ডিসেম্বর মাস থেকে গণ বণ্টন বন্ধ, হুঁশিয়ারি সারা রাজ্যের রেশন ডিলারদের

ডিসেম্বর মাস থেকে গণ বণ্টন বন্ধ, হুঁশিয়ারি সারা রাজ্যের রেশন ডিলারদের
সরকার কথা দিয়েছিল,তাদের কমিশনের বিষয়টি দেখে নেবে।এপর্যন্ত রেশন ডিলাররা বহুবার দরবার করে, কোনো আশানুরূপ ফল পায়নি।

সরকার কথা দিয়েছিল,তাদের কমিশনের বিষয়টি দেখে নেবে।এপর্যন্ত রেশন ডিলাররা বহুবার দরবার করে, কোনো আশানুরূপ ফল পায়নি।

  • Share this:

#কলকাতা:  লকডাউন এর সময় পশ্চিম বাংলার বিভিন্ন জেলায় রেশনের মাল পত্র চুরির অভিযোগে বেশ কয়েকটি রেশন ডিলার অভিযুক্ত হয়েছেন এবং তাদের লাইসেন্সও বাজেয়াপ্ত হয়েছে। কোন কোন ডিলারের ওপর, গ্রাহকদের ক্রোধ গিয়ে পড়েছে। তবুও গণবণ্টন এর দায়িত্ব তারা পালন করে যাচ্ছে এখনও।  অল বেঙ্গল রেশন বাঁচাও যৌথ মঞ্চ' নামে একটি সংগঠন রেশন ডিলারদের হয়ে সরকারের কাছে আবেদন জমা দিয়েছেন।

তাদের দাবি, করোনা মহামারী চলাকালীন,কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের যৌথ উদ্যোগে বিনা মূল্যে রেশন দেওয়ার বন্দোবস্ত হয়েছিল।সেই ব্যবস্থা এখনও বহাল।  রেশন ডিলারদের দাবী প্রতি কুইন্টালে তারা কমিশন হিসাবে পায় ৭০ টাকা।তাদের আরও দাবি, আইনত তাদের পাওয়া উচিৎ প্রতি কুইন্টাল ৮৭ টাকা।যা অন্য রাজ্যের তুলনায় অনেক কম।এপ্রিল মাস থেকে সেই ৭০ টাকা কমিশন রেশন ডিলাররা আর পাচ্ছেন না।সেই সময় সরকার কথা দিয়েছিল,তাদের কমিশনের বিষয়টি দেখে নেবে।এপর্যন্ত রেশন ডিলাররা বহুবার দরবার করে, কোনো আশানুরূপ ফল পায়নি।

অল বেঙ্গল রেশন বাঁচাও যৌথ মঞ্চের তরফ থেকে যুগ্ম সম্পাদক নিখিলেশ ঘোষ ও সম্পাদক অচিন্ত্য সাঁতরা দাবী করেন,বহু দুঃস্থ রেশন ডিলার রয়েছেন, যাদের সংসার আর চলছে না।তারা শুধু গণবন্টন করে যাচ্ছেন।তাদের কর্মচারীদের বেতন দিতে পারছেন না।এই প্রেক্ষিতে ১৪ সেপ্টেম্বর রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে ব্লকে,রেশন ডিলাররা সংগঠনের তরফ থেকে ডেপুটেশন জমা দেবে।১২ অক্টোবর প্রতিটি রেশনের অফিসের সামনে ওরা ধর্না দেবে।তাতেও কাজ না হলে, ডিসেম্বর মাস থেকে রাজ্যের রেশন ডিলাররা বৃহত্তর আন্দোলনে যাবে ও রেশন গণ বণ্টন বন্ধ করে দেবে,বলে হুঁশিয়ারি দেন।  এই পরিস্থিতির সুরাহার জন্য সরকারি তরফে চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে।


সূত্রের খবর, এর আগে এই ভাবে একেবারে বিনা মূল্যে রেশন দেওয়া কোনদিন হয়নি। যার ফলে প্রতিটি ব্যবস্থা, পরিকল্পনাহীন ভাবে করতে হয়েছে সরকারকে। রাজ্যে কুড়ি হাজার রেশন ডিলার রয়েছে। প্রায় 700 এম আর ডিস্ট্রিবিউটর রয়েছে। তাদের প্রত্যেককে কমিশন দিতে গেলে বিপুল পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন সরকারের।কেন্দ্রীয় সরকার ঠিকঠাক ভাবে অর্থ বরাদ্দ না করার ফলেই এই সমস্যা। তবে এও জানা যায়,আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে রেশন ডিলাররা তাদের কমিশন হাতে পাবেন।  রেশন ডিলারদের হুঁশিয়ারির বিষয়টি যদি সত্যি হয়। তাহলে রাজ্যে গণবণ্টন ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা সবথেকে বেশি। সূত্রের খবর, সেই বিষয়টিও  খেয়াল রেখে বিবেচনা করে দেখছে সরকার।

Shanku Santra

Published by:Elina Datta
First published: