• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • মার্চ মাসে শিক্ষকরা বেতন পাবেন নির্দিষ্ট সময়েই

মার্চ মাসে শিক্ষকরা বেতন পাবেন নির্দিষ্ট সময়েই

নয়া ব্যবস্থায় ‘গুরুত্বহীন’ মাধ্যমিক ৷ একাদশ-দ্বাদশে কোনও স্ট্রিম থাকবে না ৷ উচ্চমাধ্যমিকে কলা ও বিজ্ঞান তফাৎ থাকছে না ৷ বিষয় বাছাইয়ে বাধ্যবাধকতাও থাকছে না ৷ অর্থাৎ কেউ পদার্থবিদ্যার সঙ্গে চাইলে সঙ্গীত নিয়েও পড়তে পারেন। রসায়ন আর ইতিহাস একসঙ্গে পড়া যাবে।

নয়া ব্যবস্থায় ‘গুরুত্বহীন’ মাধ্যমিক ৷ একাদশ-দ্বাদশে কোনও স্ট্রিম থাকবে না ৷ উচ্চমাধ্যমিকে কলা ও বিজ্ঞান তফাৎ থাকছে না ৷ বিষয় বাছাইয়ে বাধ্যবাধকতাও থাকছে না ৷ অর্থাৎ কেউ পদার্থবিদ্যার সঙ্গে চাইলে সঙ্গীত নিয়েও পড়তে পারেন। রসায়ন আর ইতিহাস একসঙ্গে পড়া যাবে।

রাজ্যজুড়ে করোনা আতঙ্ক থাকলেও স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মার্চ মাসের বেতন নির্দিষ্ট সময়েই হচ্ছে।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যজুড়ে করোনা আতঙ্ক থাকলেও স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মার্চ মাসের বেতন নির্দিষ্ট সময়েই হচ্ছে। মঙ্গলবার এমনই খবর রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তর সূত্রে। আগামী ২রা এপ্রিল থেকেই স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হবে। স্কুল শিক্ষা দপ্তর সূত্রে খবর ইতিমধ্যেই প্রত্যেকটি জেলার স্কুল বিদ্যালয় পরিদর্শক নির্দিষ্ট বিল প্রত্যেকটি জেলার ট্রেজারিতে জমা দিয়েছেন। যদিও প্রত্যেক বছর এই মার্চ মাসের বেতন পেতে সামান্য দেরি হয় স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের। কারন রাজ্যের আর্থিক বর্ষ মার্চ মাস থেকে শুরু হয় ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত থাকে।তাই প্রত্যেক বছরেই মার্চ মাসের বেতন শিক্ষকরা পেয়ে থাকেন এপ্রিল মাসে। অন্যদিকে পয়লা এপ্রিল যেহেতু ব্যাঙ্কগুলির ক্লোসিং ডে তাই ২ রা এপ্রিলের পর থেকেই ব্যাঙ্কগুলি মারফত বেতন পান শিক্ষক-শিক্ষিকারা। এ বছরেও ২রা এপ্রিল বা তার পরের দিন অর্থাৎ ৩ রা এপ্রিল এর মধ্যেই শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়া শেষ করা সম্ভব হয়ে যাবে বলেই আশাবাদী স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকরা।

গত মাসে রাজ্যের স্কুলগুলির শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতন দিতে দেরি হয়। যা নিয়ে তুমুল আলোড়ন পড়ে যায় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মধ্যে। শুরু হয় অর্থ দপ্তর- শিক্ষা দপ্তরের মধ্যে পারস্পরিক দোষারোপের পালা।তবে মার্চ মাসের গোড়াতেই শিক্ষকদের বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়ায় দ্রুত শেষ করে রাজ্য অর্থ দপ্তর। আর তুই মার্চ মাসের শিক্ষকদের বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়া নিশ্চিত করতে যথেষ্ট সতর্ক স্কুল শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকরা। বিশেষত করোনাভাইরাস আতঙ্কের জেরে বর্তমানে রাজ্যের স্কুল গুলি আগামী ১৫ই এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও রাজ্যের প্রত্যেকটি জেলার স্কুল বিদ্যালয় পরিদর্শক দের বিশেষভাবে বেতন নিয়ে সতর্ক থাকতে বলা হয় স্কুল শিক্ষা দপ্তরের তরফে।

স্কুল শিক্ষা দপ্তর সূত্রে খবর ইতিমধ্যেই রাজ্যের স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়ে গেছে। ২রা এপ্রিল থেকে রাজ্যের তুলনামূলক ছোট জেলাগুলির শিক্ষক-শিক্ষিকারা মার্চ মাসের বেতন পেয়ে যাবেন। যদিও উত্তর ২৪ পরগনার মধ্যে পরে জেলাগুলির ক্ষেত্রে ৩ তারিখের মধ্যেই পুরো বেতন দেওয়ার প্রক্রিয়া শেষ হবে।

Published by:Akash Misra
First published: