মাথায় গভীর ক্ষত, সাতসকালে কলকাতার বাঘাযতীন ব্রিজে উদ্ধার ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ

Representative Image

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন সকাল ৬টা নাগাদ বাঘাযতীন ব্রিজে এক অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন এলাকাবাী৷ বাঘাযতীন ব্রিজের পাটুলিগামী ফ্ল্যাঙ্কের কাছে দেহটি পড়েছিল৷

  • Share this:

    #কলকাতা: বাঘাযতীন ব্রিজে উদ্ধার হল এক রিকশাচালকের রক্তাক্ত দেহ৷ শনিবার সকালে বাঘাযতীন ব্রিজে উদ্ধার হয় এক ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ৷ তাঁর মাথায় গভীর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে৷

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন সকাল ৬টা নাগাদ বাঘাযতীন ব্রিজে এক অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যক্তির রক্তাক্ত দেহ পড়ে থাকতে দেখেন এলাকাবাসী৷ বাঘাযতীন ব্রিজের পাটুলিগামী ফ্ল্যাঙ্কের কাছে দেহটি পড়েছিল৷ এলাকাবাসী খবর দেয় পাটুলি থানায়৷ পুলিশ এসে ওই দেহ বাঘাযতীন স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ সেখানে তাঁকে চিকিত্‍সকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন৷

    দেহটির মাথায় গুরুতর আঘাতের চিহ্ন রয়েছে৷ পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ভোঁতা কিছু দিয়ে মাথায় আঘাত করে তাঁকে খুন করা হয়েছে৷ ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করছে পুলিশ৷ এখনও পর্যন্ত খবর, মৃতের নাম সুভাষ পেশায় রিকশাচালক৷

    গত ৩ জুলাইয়েও কলকাতা শহরে ধারের টাকা নিয়ে বিবাদের জেরে একটি ভয়াবহ খুনের ঘটনা ঘটে৷ টাকা মিটিয়ে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে এক মহিলাকে মুদিয়ালির এক জায়গায় দেখা করতে বলে শিবশঙ্কর নামে এক ব্যক্তি। দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ সেখানে যান ওই মহিলা। গাড়ির পিছনের আসনে বসেই টাকা চান তিনি। এর পরেই দুজনের মধ্যে ফের শুরু হয় বচসা। তদন্তে জানা গিয়েছে, সাদার্ন অ্যাভিনিউয়ের কাছে একটি স্কুলের সামনে শুনশান জায়গায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে চালক পিছনে আসে। আচমকা দুই আসনের ফাঁকে ওই মহিলাকে ফেলে গলা টিপে ধরে শিবশঙ্কর। এর পরে মৃত্যু নিশ্চিত করতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলার নলি কেটে খুন করা হয়। দেহ নিয়ে কলকাতা শহরের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে সন্ধে নামতেই ইএম বাইপাসের ধারে একটি পরিত্যক্ত জায়গায় দেহ ফেলে দিয়ে চম্পট দেয় শিবশঙ্কর।

    Published by:Arindam Gupta
    First published: