corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাড়ি থেকে নিজের স্ত্রী’কেও তাড়িয়ে ছিল মানসিক রোগী শিবকুমার গুপ্ত!

বাড়ি থেকে নিজের স্ত্রী’কেও তাড়িয়ে ছিল মানসিক রোগী শিবকুমার গুপ্ত!

প্যারাসাইকো রোগীরা যে রকম ভাবে ঘটনার পর নিজের ভুল বুঝতে পারে এবং ভেঙে পড়ে, সত্যি কথা বলে, এ ক্ষেত্রেও অন্যথা হয়নি ।

  • Share this:

SHANKU SANTRA

#কলকাতা:  এই শতকের নরকীয় ভয়ঙ্কর নৃশংস ঘটনা বড়বাজারের বেদ মার্কেটে ঘটে গেল। ঘটনায় হতবাক প্রত্যেকটি নাগরিক। ৫৫ বছরের বৃদ্ধ দুই শিশুকে পাঁচতলা থেকে ছুড়ে ফেলা হল। বছর দেড়েকের শিশুটি ঘটনাস্থলেই মারা যায়। ছয় বছরের শিশুটি এখনও পর্যন্ত কলকাতার নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

শিবকুমার গুপ্ত (৫৫) ১১৩ নম্বর এন এস রোডে পাঁচ তলায় থাকেন। ওই বিল্ডিংয়ে প্রথম তলা থেকে চতুর্থ তোলা অবধি সমস্তটাই দোকান এবং অফিস। পাঁচ তলাতে বেশ কয়েকটি পরিবার থাকে। তার মধ্যে এই শিবকুমার থাকেন। অভিযোগকারী পরিবার বিক্রম সাউ ও বুধন সাউ ওই তলাতেই থাকে।  শিবকুমারের বন্ধুবান্ধব এবং প্রতিবেশীদের কথায় ও খুব বদ মেজাজী। সাত থেকে আট বছর আগে স্ত্রীকে প্রচণ্ড মারধোর করার ফলে, স্ত্রী বাড়ি ছেড়ে চলে যায়। প্রতিবেশীদের কথায়, শিবকুমার মদ পান করলে হিতাহিত জ্ঞান থাকে না। যখন-তখন, যেখানে-সেখানে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ে। মারধোর করা এবং মারামারি করা এটা তো লেগেই থাকে।  শিবকুমার বেনারস থেকে কাঁসা-পেতলের ছাট এনে, বড়বাজারে সরবরাহ করে। রোজগার বেশ ভালোই। পাঁচ তলার বারান্দায় ছোট্ট শিশুগুলি খেলাধুলা করে, ছোটাছুটি করে, আবার কখনও শিবকুমারের দরজায় ঠকঠক করে শব্দ করে। শিবকুমারের দরজা খোলা থাকলে ঘরের ভেতরে ঢুকে বাচ্চাগুলি খেলে। অনেক সময় হয়তো দেড় বছরের বাচ্চাটি ঘরে মলমূত্র ত্যাগও করেছে। এইসবে শিবকুমারের বরাবরের আপত্তি ।

১০দিন আগে দেড় বছরের শিশুটিকে শিবকুমার দু’টো চড় মারে। সেই সময় শিশুটির বাবা বিক্রম ও বিক্রমের বাবা বুধনের সঙ্গে রীতিমতো ঝগড়া হয়। তখন শিবকুমার নাকি হুমকি দিয়েছিল, বিক্রমের ছেলেকে পাঁচতলা থেকে ছুড়ে ফেলে দেবে। আর সেটাই হল।  বিশেষজ্ঞদের ধারণা, শিবকুমার প্যারাসাইকো রোগী। ওর সাংসারিক গোলযোগ ছিলই। সবাইয়ের সঙ্গে কথা বলতো না। একাই থাকতে পছন্দ করত। স্বাভাবিকভাবে ওকে কেউ কিছু জিজ্ঞাসা করতে গেলে তাঁর উপর চেঁচিয়ে উঠত।  এই দুই পরিবারের মধ্যে কোন ব্যাবসায়িক গন্ডগোল কিংবা অন্য কোন শত্রুতা ছিল না। সাউ পরিবার গাড়ি চালিয়ে ভ্যান টেনে সংসার চালায়। তবে শিবকুমার গুপ্তার আচরণ নিয়ে প্রত্যেকটি মানুষের বিরক্তি রয়েছে আগে থেকেই।

প্যারাসাইকো রোগীরা যে রকম ভাবে ঘটনার পর নিজের ভুল বুঝতে পারে এবং ভেঙে পড়ে, সত্যি কথা বলে, এ ক্ষেত্রেও অন্যথা হয়নি- মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে নৃশংস ভাবে তিনটি শিশুকে ওপর থেকে ফেলে দেওয়া, এটা স্বাভাবিক মানুষের কাজ নয়।

Published by: Simli Raha
First published: June 16, 2020, 8:40 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर