Home /News /kolkata /
Covid19: গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখি বাজারে জনজোয়ার! পুলিশ দিয়ে বন্ধ করা হল দশটায়

Covid19: গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখি বাজারে জনজোয়ার! পুলিশ দিয়ে বন্ধ করা হল দশটায়

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

Shyambazar: কিন্তু কে কার কথা শোনে। যে যার মতো তবুও বিক্রি চালাতে থাকেন। এমনকী মাস্কও ব্যবহার করেননি অনেকে।

  • Share this:

#কলকাতা: শ্যামবাজারে গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখি বাজারের হাটে অতিরিক্ত ভিড়ের কারনে হাট বন্ধ করল শ্যামপুকুর  থানা ও ট্রাফিকের আধিকারিকরা। সঙ্গে ছিলেন পাখি বাজারে ব্যাবসায়ী সমিতির সদস্যরাও। করোনা ক্রমেই ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। কিন্তু তাতেও মানুষের হুঁশ নেই। উত্তর কলকাতার গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখি বাজারের হাট কার্যত জন সমুদ্র ছিল রবিবার। ছিল না কোনও সামাজিক দূরত্ব। বাধ্য হয়েই শেষমেষ পাখির বাজার বন্ধ করল শ্যামপুকুর থানা ও ট্রাফিকের আধিকারিকরা।

তখন সকাল নটা। ভিড়ে থিক  থিক করছে বাজার। কেউ বদ্রি কিনতে ব্যস্ত, কেউ টিয়া কিনতে ব্যস্ত। বারবার পুলিশের তরফে চলছে ঘোষণা, মাইকিং। তবু চারশো জন যেতে বললেও সেখানে কয়েক হাজার মানুষ ঢুকে পড়ছে।শেষে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশের তরফে পাখি বাজার বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। সহমত পোষণ করেন ব্যাবসায়ী সমিতি সদ্যস্যরাও।

আরও পড়ুন - সমুদ্রের মধ্যে ফেটে পড়ল আগ্নেয়গিরি, ধেয়ে আসছে সুনামি, উপগ্রহ মারফত ধরা পড়ল মারণ ছবি

কিন্তু কে কার কথা শোনে। যে যার মতো তবুও বিক্রি চালাতে থাকেন। এমনকী মাস্কও ব্যবহার করেননি অনেকে। মাস্ক ঝুলেছে থুতনিতে। সেই কারণেই পুলিশের নির্দেশ সত্ত্বেও  বেলা সাড়ে এগারোটা বেজে গিয়েছে, তবুও কমেনি ভিড়।  শেষমেশ শ্যামপুকুর থানা ও ট্রাফিকের তরফে অভিযান শুরু হয়। পাখি বিক্রেতাদের ধমক দেন পুলিশ আধিকারিকরা। সঙ্গে ছিলেন ব্যাবসায়ী সমিতি সদস্যরাও। শেষ পর্যন্ত পুলিশের ধমক খেয়ে পাত্তাড়ি গোটাতে শুরু করেন বিক্রেতারা। ক্রেতাদের জনজোয়ারের আকারও ধীরে ধীরে হালকা হতে শুরু করে। পুলিশের ধমকে কেউ কেউ খাঁচা নিয়ে কোনও ক্রমে দৌড়ে পালান, কেউ আবার গাছপালা নিয়ে গাড়িতে তুলে ছুট দেন।

আরও পড়ুন -  জঙ্গলের মধ্যে লুকিয়ে মানুষ! এ ছবিতে মানুষের মুখ কোথায়? দিশেহারা নেটিজেনরা

ট্রাফিক সার্জেন্ট কুন্তল দেবনাথ জানান, "গ্যালিফ স্ট্রিটের পাখি হাটে বেশি ভিড়ের কারণে দুদিকে গার্ড রেল দিয়ে হাটের ৭- ৮টি ঢোকার পথ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। একসঙ্গে ৩০০-এর বেশি যাতে লোক যাতে না যেতে পারেন, তারও ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিক্রেতাদের ৫০ শতাংশ এক রবিবার ও  পরের ৫০ শতাংশ পরের রবিবার বসার জন্য বলা হয়েছে। সকাল দশটার পর পাখি বাজার বন্ধ করা হয়েছে করোনা পরিস্থিতি জন্য। তবে এখনও যাঁরা শুনছেন না, তাঁদেরকে উঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে ও পরবর্তীতে যথাযোগ্য ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"

Arpita Hazra

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Coronavirus

পরবর্তী খবর