রজত চৌধুরীর রহস্যমৃত্যুতে কাঠগড়ায় ইউনিয়ন ব্যাঙ্কের উলুবেড়িয়া শাখা, অভিযোগের তির ম্যানেজার ও ক্যাশিয়ারের দিকে

রজত চৌধুরীর রহস্যমৃত্যুতে কাঠগড়ায় ইউনিয়ন ব্যাঙ্কের উলুবেড়িয়া শাখা, অভিযোগের তির ম্যানেজার ও ক্যাশিয়ারের দিকে

রজত চৌধুরীর রহস্যমৃত্যুতে কাঠগড়ায় ইউনিয়ন ব্যাঙ্কের উলুবেড়িয়া শাখা। অভিযোগের তির ম্যানেজার ও ক্যাশিয়ারের দিকে।

  • Share this:

#কলকাতা: রজত চৌধুরীর রহস্যমৃত্যুতে কাঠগড়ায় ইউনিয়ন ব্যাঙ্কের উলুবেড়িয়া শাখা। অভিযোগের তির ম্যানেজার ও ক্যাশিয়ারের দিকে। নভেম্বর ও ডিসেম্বরে পুরনো নোটে লক্ষ লক্ষ টাকা জমা করেন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও অভিযুক্ত সোমনাথ ঘোষ। মৃত রজত চৌধুরীর হাত দিয়েই তা জমা হয়। ঘটনায় অভিযুক্ত দুই কর্মীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের। অভিযুক্ত সোমনাথ ঘোষের পরিবারের আবার দাবি, আয়কর বিভাগের ক্ষতিপূরণ মেটানোর প্রস্তাব নিয়ে তাদের বাড়িতে আসেন রজতই।

ব্যাঙ্ক এজেন্টের মৃত্যু রহস্য

সোমনাথের টাকা জমা নেন রজত

কর্মী না হলেও রজতকে দায়িত্ব কেন?

অবৈধ লেনদেনে জড়িত ব্যাঙ্ক

Loading...

ব্যাঙ্কএজেন্ট রজত চৌধুরীর রহস্যমৃত্যুতে চাঞ্চল্যকর তথ্য। নোট বাতিলের পর ব্যাঙ্কে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকা জমা করেন ব্যবসায়ী সোমনাথ ঘোষ। পুরনো ৫০০ হাজারের নোটে এত টাকা জমার বিষয়ে উচ্চতর কর্তৃপক্ষকে কিছুই জানাননি ব্যাঙ্ক ম্যানেজার চিন্ময় দত্ত। সোমবার উলুবেড়িয়া শাখায় এসে এমনই বহু অসঙ্গতি পেল ব্যাঙ্কের পূর্বাঞ্চল শাখার আধিকারিকরা।

-সোমনাথের কারেন্ট অ্যাকাউন্টে প্রতিদিন জমা পড়ে ২ থেকে ৩ লক্ষ টাকা

-নোট বাতিলের সময়সীমায় সোমনাথের সঙ্গে ব্যাঙ্ক ম্যানেজারের ঘনঘন বৈঠক

-লোন এজেন্ট রজতকে দিয়ে সোমনাথের টাকা জমা করা হয়

-সোমনাথের ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক অ্যাকাউন্টগুলির তথ্য, লেজার বুক ও লেনদেনের তথ্য নিয়েছেন ব্যাঙ্কের আধিকারিকরা

-সংগ্রহ করা হয়েছে সিসিটিভি ফুটেজও

-রজতকে দিয়ে যে মুচলেকা লেখানো হয়, তা নিয়েও প্রশ্ন ম্যানেজার ও ক্যাশিয়ারকে

- ব্যাঙ্কের কর্মীরাও দুর্নীতিতে জড়িত বলে সন্দেহ তদন্তকারীদের

ব্যাঙ্কের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে তদন্ত শুরু করেছে উলুবেড়িয়া থানার পুলিশও। এমনকী সোমবার তদন্তকারীদের সঙ্গে দেখা করতে গেলেও দেখা করতে দেওয়া হয়নি। আত্মহত্যার আগে কি সোমনাথের বাড়ি গিয়ে রফার প্রস্তাব দিয়েছিলেন রজত? অভিযুক্ত সোমনাথের পরিবারের তেমনটাই অভিযোগ। প্রয়োজনে এর প্রমাণ দিতেও তাঁরা তৈরি বলেও দাবি সোমনাথের পরিবারের। ফেসবুকে দুই ব্যাঙ্ক অফিসার, এক ব্যবসায়ী ও তার কর্মীর বিরদ্ধে অভিযোগ করে আত্মহত্যা করেন রজত চৌধুরী। ব্যাঙ্ককর্মীদের ভূমিকা ও ওই ব্যবসায়ীর ভূমিকায় সন্দেহ বাড়ছে।

First published: 06:29:44 PM Feb 13, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर