বিপক্ষে শোভন থাকলে কি লড়াই কঠিন হত, কী বলছেন স্ত্রী রত্না?

বিপক্ষে শোভন থাকলে কি লড়াই কঠিন হত, কী বলছেন স্ত্রী রত্না?

রত্না চট্টোপাধ্যায় ও শোভন চট্টোপাধ্য়ায়৷ Photo-File

রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে প্রার্থী করেছে বিজেপি৷ বিপক্ষে শোভন থাকলে কি লড়াইটা বেশি কঠিন হত?

  • Share this:

#কলকাতা: বেহালা পূর্বে প্রার্থী করা হয়নি৷ সেই রাগেই বিজেপি-র সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ শোভনের সঙ্গেই বিজেপি ছেড়েছেন বৈশাখীও৷ তবে শোভন- বৈশাখীর সঙ্গে যে বিজেপি-র বিচ্ছেদ চূড়ান্ত হল, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত নন বেহালা পূ্র্ব কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়৷ তাঁর কথায় এবার শোভন এবং বিজেপি-র মধ্যে আরও একবার 'পা ধরাধরি' চলবে৷

শোভনের বিজেপি ছাড়ার সিদ্ধান্তের কথা শুনে রত্নার প্রথম প্রতিক্রিয়া, 'এখনই আমি কোনও প্রতিক্রিয়া দেব না৷ এখন তো পা ধরাধরি চলবে৷ একবার বিজেপি ওনার পা ধরবে, উনি বিজেপি-র পা ধরবে, তার পরেও উনি সত্যিই বিজেপি ছাড়লেন কি না দেখে নিয়ে আমি আমার প্রতিক্রিয়া দেব৷'

রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে প্রার্থী করেছে বিজেপি৷ বিপক্ষে শোভন থাকলে কি লড়াইটা বেশি কঠিন হত? মানতে চান না রত্না৷ তাঁর জবাব, 'আমার উল্টো দিকে ভারতবর্ষের যে কেউ দাঁড়াক না কেন, আমি তৈরি৷ আমি তো ওনাদের মতো কুৎসা করে ভোটে লড়ছি না৷ আমি লড়ছি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নকে সামনে রেখে৷'

প্রথমে তৃণমূল ত্যাগ, তার পরে বিজেপি-তে যোগ দিয়েও একের পর এক টানাপোড়েন৷ ভোটের আগে বিজেপি-র সঙ্গে সন্ধি হলেও প্রার্থী হওয়া নিয়ে আবার জটিলতা৷ শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মতো অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ কেন বার বার এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন? রত্নার জবাব, 'আপনাদের ওনাকে এখনও অভিজ্ঞ রাজনীতিবিদ মনে হয়? সাড়ে তিন বছর আগে উনি যখন নিজের পরিবার, সন্তানদের ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন, সেদিনই ওনার সব অভিজ্ঞতাও শেষ হয়ে গিয়েছিল৷ এই সাড়ে তিন বছরে ওঁদের অনেক নাটক দেখেছি৷ চাপ দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকেও অনেক কিছু আদায় করার চেষ্টা করেছেন৷ এটাও হয়তো আরও একটা নাটক৷'

২০১১ এবং ২০১৬ সালে বেহালা পূর্ব থেকে জয়ী হন শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ দীর্ঘদিন ওই এলাকার পুর প্রতিনিধিও ছিলেন তিনি৷ বিজেপি-র প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পরই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ছবি দিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট করেন৷ সেখানে তিনি লিখেছেন, 'এই অপমান আমাদের দমিয়ে রাখতে পারবে না৷ আমরা ফিরে আসব এবং জিতব৷ বেহালা পূর্বের মানুষ আপনাকে ভালবাসে এবং সেটাই আপনার সবথেকে বড় শক্তি৷' এর পরেই জল্পনা ছড়িয়েছে, তবে কি নির্দল হয়েই বেহালা পূর্ব থেকে লড়তে পারেন শোভন? এই প্রসঙ্গে রত্না চট্টোপাধ্যায়ের জবাব, 'ওনাকে যদি বেহালা পূর্বের মানুষ এত ভালবাসেন তাহলে আসুন না আমাদের হারিয়ে এই আসনটা জিতে নিয়ে যান৷ '

Published by:Debamoy Ghosh
First published: