মুখ্যমন্ত্রী হতে চাইত, উচ্চাকাঙ্খার পিছনে ছুটত শুভেন্দু, অধিকারী পর্ব শেষে বিস্ফোরক সৌগত রায়

মুখ্যমন্ত্রী হতে চাইত, উচ্চাকাঙ্খার পিছনে ছুটত শুভেন্দু, অধিকারী পর্ব শেষে বিস্ফোরক সৌগত রায়

শুভেন্দু সম্পর্কে মুখ খুললেন সৌগত রায়।

আজ মুখ খুললেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন শুভেন্দু সম্পর্কে।

  • Share this:

    #কলকাতা: শুভেন্দুর দল ছাড়ার দিনে বাঁধ ভাঙল তাঁর। এতদিন মধ্যস্থতা করে এসেছেন। দলনেত্রীর নির্দেশ পালন করে শুভেন্দুর মানভঞ্জন করার চেষ্টা করেছেন। শালীনতাও বজায় রেথে এসেছেন। আজ মুখ খুললেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন শুভেন্দু সম্পর্কে। তাঁর কথায়, শুভেন্দু আসলে মুখ্যমন্ত্রী হতে চাইত। আগে থেকেই জানা ছিল বিজেপিতে যোগ দিতে মুখিয়ে রয়েছেন শুভেন্দু।

    এ দিন যাবতীয় ক্ষোভ উগড়ে দেন সৌগত রায়। তিনি বলেন, "শুভেন্দুর ইচ্ছে ছিল ওঁর উপর ৫-৬টি জেলা ছেড়ে দেওয়া হোক। ও কখনও প্রকাশ্যে বলেনি, কিন্তু ও চাইত মুখ্যমন্ত্রী বা উপমুখ্যমন্ত্রী হতে। আমি আগেই জানতাম ও বিজেপিতে যাবে।"

    কিন্তু এতবড় সংগঠক চলে যাওয়ায় ক্ষতি হবে না দলের? ভাঙছেন না সৌগত রায়। তাঁর কথায়, "আমি মনে করি. এটা পরীক্ষার সময়। যারা লোভী, যারা দুর্বল, তাঁরা দলত্যাগ করবে।" সৌগতর তোপ, "বিজেপি হয়তো ওঁকে লোভ দেখিয়েছে, লোভ দেখিয়েছে জানি না। সংগঠনে অবজার্ভার থাকতে চেয়েছিলেন,সেই দায়িত্ব দেওয়া যায়নি, পদ্ধতি পরিবর্তন করা হয়েছিল।"

    প্রসঙ্গত, ডিসেম্বরের প্রথম দিন শুভেন্দুর সঙ্গে বৈঠক করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে হাজির ছিলেন সৌগত রায়, ভোটকুশলী প্রশান্তকিশোর, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়রা। তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় নিজে সাংবাদিকদের ডেকে জানান, বৈঠক অত্যন্ত ইতিবাচক। সব পক্ষ একটা সাধারণ জায়গায় এসেছে, দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে। আপাতত সব সমস্যা মিটে গিয়েছে। তৃণমূলেরই থাকছেন শুভেন্দু অধিকারী।

    তাল কাটে ঠিক একদিন পরেই। শুভেন্দু বলেন, যৌথ প্রেস কনফারেন্সের শর্ত মানেননি দল। তাই আর একসঙ্গে পথ চলা সম্ভব নয়। সেই প্রসঙ্গ তুলে এনে সৌগত রায় বলেন, "আমাদের কথা হয়েছিল ১ ডিসেম্বর। ২ ডিসেম্বরই তিনি বলেন একসঙ্গে কাজ করা সম্ভব নয়। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছিলাম ওঁর সঙ্গে আর কোনও কথা নয়। আসলে ও উচ্চাকাঙ্খার পিছনে ছুটছিল। মমতার ঠিক পরবর্তী পদের পিছনে ছুটছিল ও। দল ওঁকে সেই পদের দাবিদার মনেই করেনি।"

    Published by:Arka Deb
    First published: