corona virus btn
corona virus btn
Loading

চেকিং এড়াতে পুলিশকর্মীকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে গেল চলন্ত বাইক, এখনও অধরা বাইকআরোহী

চেকিং এড়াতে পুলিশকর্মীকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে গেল চলন্ত বাইক, এখনও অধরা বাইকআরোহী

কলকাতার রাস্তা। রাত হলেই মহানগরীর রাজপথ যেন রেসিং জোন। শুরু হয়ে যায় হেলমেটহীন দুরন্ত গতির বাইকের দাপাদাপি। যেন বেপরোয়া হওয়ার লড়াই।

  • Share this:

#কলকাতা: কলকাতার রাস্তায় ফের হেলমেটহীন বেপরোয়া বাইকের দৌরাত্ম্য। বেকবাগানে বেপরোয়া বাইকচালক এক বৃদ্ধকে ধাক্কা মারতে যায়। বাইকটি ধরে ফেলেন কনস্টেবল তপন ওরাং। তাতেও ওই বাইকচালক না থেমে কনস্টেবলকে বাইকের সঙ্গেই টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায়। হাতে-পায়ে গুরুতর চোট লেগেছে কনস্টেবলের। অভিযুক্ত বাইকচালক বেপাত্তা।

কলকাতার রাস্তা। রাত হলেই মহানগরীর রাজপথ যেন রেসিং জোন। শুরু হয়ে যায় হেলমেটহীন দুরন্ত গতির বাইকের দাপাদাপি। যেন বেপরোয়া হওয়ার লড়াই।

বেপরোয়া বাইক দৌরাত্ম্য ঠেকাতে কয়েকদিন ধরেই রুটিনমাফিক টহল দিচ্ছে পুলিশ। সোমবার রাতে যৌথ অভিযান চালাচ্ছিল ইস্ট ট্রাফিক গার্ড ও কড়েয়া থানা। তখনই বেপরোয়া বাইক আটকাতে গিয়ে গুরুতর জখম কলকাতা পুলিশের কনস্টেবল।

বেকবাগান এলাকায় ডিউটি করছিলেন কনস্টেবল তপন ওরাং। তিনি দেখেন, পার্ক সার্কাস থেকে গড়িয়াহাটের দিকে বেপরোয়া গতিতে এগোচ্ছে হেলমেটহীন বাইক। কোয়েস্ট মলের সামনে এক বৃদ্ধকে ধাক্কা মারতে যায় বাইকটি। তিনি থামাতে গেলেও বাইকচালক থামেনি। চলন্ত বাইকটি ধরে ফেলেন কনস্টেবল। ওইভাবেই কিছুটা রাস্তা কনস্টেবলকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায় বেপরোয়া বাইকচালক।

কনস্টেবলের হাতে ও পায়ে গুরুতর চোট লাগে। ন্যাশনাল মেডিক্যালে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁকে। কড়েয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করে ইস্ট ট্রাফিক গার্ড। এরপর

- ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ থেকে বাইকের নম্বর চিহ্নিত করা হয়

- তবে কেন বাইকচালককে গ্রেফতার করা যায়নি, তার সদুত্তর নেই

কয়েকদিন আগে রাতের কলকাতায় প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়ার গাড়ি ঘিরে ধরে হেলমেটহীন বাইক চালকরা। গ্রেফতার হয় অভিযুক্তরা।

এক সপ্তাহ আগেই পার্ক সার্কাসে হেলমেটহীন বাইক আটকাতে গিয়ে আহত হন ট্রাফিক সার্জেন্ট ইয়ার মহঃ বিশ্বাস। বাইক আরোহী তাঁকে মুখে ঘুসি মারে বলে অভিযোগ। ইট ছুড়ে মারারও চেষ্টা হয়। গ্রেফতার হয় অভিযুক্তরা। লালবাজার সূত্রে খবর,

- শুক্রবার পর্যন্ত ৯ হাজার ৬০০-র বেশি বাইক ধরা পড়েছে

- এর মধ্যে ২০০ বাইক বাজেয়াপ্ত হয়েছে

- বেশিরভাগের বিরুদ্ধে বেপরোয়া ও হেলমেটহীন থাকার অভিযোগ

- মত্ত অবস্থায় বাইক চালানো বা তিনজনে একই বাইকে থাকার অভিযোগও আছে

পুলিশি টহলদারি চলছে নিয়ম করেই। বেপরোয়া বাইকচালকরা ধরাও পড়ছে। বেপরোয়া বাইক ধরতে গিয়ে কখনও আক্রান্ত হচ্ছে পুলিশও। কিন্তু, হেলমেট না পরা আর উদ্দাম গতির নেশা থামছে কই? কবে ফিরবে হুঁশ? প্রশ্ন উঠছে।

First published: July 3, 2019, 10:40 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर