corona virus btn
corona virus btn
Loading

কলকাতায় মেট্রো চালু নিয়ে পরিকল্পনা করছে রেল  

কলকাতায় মেট্রো চালু নিয়ে পরিকল্পনা করছে রেল  
File Photo

দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন মেট্রো স্টেশনে কাজ করা রেল কর্মীরা বলছেন, ভিড় ও যাত্রী নিয়ন্ত্রণ প্রায় অসম্ভব।

  • Share this:

#কলকাতা: দেশজুড়ে আগামী ১২ অগাস্ট পর্যন্ত নিয়মিত লোকাল, প্যাসেঞ্জার ও মেল, এক্সপ্রেস চলাচল বন্ধ থাকার কথা জানিয়েছে রেল মন্ত্রক। এরই মধ্যে যত আসন তত যাত্রী নিয়ে মেট্রো চালালে রাজ্যের আপত্তি নেই বলে জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এই অবস্থায় কলকাতার লাইফলাইন মেট্রোয় ভিড় সামলে কিভাবে পরিষেবা দেওয়া যাবে তা নিয়ে শুরু হয়েছে পরিকল্পনা তৈরির কাজ।

দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন মেট্রো স্টেশনে কাজ করা রেল কর্মীরা বলছেন, ভিড় ও যাত্রী নিয়ন্ত্রণ প্রায় অসম্ভব।  এখন দমদম থেকে গড়িয়া মেট্রো পথের জন্য মোট ২৫টি রেক আছে। প্রতি রেকে কোচের সংখ্যা রয়েছে ৮টি করে। ফলে ২০০ রেক নিয়ে আপাতত চলাচল করে মেট্রো। পুরনো কোচ পিছু আসন আছে ৪২ টি করে। নতুন কোচে আছে ৪৬ টি করে। প্রতি কোচে একদিকে ৪টি করে দরজা আছে। একটি কোচে সব মিলিয়ে ৮ টি দরজা আছে। ২০০ কোচ ধরলে দরজা সংখ্যা ১৬০০ টি।

ধরে নেওয়া হল দমদম থেকে গড়িয়া একটি মেট্রো যাচ্ছে। তাহলে ৮ টি কোচে ৪টি করে দরজা ধরলে মোট ৩২টি দরজা হয়। তাহলে প্রতি দরজায় একজন করে রেল নিরাপত্তা রক্ষী রাখলে একটি রেকে প্রয়োজন হবে ৩২ জন আরপিএফ'কে। সারাদিনের হিসেব করলে যে সংখ্যা দাঁড়ায় তাতে এত সংখ্যক আর পি এফ নেই। ফলে ভিড় নিয়ন্ত্রণ হবে কি করে? সেটা নিয়েই চিন্তিত সকলে। মেট্রোর হিসেব অনুযায়ী লোকাল ট্রেন যেহেতু চলছে না তাই দমদম স্টেশন থেকে যত সংখ্যক যাত্রী ওঠা নামা করে তা হয়তো এখন ওঠা নামা করবে না। কিন্তু শ্যামবাজার, এসপ্ল্যানেড, রবীন্দ্র সদন, কালীঘাট, টালিগঞ্জ থেকে যে সংখ্যক যাত্রী ওঠা নামা করবে তার জন্যে যে সংখ্যক আর পি এফ প্রয়োজন শুধু গেটে ভিড় নিয়ন্ত্রণ করার জন্যে তাও এখন নেই বলে জানা যাচ্ছে। তবে সামাজিক দুরত্ব বিধি মেনে কিভাবে মেট্রো চলাচল করা যাবে তা নিয়ে কিছু ব্যবস্থা ইতিমধ্যেই নিতে শুরু করেছিল মেট্রো রেল। তার মধ্যে টোকেন ব্যবহার করতে চায় না মেট্রো। আরও বেশি করে জোর দেওয়া হবে কলকাতা মেট্রো স্মার্ট কার্ডের ওপর।

টিকিট কাউন্টারের সামনে অবশ্য দুরত্ব মেনে দাগ কেটে রাখা হয়েছে। সব স্মার্ট গেট না খুলে একটা করে স্মার্ট গেট অপারেট হবে। এছাড়া মাস্ক বা ফেস শিল্ড বাধ্যতামূলক। হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখা হবে। থাকবে শরীরের তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা। এছাড়া চিকিৎসকদের ব্যবস্থাও রাখা হবে। যদিও রেল মন্ত্রক সূত্রের খবর, রাজ্য এখনও মেট্রো চালানো নিয়ে কোনও আবেদন জানায়নি। যতক্ষণ না জানাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত প্রকৃত মাস্টার প্ল্যান বানানো সম্ভব নয়। সূত্রের খবর সোমবার এই বিষয়ে রাজ্য তাদের সিদ্ধান্ত জানাতে পারে রেল মন্ত্রককে।

আবীর ঘোষাল

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 27, 2020, 5:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर