রবীন্দ্রভারতীর বসন্ত উৎসবে মেয়েদের খোলা পিঠে অশ্লীল শব্দ, চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গড়ল বিশ্ববিদ্যালয়

রবীন্দ্রভারতীর বসন্ত উৎসবে মেয়েদের খোলা পিঠে অশ্লীল শব্দ, চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গড়ল বিশ্ববিদ্যালয়

গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিটি রোড ক্যাম্পাসে বসন্ত উৎসব পালনকে কেন্দ্র করে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক।

  • Share this:

#কলকাতা: বসন্ত উৎসবের দিন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে মেয়েদের খোলা পিঠে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানকে বিকৃত করে লেখার ঘটনায় শুক্রবার চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

আগামী এক মাসের মধ্যে ওই চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গোটা ঘটনার রিপোর্ট দেবে।বসন্ত উৎসব আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে কোনও গাফিলতি ছিল নাকি বা কারো দ্বারা কোনো গাফিলতি হয়েছে নাকি তার বিস্তারিত তদন্ত করে রিপোর্ট দেবে ওই কমিটি। শুক্রবারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জরুরী ভিত্তিতে এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠক করে বৈঠক শেষে উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী জানিয়েছেন, "বৈঠকে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়েছে।তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।" অন্যদিকে আগামী বছর থেকে বসন্ত উৎসব হবে নাকি তা নিয়ে চলছিল জল্পনা। এ প্রসঙ্গে উপাচার্য জানান "বসন্ত উৎসব হলেও আগামী বছর বহিরাগতরা আসবে নাকি তা নিয়ে আরো আলোচনা হবে।"

গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের বিটি রোড ক্যাম্পাসে বসন্ত উৎসব পালনকে কেন্দ্র করে শুরু হয় তুমুল বিতর্ক। মূলত বসন্ত উৎসবের দিনে মেয়েদের খোলা পিঠে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গানকে  বিকৃত করে লেখা ও তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার ঘটনায়  রাজ্যজুড়ে তুমুল শোরগোল পড়ে যায়। ঘটনার নৈতিক দায় নিয়ে উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায়চৌধুরী নিজের পদ থেকে ইস্তফা পর্যন্ত দেন। যদিও সেই ইস্তফা পত্র গ্রহণ না হওয়া ও শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অনুরোধে শেষপর্যন্ত কাজ চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন উপাচার্য। তবে কাজে ফিরলেও আগামী বছর থেকে বসন্ত উৎসব হবে নাকি তা নিয়ে ছিল জোর জল্পনা।

শুক্রবার জরুরী ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয় এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নেয়। ওই বৈঠকেই বসন্ত উৎসবের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী ও ছাত্ররা যুক্ত আছে বলে দাবি করেন ইসির বেশ কয়েকজন সদস্য। যদিও এ দিনের বৈঠকে গোটা ঘটনার তদন্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কলা বিভাগের ডিনের নেতৃত্বে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি আগামী এক মাসের মধ্যে গোটা ঘটনার রিপোর্ট দেবে।

মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরেই কেউ যুক্ত আছে নাকি অন্য কারোর গাফিলতিতে এই ঘটনা ঘটল কি তা তদন্ত করে দেখবে এই চার সদস্যের কমিটি। যদিও রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়় শিক্ষক সমিতি ইতিমধ্যেই এই ঘটনার পিছনে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক কর্মচারী নেতা ও এক ছাত্রনেতাকে দায়ী করেছে। তবে শুক্রবার এর বৈঠক শেষে উপাচার্য জানান "তদন্ত কমিটির রিপোর্ট স্পষ্ট হবে ঘটনার পিছনে কেউ যুক্ত আছে নাকি"।তবে তদন্তের স্বার্থে  তদন্ত কমিটি যে কাউকে ডাকতে পারে বলেও জানান উপাচার্য। তবে আগামী বছর বসন্ত উৎসব হলেও বহিরাগতরা ঢুকবেন নাকি সে বিষয় জল্পনা জিইয়ে রাখলেন উপাচার্য।

Somraj Bandhopadhyay

First published: March 13, 2020, 9:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर