Home /News /kolkata /
প্রসূতি মৃত্যুতে উত্তপ্ত আর জি কর হাসপাতাল, আয়াদের বিরুদ্ধে জোর জুলুমের অভিযোগ

প্রসূতি মৃত্যুতে উত্তপ্ত আর জি কর হাসপাতাল, আয়াদের বিরুদ্ধে জোর জুলুমের অভিযোগ

আর জি করে কেঁচো খুড়তে কেউটে! রবিবার সকালে প্রসূতি মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কলকাতার আর জি কর হাসপাতাল ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: আর জি করে কেঁচো খুড়তে কেউটে! রবিবার সকালে প্রসূতি মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কলকাতার আর জি কর হাসপাতাল ৷ সেই ঘটনায় আরও একবার সামনে এল সরকারি হাসপাতালে বেআইনি আয়াচক্র ৷ সন্তান হওয়ার পর আয়াকে দাবিমতো টাকা না দেওয়ায় গোলমাল ৷ ধাক্কাধাক্কিতে পড়ে গিয়ে মৃত্যু প্রসূতির ৷  মৃতার নাম রেশমা বিবি ৷ এরপরই মৃতার আত্মীয়রা হাসপাতালের আয়াদের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন ৷ একইসঙ্গে তারা চিকিৎসায় গাফিলতিরও অভিযোগ তোলেন ৷

    ঘটনার প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ আত্মীয়রা হাসপাতালের সামনে রাস্তা অবরোধ করেন ৷ পরে পুলিশি হস্তক্ষেপে রাস্তা অবরোধ ওঠে ৷ টালা থানার পুলিশ ও ডিসি নর্থের নেতৃত্বে পুলিশ বাহিনী এসে অবস্থা আয়ত্তে আনে। রেশমার মৃত্যু হাসপাতালে আয়া চক্র নিয়ে একাধিক প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। হাসপাতালের তরফে পরোক্ষভাবে এক ঠিকাকর্মীর নেতৃত্বে আয়াদের জুলুমবাজির কথা স্বীকারও করে নেওয়া হয়।

    দেগঙ্গার বাসিন্দা বছর কুড়ির রেশমা বিবির প্রসব যন্ত্রণা ওঠায় ভর্তি করানো হয় আর জি কর হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ৷ এদিন সকালে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন রেশমা ৷ মৃতার আত্মীয়দের অভিযোগ, সন্তান জন্মের পরই আয়া এসে তাদের কাছে ৫০০ টাকা দাবি করেন ৷ তা দিতে না পারায় আয়াদের সঙ্গে বচসা, ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়ে যায় আত্মীয়দের ৷ এরই মাঝে উত্তেজিত হয়ে ট্রলি থেকে পড়ে যান প্রসূতি ৷ অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু হয় তাঁর ৷

    আঘাত লাগা সত্ত্বেও কোনও চিকিৎসাই করা হয়নি বলে অভিযোগ মৃতার আত্মীয়দের ৷ একই সঙ্গে আরও অভিযোগ, টাকা না দেওয়ার জন্য নূন্যতম চিকিৎসা ও যত্ন করতেও রাজি হননি ওই আয়ারা ৷

    হাসপাতালে আয়াদের বিরুদ্ধে এর আগেও জুলুমবাজির অভিযোগ তুলেছেন রোগীর আত্মীয়-পরিজনরা ৷ শিশু জন্মের পরই টাকা দিতে হবে এমন দাবী তোলেন আয়ারা ৷ পুত্রসন্তান হলে ১০০০, কন্যা হলে ৫০০ টাকা ৷ আয়াদের এই চক্র সামিল এক ঠিকাকর্মীও ৷ অভিযোগ, তিনিই চক্রের মূল পাণ্ডা ৷ আয়া ও নার্সদের বিরুদ্ধে জোরজুলুমের অভিযোগ তুলেছেন চিকিৎসকদেরও একাংশ ৷ বাদ যান না কেউই। আয়া ছাড়া ওয়ার্ড বয়, লিফটম্যানদেরও টাকা দিতে হয় বলে অভিযোগ।

    সরকারি হাসপাতালে আয়া রাজের অভিযোগ নতুন নয়। সেই চক্রে পড়েই প্রাণ গেল রেশমা বিবির।

    First published:

    Tags: Medical Negligence, R G Kar Agitation, R G Kar Medical College And Hospital

    পরবর্তী খবর