। ফলে এখানে লাইন বদলানো খুব একটা সহজ ব্যপার নয়। তাই কমপক্ষে ১০০ বছর ধরে পরিষেবা দিতে হবে এমনটা ভেবেই এই রেল বা ইস্পাত নিয়ে আসা হয়েছে।" কে এম আর সি এল সূত্রে খবর, ভিয়েনার নদী বন্দর থেকে জাহাজে কলকাতা বন্দরে নিয়ে আসা হয়েছে এই ইস্পাত। ক্রোমিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ সহ নানা উপকরণ দিয়ে এই ইস্পাত বানানো হয়েছে। সাধারণ লাইনের চেয়ে এই লাইনের পীড়ন সহ্য করার ক্ষমতা অনেকটা বেশি। বিশেষ প্রযুক্তিতে বানানো এই ইস্পাত কয়েক মিনিট অন্তর ট্রেন চলাচলের পরেও ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। তাই দাম বেশি হলেও এটাই বাছাই করেছে কে এম আর সি এল। যেহেতু অস্ট্রিয়া রেল লাইন তৈরিতে দক্ষ তাই সেখান থেকেই এই ইস্পাত আনা হয়েছে।

ভারতে একটি ইস্পাত সংস্থা এখন যদিও এই রেল লাইন বানানোর কাজ শুরু করেছে। আগামী সপ্তাহ থেকেই সুড়ঙ্গের মধ্যে এই লাইন পাতার কাজ শুরু হবে। ইতিমধ্যেই তৈরি করা হচ্ছে একটি মোটা কংক্রিটের স্তর। সেই কংক্রিটের ওপর বসবে অস্ট্রিয়া থেকে আনা রেল লাইন। লক্ষ্য ২০২১ সালে এই কাজ শেষ করা। তবে এসপ্ল্যানেড থেকে শিয়ালদহ অবধি সুড়ঙ্গ কাজ শেষ না হলে দু'প্রান্ত থেকে লাইন পাতার কাজে একটা সমস্যা থেকে গেল। তাই একটু বেশি সময় লাগবে এই কাজ শেষ করতে।

Published by:Simli Raha
First published: