তৃণমূল ও কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন একাধিক নেতা

তৃণমূল ও কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন একাধিক নেতা

এমন পরিস্থিতি রাজ্যে শাসক ও বিরোধী শিবিরে ভাঙন ৷ সভাপতির উপস্থিতিতেই তৃণমূল ও কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন একাধিক নেতা ৷

  • Share this:

#কলকাতা: বিজেপির জনসংযোগ বাড়াতে রাজ্যে সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ ৷ ওদিকে যমুনা তীরে উড়ল গেরুয়া ধ্বজা ৷ দিল্লিতে পুরসভা ভোটেও অব্যাহত বিজেপি জয় ৷ মিশন বাংলার উদ্দেশ্যে ২০১৯-এ পদ্মফুল ফোটার স্বপ্ন বুনছেন বিজেপি শিবিরের সেনাপতি অমিত শাহ ৷ এমন পরিস্থিতি রাজ্যে শাসক ও বিরোধী শিবিরে ভাঙন ৷ সভাপতির উপস্থিতিতেই তৃণমূল ও কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন একাধিক নেতা ৷

এদিন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন অনুপম দত্ত ও রঞ্জন সেন নামে দুই নেতা ৷ বিজেপি ঝড় প্রভাব ফেলেছে কংগ্রেসেও ৷ হাত ছেড়ে পদ্মফুলে যোগ দিলেন দুই কংগ্রেসি নেতাও ৷ কনক দেবনাথ, মনোজ পাণ্ডেও যোগ দিয়েছেন গেরুয়া বাহিনীতে ৷

রাজ্যে পা রাখার পর থেকেই পরবর্তী নির্বাচনে বিজেপির জয়ের কথা বড় মুখে বলে আসছেন অমিত শাহ ৷ মমতার খাস তালুক ভবানীপুর থেকেও ২০১৯-এ রাজ্যে পদ্মফুল ফোটানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ৷

জনসম্পর্ক মজবুত করার বার্তা দিতে নকশালবাড়ির হত দরিদ্র পঞ্চায়েত এলাকায় মঙ্গলবার ঘুরেছেন বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ। বুধবারের কর্মসূচি ছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী এলাকায় জনসংযোগ ৷ রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান ও জনপ্রিয় জননেত্রীর পাড়া থেকে অমিত শাহের আত্মবিশ্বাসী মন্তব্য, ‘ভবানীপুরেও পদ্ম ফুটবে ৷ ২০১৯ ভোটেই বিজেপির শাসন প্রতিষ্ঠিত হবে ৷’

টার্গেট বেঙ্গল। লক্ষ ২০১৯। নির্মূল হবে ঘাসফুল। সবচেয়ে বেশি আসন পাবে বিজেপি। হয়ে উঠবে বাংলার সবচেয়ে বড় দল। বাংলায় ফুটবে পদ্ম। সেই লক্ষেই এগোচ্ছে মিশন বেঙ্গল। ফের বিজেপির টার্গেট স্পষ্ট করলেন অমিত শাহ। একই সঙ্গে উন্নয়ন, দুর্নীতি ইস্যুতে আবারও শাসক দলের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি। বললেন, তৃণমূল রাজত্বে অধিকাংশ কারখানা বন্ধ। চালু শুধুমাত্র বোমা তৈরির কারখানা। সংগঠনের জোরেই বিজেপি এতদূরে পৌঁছেছে ৷ বিশ্বের বৃহত্তম দল এখন বিজেপি ৷ মোদির বিজয়রথ পশ্চিমবঙ্গেও পৌঁছবে ৷’

বিধানসভা ভোটের পর থেকেই তৃণমূল, বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস ছেড়ে বহু নেতা-কর্মীও যোগ দিয়েছেন গেরুয়া শিবিরে ৷ চলতি বছরে পাঁচ রাজ্যে বিপুল জয়ের পর বাংলাকেই পাখির চোখ করেছে বিজেপি ৷

First published: 06:23:50 PM Apr 26, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर