corona virus btn
corona virus btn
Loading

একমাত্র ছেলের দুর্ঘটনায় ব্রেইন ডেথ, অঙ্গদান করে চারজনের নতুন জীবন দিল পরিবার

একমাত্র ছেলের দুর্ঘটনায় ব্রেইন ডেথ, অঙ্গদান করে চারজনের নতুন জীবন দিল পরিবার

শোকসন্তপ্ত পরিবারকে অঙ্গদানের প্রয়োজনিয়তা বোঝান চিকিৎসকেরা। খুব দ্রুতই পরিবারের তরফে অঙ্গদান এর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

  • Share this:

ABHIJIT CHANDA

#কলকাতা: কলকাতায় ফের অঙ্গদান। পথ দুর্ঘটনায় জখম যুবকের মস্তিষ্কের মৃত্যু এসএসকেএম হাসপাতালে। মৃতের নাম সুজয় কর্মকার। বয়স কুড়ি বছর। কাঁচরাপাড়া কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের পড়ুয়া। হরিণঘাটা কলেজে পরীক্ষার সিট পড়েছিল। ৭ই জানুয়ারি বন্ধুর মোটরসাইকেলে করে পরীক্ষা কেন্দ্রে যাচ্ছিলেন সুজয়। মোহনপুর এর কাছে দুর্ঘটনায় পড়ে তাদের মোটরবাইক। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় পাপন ঘোষ নামে মোটরসাইকেল চালকের। পাপনের পেছনেই বসে ছিলেন সুজয়। গুরুতর জখম অবস্থায় হরিণঘাটা হাসপাতাল, কল্যাণী জে এন এম হাসপাতাল হয়ে এসএসকেএম-এ আনা হয় সুজয় কর্মকারকে। চিকিৎসকরা বহু চেষ্টা করেও সুজয়ের অবস্থার উন্নতি করতে পারছিলেন না। রবিবার সুজয়ের মস্তিষ্কের মৃত্যুর কথা ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। এরপরই শোকসন্তপ্ত পরিবারকে অঙ্গদানের প্রয়োজনিয়তা বোঝান চিকিৎসকেরা। খুব দ্রুতই পরিবারের তরফে অঙ্গদান এর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

4172_IMG-20200120-WA0004

সোমবার সকাল থেকেই শুরু হয় সুজয়ের শরীর থেকে বিভিন্ন অঙ্গ বের করে আনার প্রক্রিয়া। সব কিছু খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত হয়, হৃদযন্ত্র যাবে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে। লিভার যাবে অ্যাপোলো হাসপাতালে। দু’টি কিডনি প্রতিস্থাপনের জন্য এসএসকেএম-এ রোগীদের প্রস্তুত করা হচ্ছে। দু’টি পৃথক গ্রিন করিডোর করে এসএসকেএম থেকে কলকাতা মেডিকেল কলেজ এবং অ্যাপোলো হাসপাতাল পর্যন্ত হার্ট এবং লিভার পাঠানো হয়। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে হৃদযন্ত্র পাচ্ছেন বাগুইআটির বাসিন্দা সাতচল্লিশ বছরের অমল হালদার পেশায় কাঠ মিস্ত্রি অমলবাবু বছরখানেকের ওপর হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন, হৃদযন্ত্র পরিবর্তন করা ছাড়া কোনো উপায় নেই বলে জানান চিকিৎসকরা।সুজয়ের হৃদযন্ত্র এখন অমলবাবুর শরীরে বসার অপেক্ষায়।

গত বেশ কিছুদিন ধরেই এ রাজ্যে অঙ্গদান নিয়ে মানুষের সচেতনতা অনেক বেড়েছে। বিশেষত সমাজের পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর মধ্যেও অঙ্গদান নিয়ে জড়তা, কুসংস্কার আগের থেকে অনেক কেটেছে।

Published by: Simli Raha
First published: January 20, 2020, 4:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर