• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • RAJIB BANERJEE STRONGLY CRITICIZED ROLE PLAYED BY SUVENDU ADHIKARI AKD

Rajib Banerjee on Suvendu Adhikari| 'বিরোধী নেতাকে বলব...' || নাম না করে এবার শুভেন্দুর বিরুদ্ধে তোপ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের

আরও একবার মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষ নিয়ে সওয়াল রাজীবের।

(Rajib Banerjee on Suvendu Adhikari)| রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, ফের দলে আসার সিগন্যাল দিলেন রাজীব। প্রশ্ন রইল একটাই, দল কি তাঁর ডাকে সাড়া দেবে?

  • Share this:

    #কলকাতা: সৌমিত্র খাঁ বিঁধেছিলেন সকালেই। এবার নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকে বিঁধলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ও (Rajib Banerjee on Suvendu Adhikari)। সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজীব দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বিরোধী নেতার সমালোচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করার জন্য। রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, ফের তৃণমূলে আসতে চেয়ে সিগন্যাল দিলেন রাজীব। প্রশ্ন রইল একটাই, দল কি তাঁর ডাকে সাড়া দেবে?

    রাজীব এ দিন ট্যুইটারে লেখেন, "বিরোধী নেতাকে বলব যার নেতৃত্বে ও যাকে মুখ্যমন্ত্রী দেখতে চেয়ে বাংলার মানুষ ২১৩ টি আসনে তাঁর প্রার্থীদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন সেই মুখ্যমন্ত্রীকে অযথা আক্রমণ না করে সাধারণ মানুষের দুর্দশা মুক্তির জন্য পেট্রোল, ডিজেল এবং রান্নার গ্যাসের মূল্য রাশ করাই এখন একমাত্র লক্ষ্য হওয়া উচিত।"

    তলিয়ে ভাবলে রাজীবের পোস্টের দু'টি দিক আছে। একদিকে রাজিব মুখ্যমন্ত্রীকে যখন তখন একহাত নেওয়ার প্রবণতার বিরোধিতা করছেন। পক্ষান্তরে মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষ নিচ্ছেন। আবার পেট্রোপণ্যের মূল্য নিয়ে তিনি ঠিক এমন সময় সরব হচ্ছেন যখন এই একই ইস্যুতে সংসদে যাওয়ার কথাই ভাবছে তৃণমূল। অর্থাৎ বলা যায় তৃণমূলের সুরে সুর মেলাতে তৈরি রাজীব।

    গত ৮ জুন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ফেসবুকে প্রথমবার নিজের অবস্থান ব্যক্ত করেন। সেই পোস্টটিও ছিল বিজেপির অবস্থানের বিরোধিতা করে। রাজীব পোস্টে লিখেছিলেন, "সমালোচনা তো অনেক হল। মানুষের বিপুল জনসমর্থন নিয়ে আসার নির্বাচিত সরকারের সমালোচনা ও মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধিতা করতে গিয়ে কথায় কথায় দিল্লি ও ৩৫৬ ধারা দেখালে বাংলার মানুষ ভালো ভাবে নেবে না। আমাদের সকলের উচিত রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে কোভিড ও ইয়াস দুর্যোগে বিপর্যস্ত বাংলার মানুষের পাশে থাকা।" বলাই বাহুল্য, সে বারও রাজীবের নিশানা ছিল শুভেন্দু অধিকারীর দিকেই।

    গত কয়েক মাস, ভোট বিপর্যয়ের পর থেকে রাজীব বিজেপির থেকে দূরত্ব বাড়িয়েছেন। বিজেপির একটিও বৈঠকে তাঁকে দেখা যায়নি। বরং তৃণমূল ঘনিষ্ঠ হওয়ারই চেষ্টা করেছেন রাজীব। একাধিক তৃণমূল নেতার বাড়িতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। কিন্তু  রাজীবকে দলে  ফেরাত তৃণমূল সুপ্রিমো রাজি হবেন কিনা সেই প্রশ্ন থেকেই গিয়েছে। রাজীবের দফতরের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ এসেছে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী তরফ থেকে। মুখ্যমন্ত্রী কি মন বদলাবেন, সুর নরম করবেন নরম মনের রাজীবের প্রতি দেখতে আগ্রহী রাজনৈতিক মহল।

    Published by:Arka Deb
    First published: