• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ফি বাড়ানোর মেসেজ-মেল পাঠাচ্ছে কয়েকটি বেসরকারি স্কুল, অভিযোগ অভিভাবকদের

ফি বাড়ানোর মেসেজ-মেল পাঠাচ্ছে কয়েকটি বেসরকারি স্কুল, অভিযোগ অভিভাবকদের

১৫ বছরের স্কুলশিক্ষাকে ভাগ করা হয়েছে ৫+৩+৩+৪ ভাগে ৷ ১২ বছর স্কুলের পঠনপাঠন ৷ ৩ বছরের প্রাইমারি - অঙ্গনওয়াড়ি শিক্ষা ৷ এখানে প্রাথমিককেও আনা হচ্ছে স্কুলের আওতায়। ক্লাস ওয়ান ও ক্লাস টু-কে রাখা হচ্ছে প্রি-প্রাইমারির মধ্যে। সূত্রের খবর, ক্লাস নাইন থেকে টুয়েলভ - আটটি সেমেস্টারে পড়াশোনা চলবে। ৪ বছরের মধ্যে ৪০টি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। (ছবিটি সংগৃহীত)

১৫ বছরের স্কুলশিক্ষাকে ভাগ করা হয়েছে ৫+৩+৩+৪ ভাগে ৷ ১২ বছর স্কুলের পঠনপাঠন ৷ ৩ বছরের প্রাইমারি - অঙ্গনওয়াড়ি শিক্ষা ৷ এখানে প্রাথমিককেও আনা হচ্ছে স্কুলের আওতায়। ক্লাস ওয়ান ও ক্লাস টু-কে রাখা হচ্ছে প্রি-প্রাইমারির মধ্যে। সূত্রের খবর, ক্লাস নাইন থেকে টুয়েলভ - আটটি সেমেস্টারে পড়াশোনা চলবে। ৪ বছরের মধ্যে ৪০টি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে। (ছবিটি সংগৃহীত)

অভিভাবকদের কাছে এসএমএস বা ইমেইল মারফত নয়া ফি বৃদ্ধির হিসেব পাঠানো হয়েছে বলেই দাবি। শুধু তাই নয় বর্ধিত ফি অভিভাবকদের ব্যাঙ্ক মারফত তা জমা দিতেও বলা হয়েছে বলে অভিযোগ।

  • Share this:

#কলকাতা: বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রাজ্যের বেশ কয়েকটি বেসরকারি স্কুল ফি বৃদ্ধি নিয়ে কার্যত অনড় মনোভাব দেখাচ্ছেন। অন্তত এমনটাই অভিযোগ  অভিভাবকদের। অভিযোগ রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে নির্দিষ্ট ভাবে নির্দেশিকা জারি করার পরেও একাধিক বেসরকারি স্কুল তা মানতে নারাজ।

অভিভাবকদের কাছে এসএমএস বা ইমেইল মারফত নয়া ফি বৃদ্ধির হিসেব পাঠানো হয়েছে বলেই দাবি। শুধু তাই নয় বর্ধিত ফি অভিভাবকদের ব্যাঙ্ক মারফত তা জমা দিতেও বলা হয়েছে বলে অভিযোগ। রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের কাছে এ বিষয়ে কয়েকটি অভিযোগ জমা পড়েছে বলে সূত্রের খবর।

গত সপ্তাহেই লকডাউন ও করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জেরে বেসরকারি স্কুল গুলিকে ফি না বাড়ানোর আবেদন রাখেন শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আবেদন রাখার পাশাপাশি রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে লিখিতভাবে প্রত্যেকটি বেসরকারি স্কুলগুলির কাছে নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ নির্দেশিকা সত্ত্বেও জেলাগুলির বেশ কয়েকটি বেসরকারি স্কুল তা মানতে নারাজ। কলকাতার কয়েকটি স্কুলের ক্ষেত্রে এই অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে বলেও জানা গেছে। অভিভাবকদের তরফে স্কুল কর্তৃপক্ষ গুলির কাছে ইতিমধ্যেই ফি না বাড়ানোর আবেদন জানানো হয়েছে বলে দাবি অভিভাবকদের।

রাজ্যে ক্রমশই করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে। সারা দেশ জুড়ে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির জেরে আগামী ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে যাতে বেসরকারি স্কুল গুলো এখনই ফি না বাড়ানোর পথে হাঁটেন তার জন্য গত সপ্তাহেই ভিডিওবার্তা মারফত আবেদন রাখেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আবেদনে বেসরকারি স্কুলগুলো সাড়া না দেওয়ায় নজিরবিহীনভাবে নির্দেশিকা জারি করে ফি না বাড়ানোর আবেদন রাখা হয়।

অভিযোগ রাজ্যের নির্দেশিকা সত্ত্বেও কয়েকটি বেসরকারি স্কুল তা মানতে নারাজ। যদিও কলকাতার বেশ কয়েকটি বেসরকারি স্কুল ইতিমধ্যেই ফি বাড়ানোর প্রক্রিয়া স্থগিত রেখেছেন।একদিকে যেমন বেসরকারি স্কুলগুলোর এই মানবিক মুখ উঠে এসেছে তেমনি অন্যদিকে কয়েকটি বেসরকারি স্কুল নির্দেশ অমান্য করেই ফি বাড়ানোর সিদ্ধান্তে অটুট রয়েছে। স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর নির্দেশিকা সত্বেও যে স্কুলগুলির বিরুদ্ধে নির্দিষ্টভাবে অভিযোগ আসবে সেক্ষেত্রে স্কুল শিক্ষা দফতর শাস্তিমূলক পদক্ষেপ নিতে পারে।

 SOMRAJ BANDOPADHAYAY

Published by:Arindam Gupta
First published: