Home /News /kolkata /
চাকরি কই? রক্তদান করে অভিনব প্রতিবাদ কর্মসূচি উচ্চ প্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীদের

চাকরি কই? রক্তদান করে অভিনব প্রতিবাদ কর্মসূচি উচ্চ প্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীদের

নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব চিত্র

মঙ্গলবার উচ্চ প্রাথমিকের চাকরির প্রার্থীরা নিয়োগ বঞ্চনার প্রতিবাদে রক্তদান কর্মসূচি পালন করেন। মৌলালি স্টুডেন্টস হেলথ হোমে এই কর্মসূচি পালন হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: উচ্চ মাধ্যমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়া দীর্ঘ আট বছর ধরে থমকে রয়েছে। দ্রুত নিয়োগের দাবিতে একাধিকবার আন্দোলন কর্মসূচি করেছেন চাকরি প্রার্থীরা। এ বার রক্তদান করে অভিনব প্রতিবাদ কর্মসূচি করলেন উচ্চ প্রাথমিকের চাকরি প্রার্থীদের একাংশ। মৌলালি স্টুডেন্ট হেলথ হোমে এই রক্তদান কর্মসূচি করেন চাকরিপ্রার্থীরা। ৫০ জনেরও বেশি উচ্চ প্রাথমিকের চাকরি প্রার্থীরা এ দিন রক্তদান কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। চাকরিপ্রার্থীদের তরফে অভিযোগ দীর্ঘ আট বছর ধরেও উচ্চ প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়নি। চাকরিপ্রার্থীদের তরফে সুশান্ত ঘোষ বলেন " দুবার ইন্টারভিউ দেওয়ার পরেও বিভিন্ন অজুহাতে নিয়োগ করেনি স্কুল সার্ভিস কমিশন। দীর্ঘ এই নিয়োগ বঞ্চনার প্রতিবাদে আমরা আজ রক্তদান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে প্রতিবাদ আন্দোলনে সামিল হয়েছি।" যদিও পুজোর আগেই এই নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করার দাবি রেখেছেন চাকরিপ্রার্থীরা।

প্রসঙ্গত ২০১৪ সালে উচ্চ প্রাথমিকের এই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করে স্কুল সার্ভিস কমিশন। যদিও মেরিট লিস্ট প্রকাশ করেও দুর্নীতি ও অস্বচ্ছতার অভিযোগে কলকাতা হাইকোর্ট সেই মেরিট লিস্ট বাতিল করে দেয়। নতুন করে ফের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে বলে কলকাতা হাইকোর্ট। সেই মোতাবেক প্রায় আড়াই বছরেরও বেশি সময়সীমা ধরে নয়া নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করেছে এসএসসি। কিন্তু তার পর করোনা পরিস্থিতির জেরে কিছুটা নিয়োগ প্রক্রিয়া থমকে যায়। যদিও সে ধাক্কা সামলে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া ফের শুরু করলে একাধিক জটিলতায় এখনও আটকে রয়েছে উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া।

আরও পড়ুন : নয়া মন্ত্রীদের কি বার্তা দেবেন মুখ্যমন্ত্রী? নজরে বৃহস্পতিবারের মন্ত্রিসভার বৈঠক

আরও পড়ুন : সুখবর! মোদি সরকারের বিশাল উপহার! ভোজ্য তেলের MRP-তে এবার অতিভারী পতন, ব্যাপক সস্তা হতে চলেছে রান্নার তেলের দাম

সম্প্রতি হাইকোর্টের নির্দেশে নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে সিবিআই তদন্ত নেওয়ার পর আরও থমকে গেছে উচ্চ প্রাথমিকের নিয়োগ প্রক্রিয়া। যদিও হাইকোর্টের নির্দেশ মোতাবেক অভিযোগকারী চাকরিপ্রার্থীদের মধ্য থেকে প্রায় দেড় হাজার চাকরিপ্রার্থী ইন্টারভিউ নিতে হবে। পাশাপাশি অভিযোগকারী চাকরিপ্রার্থীদের মধ্য থেকে যাঁরা ডকুমেন্ট আপলোডের সুযোগ পাননি তাঁদেরও ডকুমেন্ট আপলোডে সুযোগ দিয়েছে সম্প্রতি এসএসসি। সে ক্ষেত্রে তাঁদের মধ্য থেকেও কেউ ইন্টারভিউয়ের যোগ্য বলে বিবেচিত হলে তাঁদেরও ইন্টারভিউতে ডাকতে হবে এসএসসিকে। ফলে সম্প্রতি নিয়োগ প্রক্রিয়ায় এক ধাপ এগোল এও এখনও অনেকটাই সময় লাগবে বলেই মনে করছেন এসএসসি আধিকারিকরা। যদিও উচ্চ প্রাথমিকের প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার শূন্য পদে নিয়োগ দ্রুত করতে চায় এসএসসি। সে ক্ষেত্রে পুজোর আগে নিয়োগ প্রক্রিয়া কতটা শেষ করা যাবে তা নিয়ে সন্দিহান এসএসসি আধিকারিকরাও।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: SSC Scam

পরবর্তী খবর