• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • শিক্ষিকার মারে আহত দমদম সেন্ট স্টিফেন্সের ছাত্রীর বাড়ি প্রতিনিধিদল

শিক্ষিকার মারে আহত দমদম সেন্ট স্টিফেন্সের ছাত্রীর বাড়ি প্রতিনিধিদল

শিক্ষিকার মারে আক্রান্ত শৈশব ৷ স্কুলে সামান্য একটা ছোট্ট ভুল ৷ কিন্তু ছোট ভুলেই বড় শাস্তি। পরীক্ষার খাতায় রোল নম্বর ভুল লেখায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে সপাটে চড় মারেন স্কুল শিক্ষিকা ৷

শিক্ষিকার মারে আক্রান্ত শৈশব ৷ স্কুলে সামান্য একটা ছোট্ট ভুল ৷ কিন্তু ছোট ভুলেই বড় শাস্তি। পরীক্ষার খাতায় রোল নম্বর ভুল লেখায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে সপাটে চড় মারেন স্কুল শিক্ষিকা ৷

শিক্ষিকার মারে আক্রান্ত শৈশব ৷ স্কুলে সামান্য একটা ছোট্ট ভুল ৷ কিন্তু ছোট ভুলেই বড় শাস্তি। পরীক্ষার খাতায় রোল নম্বর ভুল লেখায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে সপাটে চড় মারেন স্কুল শিক্ষিকা ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: শিক্ষিকার মারে আক্রান্ত শৈশব ৷ স্কুলে সামান্য একটা ছোট্ট ভুল ৷ কিন্তু ছোট ভুলেই বড় শাস্তি। পরীক্ষার খাতায় রোল নম্বর ভুল লেখায় চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে সপাটে চড় মারেন স্কুল শিক্ষিকা ৷ আঘাতের জেরে ছুটতে হয় হাসপাতালে ৷ বৃহস্পতিবার এই ঘটনাই ঘটে দমদম সেন্ট স্টিফেন স্কুলে ৷

    শুক্রবার আহত ওই ছাত্রীর সঙ্গে দেখা করতে তাঁর বাড়িতে যান স্কুলের প্রতিনিধিরা ৷ তাদের সঙ্গে ছিলেন চার্চ অব নর্থ ইন্ডিয়ার প্রতিনিধিরাও ৷ স্কুলের তরফে ছাত্রীর পরিবারের কাছে দুঃখপ্রকাশ করেন তাঁরা ৷ স্কুলে শিক্ষিকার মারে কানে গুরুতর আঘাত পায় ওই ছাত্রী ৷ সেন্ট স্টিফেন্সের টিচার ইনচার্জ সুমিতা সিং বলেন, ‘শিক্ষিকার আচরণ ঠিক ছিল না ৷’ ছাত্রীটিকে একটি বইও উপহার দেন তিনি ৷

    দমদমের সেন্ট স্টিফেন্স স্কুলের ওই শিক্ষিকাকে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। অভিযুক্ত শিক্ষিকা পিউষ মালাকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ায় খুশি ছাত্রীর মা-ও ৷

    খুদে পড়ুয়াকে শাস্তি দিতে মারধর। দমদম গোরাবাজারের সেন্ট স্টিফেন্স স্কুলের ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে এর আগেও নাকি এমন মারধরের অভিযোগ ওঠে। । কিন্তু কর্তৃপক্ষ নাকি সেইসময় কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি বলে অভিযোগ করেছিল ছাত্রীর পরিবার ৷

    স্কুল কর্তৃপক্ষ জবাব দেয় , বিষয়টি গুরুত্ব দিয়েই দেখা হচ্ছে। তদন্ত কমিটি তৈরি করার পাশাপাশি, অনির্দিষ্ট কালের জন্য অভিযুক্ত শিক্ষিকা পিউষ মালাকারকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। চার্চ অফ নর্থ ইন্ডিয়ার বারাকপুরের আধিকারিকদের কাছ থেকে এই ঘটনার রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে বিশপ হাউজও।

    First published: