বড় বিতর্ক: বনমন্ত্রী রাজীব বেসুরো, থমকে বন দফতরের কর্মীদের পদোন্নতি!

বড় বিতর্ক: বনমন্ত্রী রাজীব বেসুরো, থমকে  বন দফতরের কর্মীদের পদোন্নতি!
রাজীব বেসুরো বলেই কি এই কোপ!

বড়সড় এই বিতর্ক তৈরি হল ১৪ জন বন দফতরের অফিসারের পদন্নোতিকে কেন্দ্র করে।

  • Share this:

#কলকাতা: বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বেশ কিছু দিন ধরে দলের মধ্যে 'বেসুরো'। তারই প্রভাব কি পড়ছে নবান্নের অন্দরে?   থমকে যাচ্ছে বন দফতরের বেশ কিছু সিদ্ধান্ত? বড়সড় এই বিতর্ক তৈরি হল ১৪ জন বন দফতরের অফিসারের পদন্নোতিকে কেন্দ্র করে।

প্রায় দু'মাস আগে ১৪ জন বিভিন্ন পদের অফিসারদের পদোন্নতি সুপারিশ করে পাঠিয়েছিলেন খোদ বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু অভিযোগ, দু' মাস ধরে সেই সব ফাইল উল্টেও দেখেনি নবান্ন। অথচ, নির্দিষ্ট কোনও কারণ না দেখিয়েই ওই সব ফাইল বন দফতরে ফেরত পাঠানো হয়েছে। এ নিয়ে বেজায় ক্ষুব্ধ মন্ত্রী-সহ রাজ্য বন দফতরের পদস্থ আধিকারিকেরা। যদিও এ নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলতে চাননি কেউই।

বেশ কয়েক মাস ধরেই দলের বিভিন্ন কাজকর্ম নিয়ে প্রকাশ্যে সরব হয়েছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবারও ফেসবুক লাইভ করে তিনি জানিয়েছেন, বেশ কিছু ভাল কাজ করতে চাইলেও দলের একাংশ তাঁকে কাজ করতে দিচ্ছে না। এর আগে মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় কয়েকবারই রাজীববাবুর মানভঞ্জনের চেষ্টা করেছেন। তাতে অবশ্য কাজ হয়নি। সে জন্যই কি তাঁর সুপারিশ করা পদন্নোতির তালিকা ফেরত পাঠাল নবান্ন?


বন দফতরের এক অন্যতম শীর্ষ কর্তার মতে, "এ ধরনের পদন্নোতির তালিকা একেবারেই রুটিন সুপারিশ। সাধারণ ভাবে নথি ঠিক থাকলে তা আটকানোর প্রশ্নই ওঠে না। সেই ফাইল যে ভাবে কোনও কারণ না দেখিয়েই ফেরত পাঠানো হয়েছে, তা আমাদের অবাক করেছে। নবান্নের শীর্ষস্তরের অনুমোদন না থাকলে এটা কখনওই হওয়ার কথা নয়। এর মধ্যে রাজনৈতিক মনোমালিন্যের বিষয়টিও উড়িয়ে দেওয়া যায় না।"

তবে মন্ত্রী এবং সরকারের এই বিরোধের জেরে ওই ১৪ অফিসার যে অথৈ জলে পড়েছেন, তা মানছে সব পক্ষই। কী ভাবে, কোন পথে এবং কবে তাঁদের পদন্নোতি হবে, তা বলতে পারছেন না ওঁরা। তবে কোনও ভাবে মন্ত্রীর সঙ্গে নবান্নের বিরোধ মিটলে যে পদন্নোতির ফাইল গ্রাহ্য হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, তা মানছেন বন দফতরের শীর্ষ কর্তারা।

Published by:Arka Deb
First published:

লেটেস্ট খবর