পুরভোটে বিজেপির মেয়র মুখ শোভন? নাড্ডাকে ফোনে বাড়ল জল্পনা

পুরভোটে বিজেপির মেয়র মুখ শোভন? নাড্ডাকে ফোনে বাড়ল জল্পনা
সংগৃহীত ছবি

অভিমান ভুলে পুর ভোটের মুখে ফের গেরুয়া শিবিরে সক্রিয় হচ্ছেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: দিন দু'য়ের আগে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিধানসভা এলাকার দায়িত্ব রত্না চট্টোপাধ্যায়ের হাতে তুলে দিয়েছে দিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব। রত্নাকে পাশে বসিয়ে সেই গুরুদায়িত্ব সঁপে দিয়েছেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আর তারপরই অভিমান ভুলে পুর ভোটের মুখে ফের গেরুয়া শিবিরে সক্রিয় হচ্ছেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁর। এমনকি রাজ্যের এক বিজেপি নেতাও শোভনকে সক্রিয় করে যথেষ্ট তৎপর। বিজেপি সূত্রে খবর, বঙ্গ বিজেপি নেতাদের শোভনকে সক্রিয় করার বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিয়েছেন নাড্ডা।

এদিকে, মঙ্গলবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন শোভন-বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক শেষে বৈশাখী জানিয়েছেন, শোভন কোথায় সক্রিয় হবেন তা তাঁর একান্ত ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। বিজেপি যদি শোভনকে সক্রিয় করতে চায়, সেক্ষেত্রে তিনি বড়জোর একটা ধন্যবাদ দিতে পারেন। তবে শোভন ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন, কলকাতার প্রাক্তন মেয়রের ওয়ার্ডে রত্না চট্টোপাধ্যায়কে প্রচারের দায়িত্ব দেওয়ায় শোভন যে অসন্তুষ্ট, পার্থকে সে কথা জানিয়ে এসেছেন বৈশাখী। যদিও শোভনের বান্ধবীর সঙ্গে বৈঠকে রাজনীতি নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি বলে দাবি করে শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূলের মহাসচিব জানিয়েছেন, ‘বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে মিল্লি আল আমিন কলেজের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’

গত বছর অগস্ট মাসে বান্ধবী বৈশাখীকে নিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখান শোভন। কিন্তু মাস ঘুরতে না ঘুরতেই মোহভঙ্গ হয়। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং তাঁর অনুগামীদের কদর্য আক্রমণের মুখে পড়েন শোভন-বৈশাখী। তারপর থেকে নিজেকে পুরোপুরি গুটিয়ে নিয়েছিলেন। বিজেপি নেতা মুকুল রায় বেশ কয়েকবার তাঁদের অভিমান ভাঙানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু লাভ হয়নি। চালিয়েছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা। কিন্তু সফল হতে পারেননি। বরং বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলের দিকে ফের ঝুঁকতে শুরু করেছিলেন কলকাতার প্রাক্তন মহানাগরিক।

First published: March 10, 2020, 9:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर