কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

শিয়রে ভোট, কলকাতার মেট্রো প্রকল্প নিয়ে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী

শিয়রে ভোট, কলকাতার মেট্রো প্রকল্প নিয়ে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী

রাজ্যের একমাত্র মেট্রো প্রকল্প নোয়াপাড়া থেকে দক্ষিণেশ্বর অবধি অংশ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে খোঁজ রাখতেন প্রধানমন্ত্রী। এই অংশে কাজ শেষ। চলছে ট্রায়াল রান।

  • Share this:

কলকাতা: শিয়রে ভোট। তার আগেই রাজ্যের মেট্রো প্রকল্পগুলির কাজ দ্রুত শেষ করার নির্দেশ দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। রেল বোর্ডের আধিকারিকদের এই বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রীর এই নির্দেশের পরেই শীঘ্রই রাজ্যে আসতে চলেছেন রেল বোর্ডের দুই আধিকারিক। দীর্ঘদিন ধরে কলকাতায় একের পর এক মেট্রো প্রকল্পের কাজ চলে আসছে। কোথাও আংশিক কাজ শেষ হলেও, প্রকল্পের জট সম্পূর্ণ কাটেনি৷ এই অবস্থায় দীর্ঘদিন ধরে চলতে থাকা মেট্রো প্রকল্পগুলির কাজ যাতে দ্রুত শেষ করতে পারা যায় তা নিয়ে এবার নির্দেশ দিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী।

ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিভিন্ন রেল প্রকল্পগুলির কাজ তদারকি করার জন্যে রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল, আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে বলেছিলেন।নজরে রাজ্যের যে সব মেট্রো প্রকল্প। নোয়াপাড়া থেকে বারাসত মেট্রো প্রকল্প। এই প্রকল্পে দীর্ঘদিন ধরে চলছে জমি সমস্যা। মূলত বিমানবন্দরের পরেই জমি জট। বিমানবন্দর অবধি জোর কদমে কাজ এগোলেও বাকি অংশ নিয়ে এখনও অব্যাহত সমস্যা। সূত্রের খবর, ২০২২ সালের ৩১ মার্চ মধ্যে  এই অংশে নোয়াপাড়া থেকে বিমানবন্দরের মধ্যে কাজ শেষ করতে বলা হয়েছে। এই অংশের মধ্যে আছে বিমানবন্দর থেকে নিউ ব্যারাকপুর। যার কাজ শেষ করতে বলা হয়েছে ২০২৫ সালের মধ্যে৷ সবচেয়ে সমস্যা আছে এখানেই৷ বিমানবন্দর অংশে জোর গতিতে চলছে কাজ। যদিও তার পরের অংশে কাজের গতি একেবারেই থমকে গিয়েছে।

এই অবস্থায় মেট্রো রেল আধিকারিক ও রেলের যে সংস্থা কাজ করছে সেই আর ভি এন এল আধিকারিকদের বলা হয়েছে রাজ্যের সাথে এই বিষয়ে আলোচনায় বসতে। প্রয়োজনে মাটির নীচে দিয়ে মেট্রো নিয়ে যাওয়া যায় কিনা তা দেখতে বলা হয়েছে। তবে জোকা-বিবাদী বাগ, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর বাকি অংশ নিয়ে খুশি হলেও কাজের গতি বাড়াতে রেল মন্ত্রককে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। রাজ্যের একমাত্র মেট্রো প্রকল্প নোয়াপাড়া থেকে দক্ষিণেশ্বর অবধি অংশ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে খোঁজ রাখতেন প্রধানমন্ত্রী। এই অংশে কাজ শেষ। চলছে ট্রায়াল রান।

শীঘ্রই কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটির অনুমতি পেলেই এই অংশে যাত্রী পরিষেবা চালু করে দেওয়া হবে। সূত্রের খবর, প্রধানমন্ত্রী নিজে এই অংশের উদ্বোধনে হাজির থাকতে পারেন। এ বিষয়ে বাংলার বিজেপি নেতারাও তাকে অনুরোধ জানিয়েছেন। তবে প্রধানমন্ত্রীর কলকাতা মেট্রো প্রকল্প নিয়ে আলোচনা কে নিয়ে ভোটের আগে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চর্চা। ২০০৯ সালে রেলমন্ত্রী হয়ে মমতা বন্দোপাধ্যায় একাধিক প্রকল্প নিয়েছিলেন বাংলার জন্য। এর সবকটি প্রকল্প মমতা বন্দোপাধ্যায় সময় গ্রহণ করা হয়। যদিও রাজ্যের জমি নীতির জেরে সেই কাজ কার্যত এগোয়নি বহু প্রকল্পে। কেন্দ্র যে মানুষের ভালো মন্দ বিচার করে তা বোঝাতেই প্রধানমন্ত্রীর এই চাল বলে অনেকে মনে করছেন। কারণ এই প্রকল্পগুলির অধিকাংশই কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণার সাথে যুক্ত। ফলে একটা বড় অংশের ভোটারের কাছে বার্তা পৌছে যাবে। কেন্দ্র ইচ্ছুক হলেও রাজ্যের বাধায় অসুবিধা হচ্ছে সাধারণ নাগরিকদের।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: January 11, 2021, 12:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर