• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • RED ROAD BUS ACCIDENT UPDATE KOLKATA POLICE APPEALED FOR FORENSIC TEST RC

Red Road Bus Accident: কী কারণে দুর্ঘটনা এখনও স্পষ্ট নয়, রেড রোড বাস দুর্ঘটনা-কাণ্ডে ফের ফরেন্সিক পরীক্ষার আবেদন

কী কারণে দুর্ঘটনা এখনও স্পষ্ট নয়, রেড রোড বাস দুর্ঘটনা-কাণ্ডে ফের ফরেন্সিক পরীক্ষার আবেদন

সেদিনই ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা ঘটে ফোর্ট উইলিয়ামের কাছে রেড রোডে (Red Road Bus Accident)।

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনাবিধি খানিকটা শিথিল হতেই গত ১ লা জুলাই থেকে কলকাতার রাস্তায় বাস চলাচল শুরু হয়েছিল। আর সেদিনই ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা ঘটে ফোর্ট উইলিয়ামের কাছে রেড রোডে (Red Road Bus Accident)। মেটিয়াব্রুজ-হাওড়া মিনি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা মারে ফোর্ট উইলিয়ামের পাঁচিলে। প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকে বলছেন, রেলিং ভেঙে পাঁচিলে ধাক্কা মারে বাসটি। মৃত্যু হয়েছিল এক পুলিশকর্মীর। এই ঘটনায় ফের একবার ফরেন্সিক পরীক্ষার আবেদন জানাল কলকাতা পুলিশের বিশেষ বাহিনী FSTP।

    পুলিশ সূত্রে খবর, প্রথম ফরেন্সিক পরীক্ষায় অনেকগুলি বিষয় এখনও অস্পষ্ট রয়ে গিয়েছে। কী কারণে দুর্ঘটনা ঘটেছিল সেটিই এখনও স্পষ্ট নয়। যান্ত্রিক সমস্যা ছিল নাকি চালকের গাফিলতি তা জানতেই ফের একবার ঘটনাস্থলে গিেয় ফরেন্সিক পরীক্ষার আবেদন করেছে পুলিশ। এবার ফরেন্সিক দলে থাকবেন পদার্থবিদও। নমুনা সংগ্রহে সাহায্য করবেন তিনি। পয়লা জুলাই এই দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন বিবেকানন্দ ডাব নামে কলকাতা পুলিশের এক কর্মী। ঘটনায় ১৯ জন আহত হন। হেস্টিংস থানা প্রথমে তদন্তভার নেয়, পরে FSTP পায় তদন্তভার।

    দুর্ঘটনার সময়ে বাসে অন্তত ৩০ জন যাত্রী ছিলেন। আহত হয়েছেন এদের মধ্যে অন্তত ১৯ জন। আহতদের তড়িঘড়ি এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বাসের ধাক্কায় মৃত্যু হয়েছে কলকাতা রিজার্ভ পুলিশের এক কর্মী বিবেকানন্দ দাবের। বাসের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান তিনি। মৃত ওই পুলিশকর্মী ঝাড়গ্রামের শালবনির বাসিন্দা। তিনি কলকাতায় একটি মেস ভাড়া করে থাকতেন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর বিবেকানন্দ দাবকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। তাঁর বয়স ৩৯। হাওড়ায় একটি মেস ভাড়া করে থাকতেন তিনি।

    বাইকের নম্বরপ্লেট থেকে আরোহী সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য পায় পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীদের অনেকেই জানিয়েছেন, বাইকটি বাসের তলায় ঢুকে যায়। বাসের বেপরোয়া গতির জন্যই প্রাণ হারালেন কলকাতা পুলিশের ওই কর্মী। বাসটির ভেতরের অংশ রক্তে ভেসে গিয়েছে। একটিও চেয়ার আর আস্ত ছিল না। দুর্ঘটনার পরই সেখানে পৌঁছয় কলকাতা পুলিশের অ্যাক্সিডেন্ট রিসার্চ টিম। কী কারণে এমন ভয়াবহ দুর্ঘটনা, তা খতিয়ে দেখে সেই টিম। তবে প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়েছিল, বেপরোয়া গতিতে ছিল বাসটি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাইক আরোহীকে ধাক্কা মারে সেই বাস। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়েছিলেন পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্রও।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: