আজও একই ছবি,খুদে পড়ুয়াদের রাস্তায় ছেড়েই চলে গেল পুলকার

আজও একই ছবি,খুদে পড়ুয়াদের রাস্তায় ছেড়েই চলে গেল পুলকার

আজও বেলুড়ের বেসরকারি স্কুলের এক কিলোমিটার দূরে খুদে পড়ুয়াদের নামিয়ে দিয়ে চলে যায় পুলকারগুলি।

আজও বেলুড়ের বেসরকারি স্কুলের এক কিলোমিটার দূরে খুদে পড়ুয়াদের নামিয়ে দিয়ে চলে যায় পুলকারগুলি।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    # হাওড়াঃ ২৪ ঘণ্টা পরও হুঁশ ফিরল না পুলকার চালকদের। আজও বেলুড়ের বেসরকারি স্কুলের এক কিলোমিটার দূরে খুদে পড়ুয়াদের নামিয়ে দিয়ে চলে যায় পুলকারগুলি। সেখান থেকে হেঁটেই স্কুলে পৌঁছয় তারা। রোজ রোজ ঝুঁকি নিয়ে খুদে পড়ুয়ারা রাস্তা পারাপার করলেও, তার দায় নিতে নারাজ স্কুল কর্তৃপক্ষ। তবে পুলকার নিয়ন্ত্রণের দায় স্কুল কর্তৃপক্ষেরই বলে জানিয়েছে পরিবহণমন্ত্রী।

    মঙ্গলবারই স্কুল কর্তৃপক্ষ, পুলকারের চালক ও খালাসির চূড়ান্ত গাফিলতির শিকার হয় বারো খুদে পড়ুয়া। সংবাদমাধ্যমে সেই খবর প্রকাশ হতেই বিতর্ক তৈরি হয়। কিন্তু বিতর্কই সার। ২৪ ঘণ্টা পরও হুঁশ ফিরল না পুলকার চালকদের। যারজেরে বুধবারও একই ছবি বেলুড়ের বেসরকারি স্কুলে।

    হুঁশ ফেরেনি পুলকার চালকদের!

    - এদিনও স্কুলের ১ কিলোমিটার দূরে খুদে পড়ুয়াদের নামিয়ে দেয় পুলকারগুলি - সেখান থেকে হেঁটেই স্কুলে পৌঁছয় তারা - সেই রাস্তায় বাস, লরি সহ চার চাকার গাড়িও চলে - তাই যে কোনও সময়ে দুর্ঘটনার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে

     যদিও গোটা বিতর্কে কোনও ধরনের দায় নিতে নারাজ স্কুল কর্তৃপক্ষ। তবে পরিবহণমন্ত্রী সাফ জানিয়েছেন, পুরকার নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব নিতে হবে স্কুল কর্তৃপক্ষগুলিকেই।

    ভুলস্বীকার করলেও পুলকার মালিকদের দাবি, স্কুল চত্বরে গাড়ি ঢোকানোর অনুমতি নেই। তাই বাধ্য হয়েই দূরে নামাতে হয় বাচ্চাদের।

    স্কুল কর্তৃপক্ষ এবং পুলকার মালিকদের এই টানাপোড়েনের মাঝে, প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়েই রাস্তা পারাপার করতে হচ্ছে কয়েকশো খুদে পড়ুয়াকে।

    First published: