কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

আগের রেজাল্ট বাতিল, ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের ফের পরীক্ষা নিয়ে ফল প্রকাশ করবে রাজ্যের এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়

আগের রেজাল্ট বাতিল, ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের ফের পরীক্ষা নিয়ে ফল প্রকাশ করবে রাজ্যের এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে চলার দরুন সেক্ষেত্রে আগের সেমিস্টারের প্রাপ্ত নম্বরকে কোনভাবেই ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষার মূল্যায়নের মাপকাঠি হিসাবে নেওয়া যাবে না

  • Share this:

#কলকাতা: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে চলতে হবে রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের। সোমবার রাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপাচার্য নিয়ে ভার্চুয়ালি বৈঠক করার প্রসঙ্গে এমনই জানান শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। আর সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে চলার জন্য রাজ্যের তিন বিশ্ববিদ্যালয়কে ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের আবার পরীক্ষা নিয়ে ফলাফল প্রকাশ করতে হবে।

এদিনের ভার্চুয়ালি বৈঠকে যাদবপুর,বিদ্যাসাগর এবং রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় আবার ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষা নিয়ে ফলাফল প্রকাশ করবে বলে জানিয়েছে ওই তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। তবে প্রেসিডেন্সি এবং মৌলানা আবুল কালাম আজাদ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নিয়ে ফলাফল প্রকাশ করে দিলেও এই দুই বিশ্ববিদ্যালয় অবশ্য পরীক্ষা আবার নেবে না। ভার্চুয়ালি বৈঠকে এই দুই বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য জানিয়েছেন যে তারা আইন মেনেই পরীক্ষা নিয়েছেন তাই ছাত্র-ছাত্রীদের ডিগ্রির বৈধতা নিয়ে কোনো সমস্যা তৈরি হবে না।

ইউজিসি গাইডলাইনে স্পষ্ট করেই জানানো হয়েছিল আগের সেমিস্টারের প্রাপ্ত নম্বরের নিরিখে কোনভাবেই ফাইনাল সেমিস্টারের ছাত্র ছাত্রীদের মূল্যায়ন করা যাবে না। যদিও গত জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে রাজ্য উচ্চশিক্ষা দপ্তর ও অ্যাডভাইজারি জারি করেছিল সেই অ্যাডভাইজারি স্পষ্টভাবে জানিয়ে ছিল আগের সেমিস্টারের প্রাপ্ত নম্বরের নিরিখে মূল্যায়ন করা যাবে ছাত্র-ছাত্রীদের। সেই মোতাবেক বিদ্যাসাগর,যাদবপুর এবং রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় আগে সেমিস্টারের প্রাপ্ত নম্বরের নিরিখে ফাইনাল সেমিস্টার এর নম্বর দিয়েছিল। অর্থাৎ বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় যেমন আগের সেমিস্টারের প্রাপ্ত নম্বরের নিরিখে ৮০% যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় সেটি ৭০ শতাংশ নম্বর গুরুত্ব হিসেবে দিয়েছিল। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে চলার দরুন সেক্ষেত্রে আগের সেমিস্টারের প্রাপ্ত নম্বরকে কোনভাবেই ছাত্র-ছাত্রীদের পরীক্ষার মূল্যায়নের মাপকাঠি হিসাবে নেওয়া যাবে না বলেই এই দিনের বৈঠকে জানিয়েছেন এই তিন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা। সে ক্ষেত্রে তারা যদি আবার পরীক্ষা নেন তাহলে ছাত্র-ছাত্রীদের ডিগ্রির বৈধতা নিয়ে সমস্যা তৈরি হতে পারে।

সোমবারের ভার্চুয়ালি বৈঠকে ওই তিন বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য জানিয়েছেন যে তারা ফের পরীক্ষা নেবে। তবে কিভাবে পরীক্ষা নেবে সেই বিষয়ে সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে নেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে ওপেন বুক সিস্টেমে পরীক্ষা নেওয়ার কথা ভাবছে রাজ্যের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়। ইতিমধ্যেই বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় ওপেন বুক সিস্টেম অর্থাৎ বিভিন্ন বিষয় ভিত্তিক প্রশ্ন ওয়েবসাইটে আপলোড করে দেবে ছাত্রছাত্রীরা বাড়িতে বসেই তা লিখে আবার ই-মেইল মারফত পাঠিয়ে দেবেন। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই পদ্ধতিতেই ছাত্র-ছাত্রীদের মূল্যায়ন করার কথাই ভাবছে। অন্যদিকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ইঞ্জিনিয়ারিং সায়েন্স এবং কলা বিভাগের মূল্যায়ন কিভাবে করবে সেই বিষয়ে চলতি সপ্তাহেই আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে। বলতো সব মিলিয়ে ইতিমধ্যেই ছাত্র-ছাত্রীদের এই তিন বিশ্ববিদ্যালয় ফলাফল প্রকাশ করেছিল সেই ফলাফল কার্যত বাতিল হয়ে আবার নতুন করে পরীক্ষা নিয়ে ফলাফল প্রকাশ করা হবে। যদিও এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। তিনি বলেন " সোমবারের বৈঠকের বিষয় নিয়ে আমি কোন মন্তব্য করব না। আপনাদের যা জানার শিক্ষা সচিবের থেকেই জেনে নিন।"

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Elina Datta
First published: August 31, 2020, 7:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर