কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

রবীন্দ্রনাথ মুক্ত শিক্ষা চাইতেন, সৌন্দর্য নষ্ট করে পাঁচিল চাই না, বিশ্বভারতী নিয়ে বললেন মমতা

রবীন্দ্রনাথ মুক্ত শিক্ষা চাইতেন, সৌন্দর্য নষ্ট করে পাঁচিল চাই না, বিশ্বভারতী নিয়ে বললেন মমতা
File Image

এই প্রকৃতি আর মানুষের মধ্যে পাঁচিল উঠুক, সেটা চান না মুখ্যমন্ত্রী।

  • Share this:

#‌কলকাতা/‌বীরভূম:‌ পৌষমেলার মাঠে নির্মাণ নিয়ে সোমবার সারাদিনই উত্তপ্ত রইল রাজ্য রাজনীতি। আর বিকেলে সেই বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বললেন, ‘‌পৌষ মেলার মাঠে পাঁচিল চাই না। রবীন্দ্রনাথ মুক্ত শিক্ষার কথা বলতেন। সেখানে প্রকৃতির কোলে শিক্ষা চলার কথা।’‌ এই প্রকৃতি আর মানুষের মধ্যে পাঁচিল উঠুক, সেটা চান না মুখ্যমন্ত্রী। তিনি এদিন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে প্রথমেই বলেন, ‘‌কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে থাকা এই বিশ্ববিদ্যালয় কীভাবে চলবে, সেটা বিশ্ববিদ্যালয় ঠিক করবে। কিন্তু মেলার মাঠে নির্মাণের নিরাপত্তায় বহিরাগতদের কেন রাখা হচ্ছে, সেটাও তো প্রশ্ন। পড়ুয়া ও স্থানীয়দের বিশ্ববিদ্যালয়ের এই পদক্ষেপ পছন্দ হয়নি। তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। উপাচার্য,পড়ুয়াদের সঙ্গে কথা বলুন, জেলাশাসককে সঙ্গে নিয়ে দরকারে আলোচনা করুন। কারণ সৌন্দর্য নষ্ট করে কোনও নির্মাণ ঠিক নয়।’‌

এর আগে পাঁচিল নির্মাণকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার বাঁধে বিশ্বভারতীতে। বেশ কয়েকজন মিছিল করে এসে ভেঙে দেয় মেলার মাঠের গেট, পাঁচিল। পে লোডার দিয়ে ভাঙা হয় পাঁচিল। পাঁচিল মেলার মাঠের গেটও ভেঙে ফেলা হয়। অভিযোগ করা হয়েছে, বিশ্বভারতীর অস্থায়ী অফিসও ভাঙচুর করা হয়েছে। মেলা মাঠ বাঁচাও কমিটির বিরুদ্ধে এই ভাঙচুরের অভিযোগ আনা হয়েছে। এদিকে সরকারি নিরাপত্তারক্ষীর ‘অপব্যবহার’–এর অভিযোগ ওঠে বিশ্বভারতীর উপাচার্যের বিরুদ্ধে। উপাচার্যের নিরাপত্তারক্ষী প্রত্যাহার করে নেয় রাজ্য সরকার। মেলার মাঠে পাঁচিল দেওয়ার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে সরকারি কর্মীদের, সেই অভিযোগ ওঠে। এর মধ্যে প্রবেশ করেন রাজ্যপালও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিকেলে জানান, এই নিয়ে তাঁর রাজ্যপালের সঙ্গে কথা হয়েছে।

এদিকে উপাচার্যের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ শুরু হয় বেলা গড়াতেই। এবার আর মাঠ বাঁচাও কমিটি নয়, এবার বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন পড়ুয়ারা। এই ঘটনার পর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হতে পারে বিশ্বভারতী, এই আশঙ্কায় থেকেই উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন পড়ুয়ারা।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: August 17, 2020, 5:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर