• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • শিশু চুরির ঘটনার পর মেডিক্যালে নিরাপত্তার কড়াকড়ি

শিশু চুরির ঘটনার পর মেডিক্যালে নিরাপত্তার কড়াকড়ি

মেডিক্যালে শিশু চুরির পর নিরাপত্তা বাড়ছে সরকারি হাসপাতালগুলির।

মেডিক্যালে শিশু চুরির পর নিরাপত্তা বাড়ছে সরকারি হাসপাতালগুলির।

মেডিক্যালে শিশু চুরির পর নিরাপত্তা বাড়ছে সরকারি হাসপাতালগুলির।

  • Share this:

    #কলকাতা: মেডিক্যালে শিশু চুরির পর নিরাপত্তা বাড়ছে সরকারি হাসপাতালগুলির। মেডিক্যাল কলেজগুলি ছাড়াও অন্য সরকারি হাসপাতালের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের কমিটি গঠন। স্বাস্থ্যসচিব, ডিজি ও সিপিকে নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে আরও একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নিরাপত্তা আঁটোসাটো করতে একাধিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেডিক্যালের রোগী কল্যাণ সমিতিও।

    মেডিক্যালে শিশু চুরির জেরে আঁটোসাটো হচ্ছে সরকারি হাসপাতালের নিরাপত্তা ৷ নিরাপত্তা ব্যবস্থা  খতিয়ে দেখতে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন ছাড়াও, কলকাতা মেডিক্যালে আয়ারাজ বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ ৷

    মেডিক্যালে শিশু চুরির জেরে বাড়ছে সরকারি হাসপাতালের নিরাপত্তা। নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে পুলিশ-প্রশাসনের উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

    নবান্নের স্বাস্থ্য বৈঠকে সিদ্ধান্ত - স্বাস্থ্যসচিব, ডিজি ও সিপিকে নিয়ে ৩ সদস্যের কমিটি - মেডিক্যাল কলেজ ও সরকারি হাসপাতালের নিরাপত্তায় নজর - হাসপাতালে আরও সিসিটিভি বসছে - পুলিশ ও নিরাপত্তারক্ষীর সংখ্যা বাড়ছে - মেডিক্যাল কলেজে থেকে ব্লক হাসপাতালের নিরাপত্তায় জোর

    পুলিশের পাশাপাশি আলাদা ভাবে শিশু চুরিতে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে মেডিক্যাল কলেজও। প্রসূতি বিভাগের প্রধানের নেতৃত্বে তদন্তের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের নিরাপত্তা জোরদার করতে একাধিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে রোগী কল্যাণ সমিতি।

    নিরাপত্তায় জোর - কলকাতা মেডিক্যালে আয়া বন্ধের সিদ্ধান্ত - রোগীর ১ জন আত্মীয়কে সচিত্র পরিচয়পত্র - পরিচয়পত্র ছাড়া আত্মীয় বলে কেউ থাকতে পারবেন না - আরও সিসিটিভি বসানো হবে - খারাপ সিসিটিভি সারানোর উদ্যোগ - মাসে একবার সিসিটিভি পরীক্ষা

     হাসপাতালকর্মীদের গাফিলতি ছাড়া শিশু চুরি সম্ভব নয়। তাই নিরাপত্তা আঁটোসাটো করতে হাসপাতালের কর্মী থেকে লিফট বয় সকলের উপরই নজর রাখা হবে। রোগী কল্যাণ সমিতির বৈঠকে এই সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে।

    First published: