corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রয়াত গণশক্তির প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্ত (১৯৬২-২০২০)

প্রয়াত গণশক্তির প্রাক্তন সম্পাদক অভীক দত্ত (১৯৬২-২০২০)
Photo: Collected

সাংবাদিকতায় গোল্ড মেডাল। উজ্জ্বল ছাত্র। বামপন্থী রাজনীতিতে বিশ্বাসী।

  • Share this:

#কলকাতা: সাতান্ন বছর আর কতটুকুই বা সময়। কলকাতা বিশ্ববিদ্য়ালয়ের করিডর থেকে কতটা দূর গণশক্তির দফতরের তিন তলা। কতটা পথ পেরোলেন তিনি জানুয়ারির দুপুরে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট থেকে ময়দানের প্রেসক্লাব পর্যন্ত। তারপর সেখান থেকে...

সাংবাদিকতায় গোল্ড মেডাল। উজ্জ্বল ছাত্র। বামপন্থী রাজনীতিতে বিশ্বাসী। দেশ এবং সমাজ নিয়ে স্পষ্ট ধারণা তাই সহজেই দলের নজরে পড়ে যান অভীক দত্ত। গণশক্তিতে নিয়মিতভাবে লেখালেখি করতে শুরু করেন। মাঠে ময়দানে নেমে রিপোর্টিং, সঙ্গে সম্পাদনার কাজ। এরপর আর থেমে থাকেননি।

হাওড়ার সালকিয়ায় অভীক দত্তের জন্ম। পড়াশোনা হাওড়ার বিবেকানন্দ স্কুলে। স্কুলের গণ্ডী পার করে ইংরেজি অনার্স নিয়ে ভরতি হন কলকাতার মৌলানা আজাদ কলেজে। কলেজের দিনগুলোতেই জড়িয়ে পড়েন ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে। গণশক্তি তখনও দৈনিক হয়নি। ছোট আকারে ছেপে প্রতিদিন সন্ধের দিকে প্রকাশ পেত। বাংলা তখন জ্বলছে। মিরিক পাহাড়ে খুন হচ্ছেন একের পর এক বামপন্থী কর্মী।

১৯৮৬। গণশক্তি পত্রিকা দৈনিক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। একজন রিপোর্টার হিসেবে কাজে যোগ দেন অভীক দত্ত। পরের বছরই পাহাড়ে সুবাস ঘিসিংয়ের জিএনএলএফ মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র লুঠ করে নেয়। হিংসার আগুন ছড়িয়ে পড়ে দার্জিলিং পাহাড় থেকে সমতলেও। রিপোর্টার হিসেবে এ ধরনের চ্যালেঞ্জিং কাজে এটাই ছিল অভীক দত্তের প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট।

১৯৯২-এর বাবরি মসজিদ ভেঙে পড়ার পরও একের পর এক রিপোর্ট। তখন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু। তাঁর বিদেশ সফরের সঙ্গী হিসেবে গণশক্তি অভীক দত্তকেই বেছে নেন। পরে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সঙ্গেও তিনি একাধিকবার সাংবাদিক হিসেবে বিদেশ গিয়েছেন।

বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য অসুস্থ হয়ে পড়ার পরও নিয়মিত খোঁজখবর নিতেন যে মানুষটি তাঁর নাম অভীক দত্ত। সেই মানুষটিই ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। দমদমে দলের হয়ে একটি সভায় বক্তব্য রাখছিলেন। আচমকা কথা জড়িয়ে যায়। এক বছর ধরে সেই লড়াই মঙ্গলবার ভোরে শেষ হয়ে গেল।

মানুষ হিসেবে অভীক দত্ত ছিলেন অমায়িক। উপরের আস্তরণটি খসে গেলেই মিশুকে, গল্পবাজ একজন কাছের মানুষ। কাজের মানুষও। একজন সাধারণ রিপোর্টার হিসেবে পথ চলা শুরু করেছিলেন। তারপর একদিন তাঁর হাতেই গণশক্তির সম্পাদনার ভার তুলে দেওয়া হয়। এডিটর হয়েও সংস্থা পরিচালনায় শেষদিন পর্যন্ত তিনি ছিলেন একজন সর্বক্ষণের কর্মী। যেমন ছিলেন তাঁর দলের।

অভীক দত্তকে মনে রাখবে বাংলার সংবাদমাধ্যম

Published by: Akash Misra
First published: January 14, 2020, 8:14 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर