Home /News /kolkata /
দোকানে বিক্রি হচ্ছে রেশনের চাল ! কালোবাজারির অভিযোগে গ্রেফতার দুই ব্যবসায়ী

দোকানে বিক্রি হচ্ছে রেশনের চাল ! কালোবাজারির অভিযোগে গ্রেফতার দুই ব্যবসায়ী

সেখান থেকে প্রচুর রেশনের চাল বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ।

  • Share this:

#কলকাতা: ফের কলকাতায় রেশনে কালোবাজারির অভিযোগ। এবার একেবারে দোকানে রেশনের চাল বিক্রি করার অভিযোগ উঠল। খুচরো দোকানে রেশনের চাল বিক্রি করার অভিযোগে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ শুক্রবার এন্টালি বাজার ও মুচিপাড়া বাজারে একযোগে তল্লাশি চালায়। সেখান থেকে প্রচুর রেশনের চাল বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। গ্রেফতার করা হয়েছে ত্রিলোকি রায় ও অখিলেশ সাউ নামের দুই ব্যবসায়ীকে।

কলকাতা পুলিশের এনফর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ-এর কাছে গোপন সূত্রে খবর আসে এন্টালি বাজার ও মুচিপাড়া বাজারে খুচরো দোকান থেকে বিক্রি হচ্ছে রেশনের চাল। সেই খবর পাওয়ার পর শুক্রবার সকালে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের দুটি টিম ভাগ হয়ে দুটি বাজারে একসঙ্গে হানা দেয়। দুই বাজারে হানা দিয়ে দুই ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে মোট ২০ বস্তা রেশনের চাল মিলেছে। দু টাকা কেজি দরে চাল দেওয়ার রাজ্য সরকারের যে প্রকল্প রয়েছে সেই প্রকল্পের চালই খোলা বাজারে বিক্রি হচ্ছে বলে মনে করছে পুলিশ।

এনফর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের ডিসি বিশ্বজিৎ ঘোষ বলেন, "কোথা থেকে তারা এত পরিমাণ চাল পেল সে ব্যাপারে কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি। তাই তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।" ধৃতদের বিরুদ্ধে প্রতারণা অত্যাবশ্যকীয় পণ্য আইনের বিশেষ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে শনিবার ধৃতদের আদালতে তোলা হবে। কীভাবে এই চাল ব্যবসায়ীদের কাছে রেশন সামগ্রী পৌছয় এবং তারা খুচরো বাজারে বিক্রি করে, তা নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে। কোথা থেকে তাদের কাছে এত পরিমাণে রেশনের চাল এল সেই বিষয়ে ধৃতদের জেরা করা হচ্ছে। কোনও রেশন ডিলার এই কালোবাজারি চক্রের সঙ্গে জড়িত কিনা তা জানতে ব্যবসায়ীদের জেরা করবে পুলিশ

ধৃতদের থেকে যে কুড়ি বস্তা চাল মিলেছে তার মধ্যে বেশ কয়েকটি বস্তার উপরে পশ্চিমবঙ্গ সরকার ছাড়াও পাঞ্জাব সরকার এবং কেরল সরকারের নাম ছাপা রয়েছে। সেক্ষেত্রে ভিন রাজ্যে রেশন ব্যবস্থার মাধ্যমে যে চাল সরবরাহ করা হয় সেগুলোও কি ডিলারদের মাধ্যমে এরাজ্যে চলে আসছে? তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এদিন এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের অভিযানে উদ্ধার হওয়া কুড়ি বস্তা চালের মধ্যে বেশকিছু চাল নমুনা আকারে সংগ্রহ করে ফুড টেস্টিং ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। সেই রিপোর্টের সঙ্গে বিক্রি হওয়া চালের নমুনা মিলে গেলে অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি হবে বলে আশাবাদি এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ।

সুজয় পাল

Published by:Piya Banerjee
First published:

Tags: Kolkata, Lockdown, Rice

পরবর্তী খবর