Home /News /kolkata /
Howrah: ছিল গির্জা, হল স্টেশন! একটি লাইন, একটি বাড়ি নিয়ে হওড়ার যাত্রা শুরু, উঠছে ইতিহাস

Howrah: ছিল গির্জা, হল স্টেশন! একটি লাইন, একটি বাড়ি নিয়ে হওড়ার যাত্রা শুরু, উঠছে ইতিহাস

প্রাচীন ও আধুনিকতার মেলবন্ধন হাওড়া স্টেশন

প্রাচীন ও আধুনিকতার মেলবন্ধন হাওড়া স্টেশন

Howrah: বর্তমান হাওড়া স্টেশন তৈরির আগে ছিল গির্জা। ১৮৫৪ সালে একটি মাত্র প্ল্যাটফর্ম দিয়ে শুরু হয় রেল চলাচল।১৯০১ সালে হাওড়া স্টেশনের বর্তমান বাড়ির কাজ শুরু হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি নিয়ে দেশজুড়ে নানা আবেগ। এরই মধ্যে হাওড়া স্টেশনে মাটি খুঁড়ে দেখা মিলল প্রায় ১৬২ বছরের পুরনো রেল লাইনের। ১৮৫৪ সালের ১৫ অগাস্ট হাওড়া থেকে শ্রীরামপুর শুরু হয় রেল চলাচল। ৯১ মিনিটের রেল যাত্রা বদলে দেয় ভারতীয় পরিবহণের ইতিহাস।সেই হাওড়া স্টেশনেই ফের খোঁজ মিলল ঐতিহাসিক রেল লাইনের। হাওড়া স্টেশনে তৈরি হচ্ছে নয়া মেট্রো স্টেশন।আর সেই মেট্রো স্টেশনের পথ বানাতে গিয়েই খোঁজ মিলেছে এই লাইনের।বর্তমান ডি আর এম বিল্ডিংয়ের কাছেই মাটির নীচে রয়েছে লুকানো ইতিহাস। ১৮৫৪ সালের ১৫ আগস্ট রেল চলাচল শুরু হয়। ঠিক ৯৩ বছর পর ১৫ আগস্ট স্বাধীন হয় দেশ।সেই স্বাধীনতার ৭৫ বছরে লাইন উদ্ধারে খুশি রেল গবেষকরা।

আরও পড়ুন- গত ৩০ বছরে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা! হড়পা বানে পাকিস্তানে মৃত ৫৫০ মানুষ

বর্তমান হাওড়া স্টেশন তৈরির আগে ছিল গির্জা। ১৮৫৪ সালে একটি মাত্র প্ল্যাটফর্ম দিয়ে শুরু হয় রেল চলাচল।১৯০১ সালে হাওড়া স্টেশনের বর্তমান বাড়ির কাজ শুরু হয়। ১৯০৬ সালে শেষ হয় সেই কাজ।যে লাইন উদ্ধার হয়েছে তা হাওড়া স্টেশনের তৃতীয় প্ল্যাটফর্ম বলে মনে করা হচ্ছে। ১৬২ বছর পরে আজ এখানে গুডস শেড। কিছুদিনের মধ্যেই দৌড়বে মেট্রো তার নীচ দিয়ে। প্রথমদিকের স্টেশন বলতে বিরাট কিছু ছিল না। তখন হাওড়াকে জংশন স্টেশন হিসেবেও ভাবা হয়নি। একটি মাত্র প্ল্যাটফর্ম; আর সঙ্গে ছিল লাল ইটের একতলা একটি বাড়ি। সেটিই ছিল আদি হাওড়া স্টেশন। ভেতরে একটিই ছোটো জানলা ছিল, সেখান দিয়েই টিকিট সংগ্রহ করতে হত। সেই সঙ্গে তৈরি হল কিছু টিনের ঘর। ওগুলোই ইঞ্জিন মেরামতের কারখানা। এ ছাড়াও ছিল একটি স্টোর রুম। ব্যস, এই হল প্রথম হাওড়া স্টেশনের রূপ।

আরও পড়ুন- 'সিদ্ধান্ত জানান', উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আগে শিশির-দিব্যেন্দুকে চিঠি তৃণমূলের

এখন শুধু রয়ে গিয়েছে প্রথম লাইনটি রয়ে গেছে। এখনকার হাওড়া স্টেশনের ১৭ নম্বর লাইনটিই হল সেই লাইন। তবে শুধু পার্সেল গাড়ি আসে এখন। ১৯০১ সাল নাগাদ বর্তমান হাওড়া স্টেশনের লাল বাড়িটির কাজ শুরু হয়। যা শেষ হয় ১৯০৬ সালে। গঙ্গাই ছিল একমাত্র ভরসা। আর্মেনিয়ান ঘাটে তৈরি করা হয় রেলের টিকিট কাউন্টার। সেখান থেকেই টিকিট কেটে রেল কোম্পানির লঞ্চে করে ওপারে যাওয়া হত। উল্লেখ্য, এই ক্ষেত্রে লঞ্চের ভাড়া রেলের ভাড়ার সঙ্গেই জুড়ে থাকত। আলাদা করে কিছু দিতে হত না।এই লাইন উদ্ধার ঘিরে খুশি পূর্ব রেলের আধিকারিকরা।মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী জানিয়েছেন, "আমরা উদ্ধার হওয়া অংশটিকে সংরক্ষণ করার ব্যবস্থা করছি। হাওড়া রেল মিউজিয়ামে রাখার ব্যবস্থা করা হবে।"

আবীর ঘোষাল
Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Howrah Station

পরবর্তী খবর