মাস্টারমশাই-জটু লাহিড়ি-সোনালিরা বিজেপিতে, 'গোল' করার দায়িত্ব পেলেন দীপেন্দুও

মাস্টারমশাই-জটু লাহিড়ি-সোনালিরা বিজেপিতে, 'গোল' করার দায়িত্ব পেলেন দীপেন্দুও

একাধিক জেলাস্তরেও তৃণমূলকে ভেঙেছে বিজেপি। শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেছেন, এই যোগদানের ফলে ১২ জেলা পরিষদ দখলে চলে এল বিজেপির।

একাধিক জেলাস্তরেও তৃণমূলকে ভেঙেছে বিজেপি। শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেছেন, এই যোগদানের ফলে ১২ জেলা পরিষদ দখলে চলে এল বিজেপির।

  • Share this:

    #কলকাতা: সব ঠিকঠাক হয়েই ছিল। সোমবার বিকেলে গিয়ে বিজেপিতে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দিলেন তৃণমূলের একঝাঁক বিদায়ী বিধায়ক। পদ্ম শিবিরে নাম লেখালেন সিঙ্গুরের বিদায়ী বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, শিবপুরের বিদায়ী বিধায়ক জটু লাহিড়ি, সাতগাছিয়ার বিদায়ী বিধায়ক সোনালি গুহ, বসিরহাট দক্ষিণের বিদায়ী বিধায়ক প্রাক্তন ফুটবলার দীপেন্দু বিশ্বাসের মতো মুখ। একইসঙ্গে বিজেপিতে যোগ দিলেন অভিনেত্রী তনুশ্রী চক্রবর্তী। রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, জটু লাহিড়ি বা সোনালিরা কেউই টিকিট পাননি এবার। সেই ক্ষোভেই তাঁদের পদ্মে-গমন। তবে, চমকে দিয়েছেন মালদার হাবিবপুরের তৃণমূল প্রার্থী সরলা মুর্মু । প্রার্থী হয়েও বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তিনি। যদিও গুঞ্জন শুরু হতেই তাঁকে সরিয়ে প্রদীপ বাস্কেকে প্রার্থী ঘোষণা করে তৃণমূল।

    এছাড়াও একাধিক জেলাস্তরেও তৃণমূলকে ভেঙেছে বিজেপি। শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেছেন, এই যোগদানের ফলে ১২ জেলা পরিষদ দখলে চলে এল বিজেপির। এই বিষয়টাই সবচেয়ে ভাবাচ্ছে শাসক দলকে। যদিও রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, বাংলায় এবার নতুন ট্রেন্ড চালু হতে চলেছে। টিকিট না পাওয়ার জন্য দলবদল তাও যদি বা মানা যায়, কিন্তু টিকিট পেয়েও দল ছাড়া ভোটবঙ্গে নতুন ধারার সংযোজন করল।

    যদিও রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য ছাড়া আর বাকিরা বলছেন, বিজেপিতে টিকিট চাই না। দলে জায়গা পেলেই হল। তবে, বিজেপি সূত্রে খবর, অধিকাংশ বিদায়ী বিধায়ককেই প্রার্থী করা হতে পারে নিজেদের পুরনো আসনে। তবে, সাতগাছিয়ায় সোনালি ও শিবপুরে জটু লাহিড়ির সম্ভাবনা নিয়ে সন্দিহান একাংশ। অপরদিকে, চৌরঙ্গি কেন্দ্র থেকে শিখা মিত্রকে প্রার্থী করতে পারে বিজেপি। খোদ শুভেন্দু অধিকারী সেই প্রস্তাব দলের কাছে রেখেছেন। সংবাদমাধ্যমে শিখা নিজেও পুত্র-সহ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার বিষয়টিকে একপ্রকার শিলমোহর দিয়েই দিয়েছেন।

    বিজেপি সূত্রে আরও খবর, তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে চলেছেন বাঁকুড়ার বিদায়ী তৃণমূল বিধায়ক শম্পা দরিপা। তাঁকে এবার টিকিট দেয়নি দল। প্রার্থীতালিকা ঘোষণার দিনই দলের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন শম্পা। তখনই ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছিল, শম্পার গন্তব্যও হতে পারে বিজেপি। তাঁর এবার বিজেপি যোগ। এবার তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ৫ মন্ত্রী-সহ ৬৪ জন তৃণমূল বিধায়ক। তাঁদের অনেকেই বিষয়টি মেনে নিতে না পেরে বিজেপিকে গন্তব্য বলে বেছে নিচ্ছেন। এদিন শুভেন্দু অধিকারী, মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষরা এই যোগদান পর্বে হাজির ছিলেন।

    Published by:Suman Biswas
    First published: